• ঢাকা
  • শুক্রবার, ২৪ মে, ২০২৪, ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ১৬ জ্বিলকদ ১৪৪৫

সারাক্ষণ এসিতে থাকলে যা হয়


সংবাদ প্রকাশ ডেস্ক
প্রকাশিত: এপ্রিল ১৬, ২০২৪, ০৪:৩৪ পিএম
সারাক্ষণ এসিতে থাকলে যা হয়

বৈশাখ শুরুর আগে থেকেই প্রচণ্ড তাপপ্রবাহ বেড়েছে। গরমে নাজেহাল জনজীবন। বাইরের তাপমাত্রাকে তো আর নিয়ন্ত্রণ করা যায় না। কিন্তু ঘর বা অফিসে এসি ব্যবহার করে তাপমাত্রা নিয়ন্ত্রণ করা সম্ভব। তাইতো বাইরে যত গরম বাড়বে এসিতে থাকাও তত বেড়ে যাবে। অনেকে সারাদিন রাত এসিতেই থেকে অভ্যস্ত। কারণ এসির ঠাণ্ডা হাওয়া কিছুটা আরাম মেলে। তবে সারাক্ষণ এসিতে থেকে শরীরের ভেতরে বড় অসুখ হচ্ছে না তো। সম্প্রতি এক গবেষণায় উঠে এসেছে, সারাক্ষণ এসিতে থাকা মানবদেহের জন্য ক্ষতিকর। এতে শরীরের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কমে যায়। শরীরে নানা রোগ বাসা বাধে।

গবেষণায় জানানো হয়, প্রতিদিন ৭-৮ ঘণ্টার বেশি এসিতে থাকা উচিত নয়। এর বেশি সময় এসি ব্যবহার করলেই বিপত্তি বাড়ে। শরীরে নানা রোগ বাসা বাঁধে। যাদের রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা কম তারা নানা রোগে ভোগে। তাই যত গরমই হোক এসির ব্যবহার সীমিত রাখাই ভালো।

এছাড়াও সারাক্ষণ এসিতে থাকলে আরও কিছু সমস্যা হতে পারে। যেমন,

  • এসির বাতাসে ত্বক শুষ্ক হয়ে যেতে পারে। এসি ঠাণ্ডা বাতাস দিলেও এটি ত্বককে শুষ্ক করে দেয়। ত্বক ও শরীর থেকে পানি শুষে নেয়। তাই শরীরেও পানিশূন্যতা দেখা দিতে পারে।
  • সারাক্ষণ এসিতে থাকলে হতে পারে শ্বাসকষ্টও। যাদের ঠাণ্ডাজনিত রোগ রয়েছে তারা এসির ঠাণ্ডা বাতাসে বেশিক্ষণ থাকলে আরও অসুস্থ হয়ে যেতে পারে। শ্বাসকষ্ট হতে পারে।
  • যাদের অ্যাজমা এবং অ্যালার্জি রয়েছে তাদেরও এসিতে থাকা বিপদজ্জনক হতে পারে। সারাক্ষণ এসিতে থাকলে অ্যাজমার সমস্যা বাড়ে। সেই সঙ্গে শরীরে অ্যালার্জির সমস্যাও বাড়তে পারে।
  • সারাক্ষণ এসিতে থাকলে আপনি সংক্রামক রোগেও আক্রান্ত হবেন। তাই এসিতে বিভিন্ন রোগ দ্রুত ছড়িয়ে যায়। তাই একই স্থানে এসিতে থাকা একজন মানুষ অসুস্থ থাকলে তার জীবাণু অন্য মানুষের শরীরে দ্রুত ছড়িয়ে পড়ে।
  • বেশিক্ষণ এসিতে থাকলে আপনার মাথা ব্যথাও বাড়তে পারে। ঠাণ্ডা বাতাস সরাসরি মাথায় লাগলে মাথাব্যথা হতে পারে। 
  • এছাড়াও যত এসিতে থাকবেন আপনি ততই অলস হয়ে যাবেন। কারণ এসির আরামদায়ক বাতাস থেকে বাইরের গরমে যেতে ইচ্ছে হবে না। তাই প্রয়োজনীয় কাজ থাকলেও আপনি ঘরেই বসে থাকতে চাইবেন। এতে শরীরে অলসতা ভর করবে। চলাফেরা কমে যাবে। আর শরীরে বাসা বাঁধবে নানা রোগ।
Link copied!