• ঢাকা
  • শনিবার, ১৩ জুলাই, ২০২৪, ২৯ আষাঢ় ১৪৩১, ৬ মুহররম ১৪৪৫

ফুসফুসের যত্নে করণীয়


সংবাদ প্রকাশ ডেস্ক
প্রকাশিত: জুন ১১, ২০২৪, ০৮:১৪ পিএম
ফুসফুসের যত্নে করণীয়
ফুসফুসের যত্নে করণীয়। ছবি: সংগৃহীত

অল্পতেই হাঁপিয়ে ওঠেন? শ্বাস নিতে কষ্ট হয়?ফুফুসের কার্যকারিতা কমে গেলেই এমন হতে পারে। ফুসফুস আমাদের দেহের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ অঙ্গগুলোর একটি। শ্বাস-প্রশ্বাস, রক্তে অক্সিজেন প্রবেশ, কার্বন-ডাই অক্সাইড নির্গমনসহ দেহের অনেক জরুরি কাজ করে। সুস্থ ফুসফুস ছাড়া স্বাভাবিক জীবনযাপন কল্পনাও করা যায় না। তবে নানা কারণে আমাদের দেহের এই গুরত্বপূর্ণ অঙ্গটি ক্ষতিগ্রস্থ হয়। বাংলাদেশে ফুসফুসের রোগের অন্যতম প্রধান কারণ পরিবেশদূষণ এবং ঘনবসতিপূর্ণ অস্বাস্থ্যকর পরিবেশ। তার সাথে আছে আমাদের কিছু বদঅভ্যাস। কিন্তু ফুসফুসের প্রতি আমাদের বিশেষ যত্ন নেওয়া উচিত। সেজন্য কিছু অভ্যাসের বদল করার প্রয়োজন এবং সাথে কিছু নতুন অভ্যাস করা দরকার। আসুন জেনে নেই কোন কোন অভ্যাসে ভালো থাকবে ফুসফুস?

  • ফুসফুস ভালো রাখতে সবার আগে ধূমপানের অভ্যাস ছাড়তে হবে। এমনকি, কাছাকাছি কেউ ধূমপান করলেও চেষ্টা করুন সেই স্থান থেকে সরে আসতে।  অন্য কেউ ধূমপান করলে সেই ধোঁয়া কিন্তু নিজে ধূমপান করার থেকে আরও বেশি ক্ষতিকর। তামাকে প্রায় ৪০০০ রাসায়নিক পদার্থ রয়েছে, যা মানবদেহের জন্য ক্ষতিকর। ক্যানসারের জন্যও দায়ী তামাক। তাই প্রথমেই ধূমপানকে না বলুন।
  • নির্মল বায়ুসেবন ফুসফুসের সুরক্ষার অন্যতম নিয়ামক। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার মতে, বিশ্বে প্রতি ১০ জনে ৯ জনই দূষিত বায়ু সেবন করে, যা ফুসফুসের জন্য অত্যন্ত ঝুঁকিপূর্ণ। বায়ুদূষণ থেকে রক্ষা পেতে ব্যক্তিগত, সামাজিক এবং রাষ্ট্রীয় উদ্যোগ জরুরি।
  • ফুসফুস ভালো রাখতে নিয়মিত বিভিন্ন ধরনের শ্বাসের ব্যায়াম ও যোগাভ্যাস করতেই হবে। নিয়মিত শরীরচর্চা করলে ফুসফুসের অক্সিজেন গ্রহণ করার ক্ষমতা বেড়ে যায়। সুস্থ ও অসুস্থ উভয় ধরনের ফুসফুসের ক্ষেত্রে শরীরচর্চা খুবই গুরুত্বপূর্ণ। শরীরচর্চার মাধ্যমে শরীর যেমন কর্মক্ষম থাকে, তেমনি হৃৎপিণ্ড ও ফুসফুসের সুস্থতার জন্যও ব্যায়াম অপরিহার্য। শরীরচর্চায় হৃৎপিণ্ডের গতি ও শ্বাস–প্রশ্বাস বাড়ে, মাংসপেশির অক্সিজেনের চাহিদা বাড়ে। ফুসফুস এ চাহিদা পূরণ করে অতিরিক্ত কার্বন ডাই–অক্সাইড বের করে দেওয়ার মাধ্যমে। এটি নিশ্চিত করতে গিয়ে ফুসফুসের অনেক বায়ুথলি সংকুচিত অবস্থা থেকে প্রসারিত হয়ে ওঠে এবং বায়ুথলিগুলোর কর্মক্ষমতা বৃদ্ধি পায়।
  • ফুসফুস ভালো রাখতে ওজনও নিয়ন্ত্রণে রাখা ভীষণ জরুরি। ওজন বেড়ে গেলেই ফুসফুসের উপর বেশি চাপ পড়তে শুরু করে ফলে অঙ্গটির কার্যকারিতা কমে যায়।
  • রঙিন ফল এবং সব্জি ফুসফুস ভাল রাখতে কাজে আসে। ক্যাপসিকাম, টোম্যাটো, কমলালেবু, পালং শাকের মতো সব্জিতে প্রচুর অ্যান্টি-অক্সিড্যান্ট থাকে, যা ফুসফুস ভালো রাখতে সাহায্য করে। এ ছাড়া স্ট্রবেরি, ব্লুবেরি কিংবা ব্ল্যাকবেরিতে রয়েছে ‘অ্যান্থোসায়ানিন’ নামক উপাদান। এই অ্যান্থোসায়ানিন ফুসফুসের স্বাস্থ্য ভাল রাখতে সাহায্য করে। তাই ফুসফুস ভাল রাখতে ডায়েটের দিকেও নজর রাখতে হবে।

এছাড়া ফুসফুসের স্বাস্থ্য ভালো আছে কি না তা জানতে নিয়মিত চেকআপ করাতে হবে। ফুসফুসের ক্যান্সারের পারিবারিক ইতিহাস থাকলে নিয়মিত স্ক্রিনিং জরুরি।

Link copied!