• ঢাকা
  • রবিবার, ১৯ মে, ২০২৪, ৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১,

উহান বাজারে নারী কর্মীর দেহ থেকে ছড়ায় করোনা


সংবাদ প্রকাশ ডেস্ক
প্রকাশিত: নভেম্বর ২০, ২০২১, ১২:৪৫ পিএম
উহান বাজারে নারী কর্মীর দেহ থেকে ছড়ায় করোনা

বিশ্বব্যাপী তাণ্ডব চালাচ্ছে করোনা ভাইরাস। প্রায় দুই বছর পেরুলেও ভয়ঙ্কর এই ভাইরাসের রহস্যের কথা এখনও অনেকটাই অজানা।বিশেষজ্ঞরাও নানা  গবেষণা চালাচ্ছেন। করোনার উৎস শনাক্ত, কীভাবে ছড়িয়ে পড়লো এই ভাইরাস- এসব নিয়ে নিত্যনতুন তথ্য দিচ্ছেন গবেষকরা। সম্প্রতি করোনাভাইরাস ছড়ানো নিয়ে নতুন তথ্য দিয়েছেন এক বিজ্ঞানী। তার গবেষণার তথ্য মতে, চীনের উহানের পশু কেনাবেচার একটি বাজার থেকেই করোনাভাইরাস ছড়িয়েছে।

অ্যারিজোনা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইরাস গবেষক মাইকেল ওরোবি এই দাবি করেন। ১৮ নভেম্বর বৃহস্পতিবার সায়েন্স সাময়িকীতে লেখা এক নিবন্ধে ওরোবি বলেন, "বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা করোনাভাইরাস শনাক্তের যে সময়ের কথা বলেছিল, তারও কয়েক দিন পর উহানে করোনা শনাক্ত হয়।"

এএফপির প্রতিবেদনে জানায়, সুনির্দিষ্ট কোনো প্রমাণ না থাকায় করোনা ভাইরাসের উৎপত্তি নিয়ে বিশেষজ্ঞদের মতবিরোধ রয়েছে। ভাইরাস  ছড়িয়ে পড়ার ঘটনার বর্ণনা দিয়ে এর আগে একদল গবেষক জানান, উহানের ল্যাব থেকে এই ভাইরাস ছড়িয়ে পড়েছে। তবে বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার  গবেষকদের মতে, করোনা ভাইরাস দশকের পর দশক ধরে অশনাক্তকৃত অবস্থায় ছিল এবং এটি বাদুড়ের মাধ্যমে ছড়াতে পারে।

ভাইরাস ছড়ানো নিয়ে এরপরও গবেষণা চলছেই। চলতি বছর মে মাসে মাইকেল ওরোবিসহ ১৫ জন বিশেষজ্ঞ সায়েন্স সাময়িকীতে একটি কলাম লিখেন। সায়েন্স সাময়িকীতে প্রকাশিত সর্বশেষ প্রতিবেদনে তিনি দাবি করেন, "করোনাভাইরাসের উৎপত্তি নিয়ে গবেষণায় নির্ভরযোগ্য প্রমাণ পেয়েছেন। উহানের পশুর বাজার থেকেই করোনা মহামারির প্রাদুর্ভাব শুরু হয়েছে। এর শক্ত প্রমাণও রয়েছে।"

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার দেওয়া তথ্য নাকচ করে মাইকেল ওরোবি দাবি করে বলেন, "উহানে প্রথম এক নারীর শরীরে করোনাভাইরাসে সংক্রমিত হয়।তিনি ওই বাজারেই কাজ করতেন। তার শরীর থেকেই ভাইরাস ছড়িয়ে পড়ে।"

কোভিড-১৯-এর উৎপত্তির বিষয়ে ওরোবির বলেন, "ভাইরাসটি পশুর দেহ থেকে ছড়িয়ে পড়ার ইঙ্গিত মিলেছে।"

নিজের তথ্য প্রমাণ করতে গিয়ে ওরোবির বলেন, "বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার তথ্য অনুযায়ী, উহানে করোনায় আক্রান্ত প্রথম ব্যক্তি ২০১৯ সালের ৮ ডিসেম্বর থেকে অসুস্থ ছিলেন। তবে ওই ব্যক্তি ১৬ ডিসেম্বরের আগে অসুস্থ হননি বলে প্রমাণ পাওয়া গেছে ভিডিও সাক্ষাৎকারে। অন্যদিকে একটি বৈজ্ঞানিক নিবন্ধ ও হাসপাতালের তথ্যের ভিত্তিতে সেখানে আক্রান্ত এক ব্যক্তির যে বর্ণনা দেওয়া হয়, এর সঙ্গে ৪১ বছর বয়সী একজনের তথ্য মিলে গেছে।"

প্রতিবেদনে বিভিন্ন তথ্য-উপাত্ত উপস্থাপন করেন এই বিজ্ঞানী। সবশেষ ওরোবি দাবি করেন, "করোনাভাইরাসে প্রথম আক্রান্ত ব্যক্তি একজন নারী। তিনি ওই বাজারে কাজ করতেন। ২০১৯ সালের ১১ ডিসেম্বরে তিনি অসুস্থ হন।"

Link copied!