• ঢাকা
  • শনিবার, ১৫ জুন, ২০২৪, ১ আষাঢ় ১৪৩১, ৮ জ্বিলহজ্জ ১৪৪৫

আত্মবিশ্বাসীরা যা করেন


সংবাদ প্রকাশ ডেস্ক
প্রকাশিত: অক্টোবর ৩, ২০২৩, ০৪:১৩ পিএম
আত্মবিশ্বাসীরা যা করেন

আত্মবিশ্বাস হলো সম্পূর্ণ নিজের ভেতরের একটি শক্তিশালী অনুভব। যা দিয়ে আপনি যা চান তাই-ই জয় করতে পারেন। আপনি যদি কোনো স্বপ্ন পূরণ করতে চান তাহলে একমাত্র আত্মবিশ্বাসই সেই স্বপ্নের দিকে আপনাকে অসম্ভব সাহসের সঙ্গে এগিয়ে নিয়ে যাবে। আর আত্মবিশ্বাস ধরে রাখতে হলে যেসব বিষয় আপনাকে সাহস যোগাবে তারমধ্যে উল্লেখযোগ্য হলো-

ভেতরের স্বরটিকে শুনুন
খেয়াল করলে বুঝতে পারবেন কোনো কারণ ছাড়াই সারাক্ষণ কিছু না কিছু চিন্তা খেলে যাচ্ছে আপনার মনে। আপনার বিক্ষিপ্ত সেই চিন্তাগুলোকে চুপ করিয়ে দিয়ে ভেতরগত স্বরটি কী বলতে চাইছে তা আপনাকে বুঝতে হবে। এই স্বরটি সবসময়ই ইতিবাচক এবং আপনাকে আরও শক্তিশালী অনুভব করতে সহায়তা করে। আপনি কী করবেন এবং আপনি সত্যিই করতে সক্ষম কি না তা সে জানে। সুতরাং সিদ্ধান্ত গ্রহণের সময় নিজের ভেতরকার সেই স্বরটিকে শুনুন।

নতুন চেষ্টা করুন
নতুন কিছু করতে যাওয়ার আগে আত্মবিশ্বাস অর্জনে বেশ সময় লাগে। আত্মবিশ্বাসী হওয়ার জন্য আপনার নিজেকে বারবার নতুন জিনিস এবং নতুন কিছু শেখার চ্যালেঞ্জ জানাতে হবে। কোনো কিছুতে নিঁখুত হয়ে ওঠা থেকে আত্মবিশ্বাস আসে না বরং চেষ্টা ও তার ফলাফল যাই হোক না কেন তা মেনে নেওয়ার মানসিকতা থেকেই আসে।

ব্যর্থতায় ভয় পাবেন না
ব্যর্থতা খারাপ নয়। ব্যর্থতা হলো এমন একটি বার্তা যে, আপনাকে আবারও চেষ্টা করতে হবে। একভাবে না হলে ভিন্নপথে যেতে হবে। ব্যর্থতা জীবন প্রক্রিয়ারই একটি অংশ। সুতরাং ব্যর্থতাগুলোকে ভালো কিছু শেখার সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ স্তর মনে করুন। এবং ব্যর্থতাকে গ্রহণ করতে শিখুন।

দেহভঙ্গিতে আত্মবিশ্বাস
আপনার দেহভঙ্গিও আপনার আত্মবিশ্বাসের মাত্রা সম্পর্কে অনেক কিছু বলে দেয়। এমনকি এটি আপনার নিজের সম্পর্কে নিজের অনুভুতিকেও প্রভাবিত করতে পারে। লম্বা হয়ে বুক উঁচু করে এবং পশ্চাদ্দেশের ওপর দুই হাত রেখে দাঁড়ালে প্রাকৃতিকভাবেই আত্মবিশ্বাস এবং আশাবাদ চাঙ্গা হয়। প্রতিদিন কয়েক মিনিটের জন্য এই পাওয়ার পোজের চর্চা করলে দেখবেন আপনার আত্মবিশ্বাসের মাত্রা বেড়েই চলেছে।

নিজের অর্জন উদযাপন 
আত্মবিশ্বাসী লোকেরা নিজেদের ছোটখাটো অর্জনগুলো নিয়েও গর্ববোধ করেন। সুতরাং যখনই কোনো লক্ষ্য অর্জনে সফল হবেন তা উদযাপন করুন। এভাবে যতই আপনি নিজেই নিজেকে সমর্থন করবেন এবং নিজেই নিজেই সবচেয়ে বড় বাহবা দানকারী হবেন ততই আপনি জীবন প্রক্রিয়ায় আরো আত্মবিশ্বাসী হয়ে উঠবেন। এবং নিজের স্বপ্নগুলোর পিছু তাড়া করারও সাহস পাবেন।

প্রতিযোগিতায় মেতে উঠবেন না
আত্মবিশ্বাসী মানষেরা মনে করেন অন্যের সঙ্গে প্রতিযোগিতা বলে কিছুই নেই। প্রতিযোগিতার চেয়েও অনেক বেশি গুরুত্বপূর্ণ হলো লক্ষ্য অর্জনে চেষ্টা করে যাওয়া। এবং নিজেকে অন্যের চেয়ে উত্তম প্রমাণের জন্য নয় বরং নিজের ব্যাক্তিগত উন্নয়নের জন্য কাজ করে যাওয়া। আপনি যা কিছুর যোগ্য তা আপনি এক সময় অর্জন করতে পারবেন। সুতরাং অন্যের সঙ্গে প্রতিযোগিতা একটা বিভ্রম মাত্র।

Link copied!