• ঢাকা
  • রবিবার, ১৬ জুন, ২০২৪, ২ আষাঢ় ১৪৩১, ৯ জ্বিলহজ্জ ১৪৪৫

আফগান মায়ের শিশুটি কোন দেশের নাগরিক হবে?


সংবাদ প্রকাশ ডেস্ক
প্রকাশিত: আগস্ট ২২, ২০২১, ০৮:৫২ পিএম
আফগান মায়ের শিশুটি কোন দেশের নাগরিক হবে?

রোববার (২২ আগস্ট) আফগানিস্তান থেকে পালানোর সময় মার্কিন সামরিক বিমানের যাত্রাপথে সন্তান প্রসব করেন এক মা। 

যুক্তরাষ্ট্রের এয়ার মবিলিটি কমান্ডের তথ্য বলছে, বিমানটি জার্মানির রামস্টিন বিমানবন্দরে অবতরণের পরই মার্কিন সামরিক চিকিৎসকরা ওই নারীকে সন্তান প্রসবে সহায়তা করেন।

বিবিসি জানায়, ভূমিষ্ঠ হওয়ার পর নবজাত কন্যাশিশু ও মা দুজনকে স্থানীয় হাসপাতালে নেওয়া হয়। বর্তমানে তারা দুজনই সুস্থ রয়েছেন।

তবে আকাশপথে জন্ম নেওয়া শিশুটির জাতীয়তা কী হবে, তা নিয়ে সামাজিক মাধ্যমে অনেকেই প্রশ্ন তুলেছেন। যুক্তরাষ্ট্রে সামরিক বিমানে জন্মগ্রহণ করায় শিশুটির মার্কিন নাগরিকত্ব পাওয়া উচিত বলে মনে করছেন অনেকেই।

তবে বিমানটি জার্মানিতে অবতরণের পর শিশুটি ভূমিষ্ঠ হওয়ায় তাকে জার্মান নাগরিক বলেও দাবি করছেন অনেকে।

এ বিষয়ে অ্যাভিয়েশন বিশেষজ্ঞ সামনার হাল বিবিসিকে জানান, বিমানের ফ্লাইটে জন্ম নেওয়া শিশুদের নাগরিকত্বের নির্ধারণ প্রক্রিয়াটি কিছুটা জটিল।

সাধারণত কোনো শিশুর নাগরিকত্ব নির্ধারণ করা হয় তার মা ও বাবার নাগরিকত্ব অনুযায়ী। তবে কোনো কোনো দেশ তাদের সীমানায় মধ্যে জন্ম নেওয়া শিশুদেরও নাগরিকত্ব দিয়ে থাকে। 

যুক্তরাষ্ট্রসহ বেশ কয়েকটি পশ্চিমা দেশে এই পদ্ধতিতে নাগরিকত্ব নির্ণয় করা হয়। যুক্তরাষ্ট্রের সীমানার ১২ নটিক্যাল মাইলের মধ্যে কোনো শিশুর জন্ম হলেও তাকে মার্কিন নাগরিকত্ব দেওয়ার বিধান রয়েছে। 

তবে বাবা-মায়ের কেউ মার্কিন নাগরিক না হলে যুক্তরাষ্ট্রের পররাষ্ট্রনীতি অনুযায়ী দেশটির ভৌগোলিক সীমানার বাইরে কোনো দূতাবাস, বিমান কিংবা সামরিক ঘাঁটিতে জন্ম নেওয়া শিশুরা নাগরিকত্বের জন্য আবেদন করতে পারবে না।

এছাড়া জার্মানিতে নাগরিকত্ব পেতে হলেও বাবা-মায়ের অন্তত একজনের জার্মান নাগরিকত্ব থাকতে হবে। আর তাই বিমানে জন্ম নেওয়া শিশুটি প্রাথমিকভাবে যুক্তরাষ্ট্র বা জার্মান নাগরিক হিসেবে বিবেচিত হবে না।

Link copied!