• ঢাকা
  • সোমবার, ১৫ এপ্রিল, ২০২৪, ২ বৈশাখ ১৪৩১,

লুট করতে গিয়ে আশানুরূপ টাকা না পেয়ে সন্তানসহ দম্পতিকে হত্যা


সাভার প্রতিনিধি
প্রকাশিত: অক্টোবর ৩, ২০২৩, ০৬:৫০ পিএম
লুট করতে গিয়ে আশানুরূপ টাকা না পেয়ে সন্তানসহ দম্পতিকে হত্যা

সাভারের আশুলিয়ায় একই পরিবারের তিনজনকে গলাকেটে হত্যার রহস্য উদঘাটন করেছে র‌্যাব। এ ঘটনায় এক দম্পতিকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে।

মঙ্গলবার (৩ অক্টোবর) দুপুরে রাজধানীর কারওয়ান বাজারে র‌্যাব মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে র‌্যাবের আইন ও গণমাধ্যম শাখার পরিচালক কমান্ডার খন্দকার আল মঈন এসব তথ্য জানিয়েছেন।

এর আগে সোমবার (২ অক্টোবর) রাতে গাজীপুরের শফিপুর এলাকা থেকে ওই দম্পতিকে গ্রেপ্তার করা হয়। গ্রেপ্তাররা হলেন টাঙ্গাইলের মোবারক আলীর ছেলে সাগর আলী (৩১) ও তার স্ত্রী ঈশিতা বেগম (২৫) ।

খন্দকার আল মঈন বলেন, গত ২৮ সেপ্টেম্বর বাবুল হোসেন নামের এক ব্যক্তি সাভারের বারইপাড়া এলাকায় একটি ভেষজ ওষুধের দোকানে গিয়ে শারীরিক সমস্যা নিয়ে কথা বলেন। এ সময় সাগর আলী পাশের একটি দোকানে চা খাচ্ছিলেন। তিনি কবিরাজের সঙ্গে বাবুলের কথোপকথন শুনে জানতে পারেন, চিকিৎসায় ১৫-২০ হাজার টাকা খরচ করেও কোনো ফল পাননি বাবুল। পরে কৌশলে বাবুলকে ডেকে নিয়ে কথা বলেন সাগর। তিনি জানান, তার স্ত্রী ইশিতা বেগমও একজন ভালো কবিরাজ। একপর্যায়ে চিকিৎসার জন্য বাবুলের সঙ্গে সাগর ৯০ হাজার টাকার চুক্তি করেন। ওই দিন রাতেই স্ত্রীকে নিয়ে বাবুলের বাসায় যান সাগর। কিন্তু সেখানে গিয়ে তারা সবাইকে ঘুমের ওষুধ খাইয়ে অচেতন করেন। এরপর সবার হাত-পা বেঁধে লুটপাট শুরু করেন। কিন্তু মাত্র পাঁচ হাজার টাকা খুঁজে পান তারা। এতে ক্ষিপ্ত হয়ে তিনজনকে বটি দিয়ে কুপিয়ে খুন করেন এই দম্পতি।

এরপর গত ৩০ সেপ্টেম্বর আশুলিয়ার জামগড়া এলাকার একটি বাড়ির চতুর্থ তলার একটি ফ্ল্যাট থেকে বাবুল হোসেন (৫০), শাহিদা বেগম (৪০) ও তাদের ছেলে মেহেদী হাসান জয়ের (১২) অর্ধগলিত গলাকাটা মরদেহ উদ্ধার করা হয়। বাবুল ও শাহিদা পোশাক কারখানায় চাকরি করতেন।

র‌্যাব জানায়, এর আগে ২০২০ সালে টাঙ্গাইলের মধুপুরে একই কৌশলে একই পরিবারের চারজনকে খুন করা হয়। ওই ঘটনায়ও সাগর আলী জড়িত ছিলেন। ওই ঘটনায় সাড়ে তিন বছর কারাগারে থাকার পর চলতি বছরের জুনে জামিনে মুক্তি পান তিনি। এর চার মাসের মাথায় ফের একই পরিবারের তিনজনকে খুনের ঘটনা ঘটালেন সাগর।

Link copied!