• ঢাকা
  • বুধবার, ২৮ ফেব্রুয়ারি, ২০২৪, ১৫ ফাল্গুন ১৪৩০, ১৮ শা’বান ১৪৪৫

শাশুড়ি-বউয়ের সম্পর্ক ভালো রাখার উপায়


সংবাদ প্রকাশ ডেস্ক
প্রকাশিত: আগস্ট ১৩, ২০২৩, ১০:৪৯ এএম
শাশুড়ি-বউয়ের সম্পর্ক ভালো রাখার উপায়

শাশুড়ি ও বৌমা একটি অদ্ভুত সম্পর্ক। এই সম্পর্ক যেন কখনোই সম্পূর্ণভাবে আন্তরিক হয় না। শাশুড়ি নিজের বিবাহিত জীবনের শুরুর কথাও ভুলে যান আবার মনে থাকলে তারই পুনরাবৃত্তি ঘটিয়ে ফেলেন। অন্যদিকে বউ হয়ে অন্য ঘরের মেয়েটি এসেও নিজেকে খাপ খাওয়াতে গিয়ে সব ওলোটপালোট হয়ে যায়। না চাইতেও একটি অদ্ভুত দূরত্ব থেকেই যায় এই দুইয়ের মধ্যে। সেই সম্পর্ককে কিভাবে ঠিক রাখা কিছু উপায় জেনে নিই চলুন-

অতিরিক্ত আশা করা
আপনার শাশুড়ি আপনার মায়ের মতো করেই আপনাকে আদর-যত্নে রাখবেন বা মেয়ে আপনাকে যেভাবে রাখেন বৌ আপনাকে সেভাবেই রাখবেন এটা আশা করা ভুল। যখনই বেশি আশা থাকে তখনই কষ্ট পাওয়ার সম্ভাবনা বেড়ে যায়। আর সম্পর্কে ফাটল ধরে।

ছাড় দিতে হবে
দুপক্ষই পরষ্পরকে ছাড় দিন। ছোটোখাটো বিষয় একেবারেই মনে রাখা যাবে না। যেখানে কথা বললে তর্কে জড়ানোর সম্ভাবনা রয়েছে সেখানে চুপ থাকুন।

কাজ ভাগ করে নিন 
একজন আরেকজনের কাজে হস্তক্ষেপ না করে কাজ ভাগ করে নিন। এতে শান্তি বজায় থাকবে সম্পর্কে।

অন্যায়ের প্রতিবাদ করুন
ছাড় দেওয়ার অর্থ এই নয় যে অত্যাচার মুখ বুঝে সহ্য করে যেতে হবে। নিজের অধিকারের জন্য একটু হলেও কথা বলতে হবে। তখন শাশুড়ি এবং বউ দুজনেই বুঝে যাবেন সম্পর্ক ঠিক রাখা দুজনের জন্য ভালো।

অতিরিক্ত করা 
আপনি যদি প্রথমেই অতিরিক্ত করেন শাশুড়ি বা শ্বশুরবাড়ির লোকজনের প্রতি তাহলে তাদের আশা আরও বেশি বেড়ে যাবে যা আপনি আর পূরণ করতে পারবেন না। তখনই কিন্তু সম্পর্ক খারাপ হবে। তাই আগে থেকেই অতিরিক্ত কিছু করতে যাবেন না।

নিজেদের সীমা ঠিক রাখুন
কে কার ব্যাপারে কতোটুকু বলতে পারবেন তার একটি বাউন্ডারি তৈরি করে ফেলুন নিজেরাই। এতে সম্পর্ক সুখের হবে।

শাশুড়িকে দাম্পত্যে আনা
শাশুড়িকে স্বামী-স্ত্রীর দাম্পত্য জীবনে না আনাই ভালো স্বামী-স্ত্রীর নিজস্ব কিছু ব্যাপার থাকে যেখানে শাশুড়ির না যাওয়াই ভালো। এতে সংসারে সুখ থাকবে দুদিক দিয়েই।

তৃতীয় কাউকে না আনা
বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই শাশুড়ি-বউয়ের মাঝে ঝগড়া শুরু হওয়ার মূল কারণ তৃতীয় ব্যক্তির উস্কানি। তাই নিজেদের মধ্যে তৃতীয় কাউকে কথা বলতে দেবেন না।

অতিরিক্ত অভিযোগ
অতিরিক্ত অভিযোগ মনকে বিষিয়ে তোলে অল্পতেই। তাই অতিরিক্ত অভিযোগ না করে মানিয়ে নেওয়ার চেষ্টা করুন দুপক্ষই।

Link copied!