• ঢাকা
  • সোমবার, ১৫ জুলাই, ২০২৪, ৩১ আষাঢ় ১৪৩১, ৮ মুহররম ১৪৪৫

কোরবানিতে কয়জনের নাম থাকা জরুরি?


সংবাদ প্রকাশ ডেস্ক
প্রকাশিত: জুন ৯, ২০২৪, ০২:৫৭ পিএম
কোরবানিতে কয়জনের নাম থাকা জরুরি?
ছবি: সংগৃহীত

ঈদুল আযহার প্রধান আকর্ষণ থাকে পশু কোরবানি। প্রত্যেক সামর্থ্যবান মুসলিম আল্লাহ্ সন্তুষ্টি লাভে কোরবানি করেন। পবিত্র কোরআনে আল্লাহ তাআলা নামাজের সঙ্গে যুক্ত করে কোরবানি করার নির্দেশ দিয়েছেন। আল্লাহ বলেন, ‘নিশ্চয় আমি তোমাকে কাওসার দান করেছি। সুতরাং তোমার রবের উদ্দেশে সালাত আদায় করো ও কোরবানি করো। নিশ্চয় তোমার প্রতি শত্রুতা পোষণকারীই নির্বংশ। (সুরা কাওসার: ১-৩)


আবু হোরায়রা (রা.) থেকে বর্ণিত আল্লাহর রাসুল (সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম) বলেছেন, ‘যার কোরবানি করার সামর্থ্য রয়েছে কিন্তু কোরবানি করে না সে যেন আমাদের ঈদগাহে না আসে।’ (সুনানে ইবনে মাজা: ৩১২৩)

হাদিসে নির্দেশ রয়েছে, মুসলমানদের মধ্যে যাদের জিলহজ মাসের ১০, ১১ ও ১২ তারিখে নিজেদের নিত্য প্রয়োজনীয় খরচ ছাড়া অতিরিক্ত সাড়ে বায়ান্ন তোলা রূপার সমমূল্যের সম্পদের মালিক থাকবে তাদের জন্য পশু কোরবানি করা ওয়াজিব হবে।

কোরবানির জন্য যোগ্য পশুর বর্ণনাও পবিত্র কোরআনে নির্দেশনা রয়েছে। পাশাপাশি একটি পশু কয়জনের নামে কোরবানি করা যাবে সে বিষয়ে জানানো হয় কোরআন মাজিদে।

সাধারণত গৃহপালিত গবাদি পশু দিয়েই কোরবানি করতে হয়। ছয় ধরনের পশুর কোরবানির জন্য যোগ্য হয়। এর মধ্যে রয়েছে উট, গরু, মহিষ, ছাগল, ভেড়া ও দুম্বা। সামর্থ্যবান মুসলিমরা তাদের নামে এই ছয় ধরণের পশুর মধ্যে যেকোনো একটি দিয়ে কোরবানি করতে পারেন।

কোরবানির পশুর সঙ্গে কয়জনের নাম দেওয়া যায় এ বিষয়েও সঠিক ধারণা থাকা প্রয়োজন। অনেকের ধারণা, গরু কিংবা মহিষ কোরবানিতে ৭ জনের নাম থাকা জরুরি। কিন্তু এই ধারণা ঠিক নয়। সর্বোচ্চ ৭ জনের নামে একটি পশু কোরবানি দেওয়া যাবে। কিন্তু এর কম হলেও তাতে কোরবানি হবে। কারণ সর্বোচ্চ সাত জন পর্যন্ত শরিক থাকার সুযোগ থাকে। কিন্তু সাত শরিক থাকা বাধ্যতামূলক করা হয়নি।

হাদিসে নির্দেশ রয়েছে, ছাগল, ভেড়া, দুম্বা কোরবানি দিলে তা কেবলমাত্র একজনের পক্ষে বা নামে দেওয়া যাবে। এক্ষেত্রে একজন ব্যক্তি একটি ছাগল, ভেড়া কিংবা দুম্বা কিনে কোরবানি করতে পারবেন। পরিবারের ৪ জন হলে ৪টি পশু কিনতে হবে।

অন্যদিকে উট, গরু ও মহিষ কোরবানি করতে সর্বোচ্চ ৭ নাম শরিক হতে হবে। অর্থাৎ একটি গরু, উট বা মহিষে এক থেকে সর্বোচ্চ ৭ জনের নাম দেওয়া যাবে। তবে কোনোভাবেই এর বেশি মানুষ এক পশুতে শরিক হতে পারবেন না। কিন্তু একটি গরু, উট কিংবা মহিষ  কোরবানিতে ৭ শরিক থাকা জরুরি নয়। কারণ এক গরু এক নামেও কোরবানি করা যাবে বলে নির্দেশণা রয়েছে।

এক গরু বা মহিষ কিংবা উটে কয়জন শরিক হবেন তা নির্ধারণ করে তাদেরকে সমান অর্থ দিয়ে শরিক হতে হবে। শরিক হওয়া সবাইকে সমানভাগে কোরবানির পশু ভাগাভাগি করে নিতে হবে।

Link copied!