• ঢাকা
  • মঙ্গলবার, ১৬ এপ্রিল, ২০২৪, ৩ বৈশাখ ১৪৩১, ৬ শাওয়াল ১৪৪৫

কোঁকড়ানো চুলের যত্ন কীভাবে নেবেন?


সংবাদ প্রকাশ ডেস্ক
প্রকাশিত: মার্চ ৩১, ২০২৪, ০১:১৩ পিএম
কোঁকড়ানো চুলের যত্ন কীভাবে নেবেন?
ছবি: সংগৃহীত

চুল সৌন্দর্যের অন্যতম অংশ। জন্মের পরই চুলের ধরণ ঠিক হয়ে যায়। কারো চুল হয় ঘন, কোঁকড়ানো, আবার কারো হয় সিল্কি বা সমান। যাদের চুল সমান হয় তাদের চুলের স্টাইল করতে খুব একটা কষ্ট করতে হয় না। কিন্তু যাদের কোঁকড়ানো চুল তাদের হেয়ারস্টাইল করতে বেশ কষ্টই পোহাতে হয়। ছোটবেলায় কোঁকড়ানো চুল দেখতে খারাপ লাগে না। কিন্তু বড় হলে তা দেখতে বেশ অগোছালো লাগে। তাই কোঁকড়ানো চুলের বাড়তি যত্ন নিতে হয়। এর জট ছাড়াতেও বেশ ঝক্কি পোহাতে হয়। অনেক সময়  জট লাগার ভয়ে খুলে রাখাও যায় না। আবার চুল আঁচড়াতে গেলে বেশি চুলও পড়ে। অনেকে রাসায়নিক ট্রিটমেন্টে চুল ‘স্ট্রেট’ বা সমান করে নেন। যার মেয়াদও খুব বেশি দিন থাকে না। তাই ঘরোয়া ভাবেই কোঁকড়ানো চুলের যত্ন নেওয়া ভালো। কয়েকটি বিষয় খেয়াল রাখলেই কোঁকড়ানো চুল সুন্দর হতে পারে।

  • কোঁকড়ানো চুলের যত্নে প্রথমেই খেয়াল রাখতে হবে যেন আর্দ্রতা বজায় থাকে। এই ধরণের চুলে  রুক্ষতা বেশি থাকে। তাই অতিরিক্ত ময়েশ্চারাইজ়ার দেওয়া শ্যাম্পু ব্যবহার করতে হবে। নিয়মিত কন্ডিশনার ব্যবহার করতে হবে। অনেক সময় শ্যাম্পু, কন্ডিশনার ব্যবহার করার পরও চুলের রুক্ষতা কমে না। তখন অবশ্যই লিভ-ইন কন্ডিশনার মাখতে হবে। এতে চুলের রুক্ষতা কমবে।
  • চুলে প্রতিদিন শ্যাম্পু করা যাবে না। চুল বা মাথার ত্বকে প্রাকৃতিক তেল থাকে। ঘন ঘন শ্যাম্পু করলে তা নষ্ট হয়ে যায়। চুলও অতিরিক্ত শুষ্ক এবং ভেঙে যেতে পারে। চুলের ধরন এবং প্রয়োজন অনুযায়ী সপ্তাহে অন্তত ৩ দিন শ্যাম্পু করা যেতে পারে।
  • চুল কোঁকড়া হলেও নিয়মিত ছেটে নিতে হবে। চুলে আর্দ্রতার অভাব হলে কোঁকড়ানো চুলে ডগা ফেটে যেতে পারে। নির্দিষ্ট সময় পরপর চুল ছেঁটে নিতে হবে। এতে চুল দ্রুত বড়ও হবে।
  • কোঁকড়ানো চুলে সবচেয়ে বেশি জট লাগে। তাই ঘুমানোর আগেও বিশেষ যত্ন নিতে হয়। চুল খুলে কখনোই ঘুমানো যাবে না। এতে চুলে জট আরও বেশি হবে। তাই ঘুমাতে যাওয়ার আগে চুল ভালো করে বেঁধে নিন। চুলে বেণী করে নিতে পারেন। সিল্ক বা স্যাটিনের বালিশের খোলও ব্যবহার করুন। এতে ঘষাঘষিতে চুল ঝরে বা ছিঁড়ে পড়বে না।
  • কোঁকড়ানো চুলকে জট-মুক্ত রাখতে নিয়মিত সিরাম ব্যবহার করুন। ভালো ব্র্যান্ডের সিরাম ব্যবহার করুন। তাছাড়া চুলে হেয়ারপ্যাক লাগান। এতে চুল কোমল হবে।
Link copied!