• ঢাকা
  • বুধবার, ২৮ ফেব্রুয়ারি, ২০২৪, ১৫ ফাল্গুন ১৪৩০, ১৮ শা’বান ১৪৪৫

বন্ধু বানানোর সহজ কৌশল


সংবাদ প্রকাশ ডেস্ক
প্রকাশিত: আগস্ট ৬, ২০২৩, ০৩:৫১ পিএম
বন্ধু বানানোর সহজ কৌশল

কিছু কিছু মানুষ আছেন ঘরেকুনো অবস্থায় থাকতে পছন্দ করেন। সহজে মানুষের সঙ্গে মিশতে চান বা অভ্যস্ত নন বলে একা থাকেন। কিন্তু একটা সময় এসে এই একাকিত্বই সবচেয়ে বড় যন্ত্রনার কারণ হয়ে দাঁড়াবে। কারণে হোক বা অকারণে, মানুষের জীবনে বন্ধুর প্রয়োজন সবসময়ের জন্যেই। চলুন আজ জেনে নেবো কীভাবে বন্ধু বানানো যায় তার কিছু উপায়-

ক্লাব বা সংগঠন
কোনো দল, সংগঠন, অথবা পছন্দের কোনো বিষয়ের ওপর ক্লাস-ভিত্তিক কোর্সে যোগদানের মাধ্যমে নতুন নতুন মানুষের সঙ্গে পরিচয়ের সুযোগ সৃষ্টি হয়। সেখান থেকেই হয়তো পেয়ে যেতে পারেন আপনার প্রিয় বন্ধুকে। একসঙ্গে থাকার কারণে আপনার সহকর্মী বা সহপাঠীরা জানতে পারবেন আপনার কিসের প্রতি উৎসাহ রয়েছে।

স্বেচ্ছাসেবক
অনেক সেচ্ছাসেবীমুলক প্রতিষ্ঠান রয়েছে আমাদের দেশে। স্বেচ্ছাসেবক হিসেবে কাজ করা মানে, মানুষের প্রতি আপনার ভালবাসা রয়েছে। যে কোনো একটি সেচ্ছাসেবী সংগঠনের সঙ্গে যক্ত হয়ে যেতে পারেন। দেখবেন জটে গেছে অনেক বন্ধু।

যোগাযোগ 
কোনো অনুষ্ঠানে বা জিমে অথবা খেলতে গিয়ে যদি নতুন কারও সঙ্গে আপনার পরিচয় হয় যার সঙ্গে আপনার মনের সঙ্গে মিলে যাচ্ছে তাহলে তার ফোন নম্বর বা ইমেইল ঠিকানাটি চেয়ে নিন।

হ্যাঁ বলতে হবে
যদি নতুন পরিচিত কেউ আপনাকে রাতের খাবারের জন্য আমন্ত্রণ জানান বা আপনাকে থিয়েটার টিকিট অফার করে তাহলে হ্যাঁ বলুন। এতে আপনি সাময়িক স্নায়ুচাপের মুখে পড়তে পারেন। মনে হতে পারে যে আপনি আপনার গণ্ডির বাইরে গিয়ে কিছু করছেন। কিন্তু জেনে রাখবেন, সাহস না রাখলে, কিছুই অর্জন করা যায়না।

প্রত্যাখ্যানের ভয় 
সম্পর্ক গড়ে তোলার ক্ষেত্রে আপনার সব প্রচেষ্টা যে কাজে লাগবে, এমন কোনো কথা নেই। কিন্তু আপনাকে হতাশ হলে চলবে না। নিজের প্রতি আস্থার জায়গাটা একটু মজবুত করুন। কারও সঙ্গে পরিচয়ের পর তার সঙ্গে আবারও দেখা করার প্রস্তাব দেন এবং তাদের উত্তর যদি "না" সূচক হয়, তাহলে ভেঙ্গে পড়বেন না। কেননা এটাই শেষ নয়।

সহকর্মী বন্ধু 
বর্তমান ব্যস্ত সমাজে পরিবারের চাইতে আমাদের বেশি সময় কাটানো হয় কর্মক্ষেত্রে সহকর্মীদের সঙ্গে। তাই এই সহকর্মীদের বন্ধু বানানোর চেষ্টা করা যথেষ্ঠ যৌক্তিক। এক্ষেত্রে আপনি বিশ্বস্ত কোনো সহকর্মীর কাছে নিজেকে একটু প্রকাশ করতে পারেন। কাজের পর কোথাও খেতে যাওয়ার পরিকল্পনা করে নিতে পারেন।

প্রয়োজন
বন্ধুত্ব গড়ে তোলার জন্য গুরুত্বপূর্ণ কাজ হলো তার প্রয়োজনীয় কোন কিছু কিনে দেয়ার মতো ছোট ছোট বিষয়গুলো মনে রাখা। এবং যদি আপনার পছন্দের মানুষটি কঠিন সময় মধ্যে দিয়ে যান তাহলে তার সাহায্যে এগিয়ে আসুন।

খোলা মন
একজন নতুন বন্ধুর ধরণ বিভিন্ন রকম হতে পারে। যে সতেরো বছরের হতে পারে আবার সত্তরও হতে পারে, তার বেড়াল পছন্দ হতে পারে আবার শুধু কুকুর পছন্দ হতে পারে। তার পছন্দের গান হতে পারে মেটাল বা ক্লাসিক্যাল। মনে রাখবেন যে, ভিন্ন ব্যক্তিত্ব আমাদের আকর্ষণ করে বেশি। তাই প্রথম দেখাতেই কাউকে বিচার করা ঠিক হবেনা। প্রত্যেকেই একটা সুযোগ দিন।সেইসব মানুষদের কথা ভাবুন যাদের আপনি প্রথম দেখায় ভীষণ বিরক্তিকর ভেবেছিলেন, অথচ যারা এখন কিনা আপনার ভীষণ প্রিয়।

Link copied!