• ঢাকা
  • বুধবার, ২৮ ফেব্রুয়ারি, ২০২৪, ১৫ ফাল্গুন ১৪৩০, ১৮ শা’বান ১৪৪৫

দীর্ঘদিন বেঁচে গোল্ডফিশের বিশ্বরেকর্ড


সংবাদ প্রকাশ ডেস্ক
প্রকাশিত: আগস্ট ২১, ২০২৩, ০৬:০৬ পিএম
দীর্ঘদিন বেঁচে গোল্ডফিশের বিশ্বরেকর্ড

বিশ্বের অন্যতম নামিদামি প্রজাতির মাছ গোল্ডফিশ। সৌন্দর্যের দিক থেকেও এগিয়ে রয়েছে এটি। এ মাছ সচরাচর ছোট আকৃতির হয়ে থাকে। গোল্ডফিশ পূর্ব এশিয়া অঞ্চলের মাছ হলেও বর্তমানে বিশ্বের প্রায় সব দেশেই এটি পাওয়া যায়।

পৃথিবীতে প্রায় ১২৫ প্রজাতির গোল্ডফিশ আছে। গোল্ডফিশ ১০-২৫ বছর পর্যন্ত বাঁচে এবং ৪০ সেন্টিমিটার পর্যন্ত বড় হয়। যুক্তরাজ্যের নর্থ ইয়র্কশায়ারে ১৯৯৯ সালে একটি গোল্ডফিশ ৪৩ বছর বয়সে মারা যায়। যা তাকে বিশ্বরেকর্ডের তকমা এনে দেয়। গিনেস বুক অব রেকর্ডসে সবচেয়ে বয়স্ক গোল্ডফিশ হিসেবে ঘোষণা করা হয় এই গোল্ডফিশকে।

টিশ নামের পুরুষ গোল্ডফিশটি ৪৩ বছরের জীবনে অনেক কিছুর সাক্ষী হয়েছে। সেই সঙ্গে তার সোনালি বর্ণ হারিয়ে হয়েছিল রুপালি। টিশের মালিক ছিলেন পিটার। ১৯৫৬ সালে নর্থ ইয়র্কশায়ার একটি স্টল থেকে টিশকে পুরস্কার হিসেবে পেয়েছিলেন। তখন পিটারের বয়স মাত্র সাত বছর।

পিটারই টিশের দেখাশোনা করতেন। তবে বিয়ের পর যখন অন্যত্র চলে যান পিটার তখন তার মা হিলডা টিশের দেখাশোনা করতে থাকেন। টিশের সঙ্গী ছিল তোশ নামের আরেকটি মেয়ে গোল্ডফিশ। সে মারা যাওয়ার পর অন্য আরেকটি গোল্ডফিশকে সঙ্গী হিসেবে পেয়েছিল টিশ।

বয়স বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে টিশের শরীর রং হারাতে থাকে। অন্যান্য গোল্ডফিশ যে খাবার খায় টিশও সেগুলোই খেত। তবে হিলডা টিশের এতদিন বাঁচার অন্যতম কারণ হিসেবে মনে করেন, টিশের শান্তিপূর্ণ জীবন। টিশের মানুষের মতো এত চাপ সহ্য করতে হয় না। একটি শান্তিপূর্ণ জীবন এবং খাবার তাকে এত দীর্ঘসময় বেঁচে থাকতে সহায়তা করেছে।

টিশের মৃত্যু হয়েছিল অ্যাকুরিয়াম থেকে বাইরে আসার কারণে। সেসময় হিলডা বাড়িতে ছিলেন না। বাড়িতে ফিরে টিশকে কার্পেটের ওপর দেখতে পান। ততক্ষণে টিশ মারা গেছে। এর আগেও কয়েকবার টিশ পানি থেকে বাইরে বেরিয়ে এসেছে কিন্তু আবার পানিতে ছেড়ে দেওয়ার পর ঠিক হয়ে গেছে। কিন্তু এবার আর তা হয়নি।

Link copied!