• ঢাকা
  • বুধবার, ১৯ জুন, ২০২৪, ৫ আষাঢ় ১৪৩১, ১২ জ্বিলহজ্জ ১৪৪৫

সকালে যেসব নিয়ম মেনে চললে নিয়ন্ত্রণে থাকবে কোলেস্টেরল


সংবাদ প্রকাশ ডেস্ক
প্রকাশিত: মে ১৬, ২০২৪, ১২:৫১ পিএম
সকালে যেসব নিয়ম মেনে চললে নিয়ন্ত্রণে থাকবে কোলেস্টেরল
মানসিক চাপ বাড়লে কোলেস্টেরলের মাত্রা বেড়ে যায় । ছবিঃ সংগৃহীত

কোলেস্টেরল এক ধরনের চর্বিজাতীয়, তৈলাক্ত স্টেরয়েড যা কোষের ঝিল্লি বা সেল মেমব্রেনে-এ পাওয়া যায় এবং যা সব প্রাণীর রক্তে পরিবাহিত হয়। এটি শরীরের জন্য অত্যাবশ্যক উপাদান।  রাত জাগার অভ্যাস, বাইরের খাবারের প্রতি ঝোঁক, প্রক্রিয়াজাত খাবারের উপরে অতিরিক্ত নির্ভরশীলতা, শরীরচর্চার প্রতি অনীহা— সব মিলিয়ে শরীরে কোলেস্টেরলের মাত্রা বাড়তে থাকে। অতিরিক্ত কোলেস্টেরল শরীরের জন্য একদমই ভালো না। শরীরে খারাপ কোলেস্টেরলের মাত্রা নিয়ন্ত্রণে না থাকলে হৃদরোগ, পেরিফেরাল আর্টারি ডিজিজ, স্ট্রোকসহ নানা অসুখে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা তৈরি হয়। স্বাভাবিকভাবে কোলেস্টেরল কমাতে দৈনন্দিন রুটিনে কিছু অভ্যাস পরিবর্তন বা যোগ করতে হবে। এসব অভ্যাস আপনার কোলেস্টেরল নিয়ন্ত্রণে ভূমিকা রাখবে।  যেমন-

লেবুর রস পান করুন
ঘুম থেকে উঠে খালি পেটে লেবু পানি খাওয়া অভ্যাস করুন। লেবুতে থাকা ভিটামিন সি, ফ্ল্যাভোয়েড যৌগ লো-ডেনসিটি লাইপোপ্রোটিনের সঙ্গে লড়াই করে শরীরে কোলেস্টেরলের মাত্রা কমাতে সাহায্য করে।

স্বাস্থ্যকর নাশতা
সকালের নাশতায় পুষ্টিকর খাবার রাখুন যা, কোলেস্টেরলের মাত্রা কমাতে সাহায্য করতে পারে। দ্রবণীয় ফাইবার সমৃদ্ধ খাবার খান। দ্রবণীয় ফাইবার রক্তে খারাপ কোলেস্টেরলের মাত্রা কমাতে সাহায্য করে। তাছাড়া সকালের নাশতায় খাদ্যতালিকায় বেশি করে ফল ও শাকসব্জি, গোটা শস্য, ওটমিল, ব্রকলি রাখুন।

কমলার রস পান করুন
কমলা ফ্ল্যাভোনয়েড সমৃদ্ধ, যা এলডিএল কোলেস্টেরলের মাত্রা কমাতে ভূমিকা রাখে। তাই নিয়মিত সকালে এক গ্লাস কমলার রস পান করুন।

শরীরচর্চা করা
নিয়মিত শরীরচর্চা কমাতে পারে কোলেস্টেরলের মাত্রা। প্রতিদিন বাড়ির আশেপাশে হাঁটাহাঁটি করুন বা পার্কে জগিং করতে যান। সপ্তাহে কমপক্ষে পাঁচ দিন ৩০ মিনিটের মাঝারি বা তীব্র ব্যায়াম করুন । সাইকেল চালানো ও সাঁতারের মতো অভ্যাসও সহায়তা করতে পারে কোলেস্টেরল নিয়ন্ত্রণে।

এক কাপ গ্রিন টি
আমেরিকান ডায়েটিক অ্যাসোসিয়েশনের জার্নালে প্রকাশিত একটি সমীক্ষা অনুসারে, নিয়মিত গ্রিন টি পান করা এলডিএল কোলেস্টেরলের মাত্রা কমাতে সাহায্য করতে পারে। তাই সকালে উঠে এক কাপ গ্রীন টি পান করুন।

ধূমপানকে না বলুন
ঘুম থেকে উঠেই যারা ধূমপান করেন তাদের এই অভ্যাস এখনই বন্ধ করতে হবে। কারণ ধূমপান শুধু ফুসফুসের ক্ষতি করে না, বাড়িয়ে দেয় ক্ষতিকর কোলেস্টেরলের মাত্রাও। তাই এই অভ্যাসেও রাশ টানতে হবে।

যোগাসন ও ধ্যান করুন
মানসিক চাপ বাড়লেও কোলেস্টেরলের মাত্রা বেড়ে যায় শরীরে। তাই সকালে ঘুম থেকে উঠে খানিকটা সময় যোগাসন ও ধ্যানের জন্য বরাদ্দ রাখুন। এর ফলে রক্তে এলডিএল কোলেস্টেরলের মাত্রা নিয়ন্ত্রণে আসে। সকালে অন্তত ১০ মিনিট নিঃশ্বাসের ব্যায়াম করুন। সাইকোসোম্যাটিক মেডিসিনে প্রকাশিত একটি সমীক্ষা অনুসারে, মাইন্ডফুলনেস মেডিটেশন অনুশীলন করা এলডিএল কোলেস্টেরলের মাত্রা কমাতে সাহায্য করতে পারে।

Link copied!