• ঢাকা
  • বৃহস্পতিবার, ১৩ জুন, ২০২৪, ৩০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ৬ জ্বিলহজ্জ ১৪৪৫

কোরবানির পশুর বর্জ্য অপসারণে যা করবেন


সংবাদ প্রকাশ ডেস্ক
প্রকাশিত: জুলাই ২০, ২০২১, ০১:১০ পিএম
কোরবানির পশুর বর্জ্য অপসারণে যা করবেন

পশু কোরবানির পর বর্জ্য অপসারণে ব্যস্ত হয়ে যায় পুরো রাজধানী। জেলা-উপজেলাতেও বর্জ্য অপসারণে মাঠে নেমে যান দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মীরা। দ্রুত বর্জ্য অপসারণ না হলে বাজে গন্ধ ছড়িয়ে পড়ে চারপাশে। ব্যক্তি পর্যায়েও বর্জ্য অপসারণের দায়িত্ব পালন করতে হবে বলে জানিয়েছেন পরিবেশ বিশেষজ্ঞরা।

কোরবানির বর্জ্য অপসারণ ও স্থানটি দ্রুত পরিস্কার করা প্রয়োজন বলে জানান বিশেষজ্ঞরা। এর পরিপ্রেক্ষিতে বেশকিছু নির্দেশণাও দিয়েছে তারা। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, ব্যক্তি পর্যায়ে বর্জ্য অপসারণের ক্ষেত্রে সচেতনতার পাশাপাশি কিছু পদক্ষেপ নেওয়া যেতে পারে_

  • যারা নিজেদের বাড়িতে কোরবানি করবেন তারা অবশ্যই নিজ দায়িত্বে বর্জ্য পরিষ্কার করবেন। কোরবানির পর বর্জ্য নিজের বাড়ির সামনে ফেলে রেখে চলে যাবেন না। এতে বর্জ্য থেকে পঁচা গন্ধ ছড়ায় এবং মশা-মাছির উপদ্রব বাড়ে। এটি অস্বাস্থ্যকর এবং পরিবেশের জন্য মারাত্মক ক্ষতিকর। তাই কর্তৃপক্ষের জন্য অপেক্ষা না করে ব্যক্তিগত উদ্যোগে বর্জ্য অপসারণ করে নিতে হবে।
  • এলাকায় একটি নির্দিষ্ট স্থান বেছে নিতে পারেন। যেখানে এলাকার সবাই মিলে কোরবানির কাজটি সেরে নিতে পারবেন। নির্ধারিত স্থানে কোরবানি করলে সম্মিলিতভাবে বর্জ্য অপসারণ সহজ হয়।
  • যদি এলাকার নির্দিষ্ট স্থানে কোরবানি করা সম্ভব না হয় তবে ভবনের কয়েকজন মিলে একটি স্থানে কোরবানি দিন। এতে বর্জ্য ছড়াবে না। অপসারণে সুবিধে হবে।
  • জবাইকৃত পশুর গোবর ও উচ্ছিষ্ট খোলা ভাবে ফেলে রাখবেন না। সেগুলো নির্দিষ্ট ব্যাগে ভরে নির্ধারিত স্থানে ফেলে দিন। নিকটস্থ ডাস্টবিন বা কন্টেইনারে ফেলে দিতে পারেন। সেখান থেকেই দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্তৃপক্ষ সহজেই বর্জ্য সরিয়ে নিয়ে যাবে। এছাড়াও বর্জ্যগুলো নির্দিষ্ট গর্তে ফেলে মুখ বন্ধ করে দিতে পারেন।
  • পশু কোরবানির পর রক্ত ধুয়ে ফেলুন। জীবাণুনাশক পানি দিয়ে রক্ত পরিস্কার করে নিতে পারেন। ওই স্থানে ব্লিচিং ছিটিয়ে দিতে পারেন। তবে অবশ্যই ব্লিচিং কিছুক্ষণ পর পানি দিয়ে ভালোভাবে ধুয়ে দিতে হবে। তা না হলে রাস্তায় থাকা প্রাণীরা সেখানে মুখ দিতে পারে। এছাড়াও কোরবানির স্থানে পানি জমে থাকলে মশার উপদ্রবও বাড়বে।
Link copied!