• ঢাকা
  • বৃহস্পতিবার, ২০ জুন, ২০২৪, ৬ আষাঢ় ১৪৩১, ১৩ জ্বিলহজ্জ ১৪৪৫

নাক দিয়ে রক্ত পরা কি করোনার নতুন উপসর্গ?


সংবাদ প্রকাশ ডেস্ক
প্রকাশিত: আগস্ট ১২, ২০২১, ০২:৪৬ পিএম
নাক দিয়ে রক্ত পরা কি করোনার নতুন উপসর্গ?

করোনাভাইরাস সংক্রমণ নিত্য নতুন উপসর্গ নিয়ে হাজির হচ্ছে। সাধারণ কিছু উপসর্গের বাইরে দেখা যাচ্ছে নতুন উপসর্গও। জনমনে তাই সবসময় আতঙ্ক থেকে যাচ্ছে। সম্প্রতি নাক দিয়ে রক্ত পরা নিয়েও শঙ্কায় রয়েছেন সাধারণ মানুষ। এটি কি করোনার নতুন লক্ষণ, এমন প্রশ্ন নিয়ে ভিড় করছেন ডাক্তারের কাছে।

আমেরিকান একাডেমিক মেডিকেল সেন্টার ক্লিভল্যান্ড ক্লিনিকের তথ্য অনুসারে, নাক দিয়ে রক্ত ​​পড়াকে  এপিস্ট্যাক্সিস বলে। নাকের ভেতরে টিস্যু থেকে রক্ত ক্ষরণ হতে পারে। নাকের আস্তরণে পৃষ্ঠের কাছাকাছি প্রচুর রক্তনালী রয়েছে। যা থেকে রক্তপাত হতে পারে।

ক্লিভল্যান্ড ক্লিনিকের ডাক্তাররা বলছেন, নাক দিয়ে রক্ত ​​পড়া সাধারণ কিছু কারণে হতে পারে। এর মধ্যে রয়েছে-

  • শ্বাসযন্ত্রে উচ্চ সংক্রমণ থাকলে
  • সাইনোসাইটিসের সমস্যা থাকলে
  • নাকে বা মুখে আঘাত পেলে
  • এলার্জি থাকলে
  • চুলকানি, সর্দি থাকলে
  • বন্ধ নাকের চিকিৎসার জন্য অনুনাসিক স্প্রে এবং ওষুধের অতিরিক্ত ব্যবহার হলে

এই সাধারণ সমস্যাগুলোর জন্য় নাক দিয়ে রক্তপাত হতে পারে বলে জানিয়েছে ডাক্তাররা। তবে করোনা সংক্রমণের উপসর্গ হিসাবে নাক দিয়ে রক্ত পরার কোনও প্রমাণ বা তথ্য পাওয়া যায়নি বলে জানান তারা।

জনস হপকিন্স সেন্টার ফর হেলথ সিকিউরিটির সিনিয়র স্কলার পরিচালক আমেশ এ আদালজা বলেন, 'আমি দেখিনি যে নাক দিয়ে রক্ত ​​পড়া কোভিডের লক্ষণগুলোর মধ্যে ছিল।"

উত্তর-পূর্ব ওহিও মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের অধ্যাপক রিচার্ড ওয়াটকিন্সও এই বিষয়ে একমত প্রকাশ করে বলেন, "কোভিড রোগীদের এই উপসর্গ কখনও দেখেননি"।

এদিকে বাফেলো/সুনি বিশ্ববিদ্যালয়ের মেডিসিনের অধ্যাপক জন সেলিক বলেন, "নাক দিয়ে রক্ত ​​পড়া অবশ্যই কোভিড -এর প্রধান লক্ষণ নয়। তবে এটি কোভিড-১৯ উপসর্গের পার্শ্বপ্রতিক্রিয়া হতে পারে।"

জন সেলিক আরও বলেন, "শ্বাসযন্ত্রের ভাইরাস সংক্রমণ হলে নাক দিয়ে রক্ত ​​পড়তে পারে। এটি অবাক করবে না।হাসপাতালে যেসব কোভিড রোগী আমরা দেখেছি তাদের বেশিরভাগেরই নাক দিয়ে রক্ত ​​পড়েছিল।"

স্বাস্থ্যবিশেষজ্ঞরা বলেন, যদি কারো শুধুমাত্র নাক দিয়ে রক্ত পরার লক্ষণ থাকে সেক্ষেত্রে আতঙ্কিত হওয়ার কিছু নেই। তবে যদি নাক দিয়ে রক্ত পরার সঙ্গে জ্বর, কাশি বা করোনার অন্যান্য উপসর্গ থাকে তবে অবশ্যই ডাক্তারের পরামর্শ নিতে হবে।

 

সূত্র: হেলথ জোন

Link copied!