• ঢাকা
  • বৃহস্পতিবার, ১৩ জুন, ২০২৪, ৩০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ৬ জ্বিলহজ্জ ১৪৪৫

টেনিসের রথী-মহারথী


সংবাদ প্রকাশ ডেস্ক
প্রকাশিত: জুলাই ১৫, ২০২১, ০৫:২৬ পিএম
টেনিসের রথী-মহারথী

নোভাক জোকোভিচ, রজার ফেদেরার ও রাফায়েল নাদাল টেনিস অঙ্গনে নিজেদের প্রতিষ্ঠিত করেছেন কিংবদন্তি হিসেবে। আশ্চর্যের বিষয় হচ্ছে তিন জনের অর্জনের খাতায় রয়েছে সমান ২০টি করে উইম্বলডন। এই তিন মহারথীর মধ্যে কে সর্বকালের সেরা তা নিয়ে তর্কের শেষ নেই। বয়সের সঙ্গে সঙ্গে একজন ছাড়িয়ে যাচ্ছেন অন্যজন কে।

চলুন দেখে নেওয়া যাক এই তিনজনের অর্জন, শক্তির জায়গা। প্রথমেই জেনে নেওয়া যাক নোভাক জোকোভিচ সম্পর্কে। 

নোভাক জোকোভিচ

১৯৮৭ সালের ২২মে জন্ম নেওয়া জোকোভিচ একজন সার্বিয় টেনিস তারকা। তিনি বর্তমানে বিশ্বের এক নাম্বার টেনিস খেলোয়াড়। জোকোভিচ ২০০৩ সালে পেশাদারী ক্রীড়াজীবন শুরু করেন। ২০০৮ সালে ২০ বছর বয়সে তিনি অস্ট্রেলিয়ান ওপেন শিরোপা বিজয় করে তার প্রথম গ্র্যান্ড স্ল্যাম পর্যায়ের শিরোপা জয় করেন। ২০১১ সালে প্রথমবার বিশ্বের ১নং খেলোয়াড় হবার মর্যাদা অর্জন তিনি।  
জাতীয় পর্যায়ে জোকোভিচ সার্বিয়ার জাতীয় দলকে নেতৃত্ব দিয়ে ২০১০ সালে ডেভিস কাপ শিরোপা জেতেন এবং ২০২০ সালে অনুষ্ঠিত উদ্বোধনী এটিপি কাপ জেতেন। ২০০৮ সালের বেইজিং অলিম্পিক প্রতিযোগিতায় তিনি সার্বিয়ার জন্য একটি ব্রোঞ্জ পদক জয় করেন। রেকর্ডে ভরপুর এ তারকার। তিনি (২০২১ সালের ১১জুলাই পর্যন্ত) সর্বমোট সর্বোচ্চ ৩২৯ সপ্তাহ বিশ্বের এক নাম্বার খেলোয়াড় হিসেবে নির্বাচিত হয়েছেন। এক নাম্বার খেলোয়াড় হিসেবে তিনি সর্বোচ্চ ছয়বার ক্রীড়াবর্ষ শেষ করেছেন।

জোকোভিচ সব মিলিয়ে ৮৫টি একক শিরোপা জিতেছেন, যার মধ্যে ৩৬টি মাস্টার্স পর্যায়ের শিরোপা। জোকোভিচ একমাত্র খেলোয়াড় যিনি পুরুষদের আধুনিক। পেশাদার টেনিসের সব ‘বড় শিরোপা’ অন্তত একবার জয় করেছেন। ‘বড় শিরোপা’ বলতে ৪টি গ্র্যান্ড স্ল্যাম পর্যায়ের শিরোপা, নয়টি মাস্টার্স পর্যায়ের শিরোপা এবং বছর শেষের এটিপি সমাপনী শিরোপাটিকে বোঝায়। তিনি ইতিহাসের সর্বোচ্চসংখ্যক নয়বার অস্ট্রেলিয়ান ওপেন নামক গ্র‍্যান্ড স্ল্যাম পর্যায়ের শিরোপাটি জয় করেছেন। এছাড়া তিনি একমাত্র খেলোয়াড় হিসেবে নয়টি মাস্টার্স পর্যায়ের শিরোপার প্রতিটি দুইবার করে জিতেছেন। তদুপরি জোকোভিচ ২০২১ সালে জুলাই মাস পর্যন্ত ২০টি গ্র্যান্ড স্ল্যাম পর্যায়ের শিরোপা (সবচেয়ে মর্যাদাবাহী ৪টি টেনিস প্রতিযোগিতা) জয় করেছেন, যা টেনিসের ইতিহাসের সর্বোচ্চসংখ্যক এরূপ শিরোপা বিজয়ের ঘটনা । 

রজার ফেদেরার
 
৮ আগস্ট ১৯৮১ সালে জন্ম নেওয়া রজার ফেদেরার সুইজারল্যান্ডের খেলোয়াড়। বর্তমান এটিপি র‌্যাংকিং অনুযায়ী তিনি বিশ্বের ২নম্বর খেলোয়াড়। পিট সাম্প্রাসসহ অনেক টেনিস কিংবদন্তি, টেনিস সমালোচক, তার সমসাময়িক খেলোয়াড়সহ অনেকেই মনে করেন তিনি সর্বকালের সেরা টেনিস খেলোয়াড় । তিনি ২০০৪ এর ২ ফেব্রুয়ারি থেকে ২০০৮ সালের শেষভাগ পর্যন্ত টানা ২৩৭ সপ্তাহ বিশ্বের ১ নম্বর খেলোয়াড় ছিলেন, যা একটি রেকর্ড।

২০০৪ সালে ফেদেরার ম্যাট্‌স উইলান্ডারের পর প্রথম খেলোয়াড় হিসেবে একই বছরে তিনটি গ্র্যান্ড স্ল্যাম শিরোপা জয়ের কৃতিত্ব দেখান। ২০০৬ ও ২০০৭ সালে তিনি এই সাফল্যের পুনরাবৃত্তি করেন। তিনি এ পর্যন্ত ২০ টি গ্র্যান্ড স্ল্যাম, ৪টি টেনিস মাস্টার্স কাপ ও ১৫টি টেনিস মাস্টার্স সিরিজ শিরোপা জিতেছেন। তিনিই একমাত্র খেলোয়াড় যিনি পরপর পাঁচ বছর উইম্বলডন (২০০৩-২০০৭) ও ইউএস ওপেন (২০০৪-২০০৮) শিরোপা জিতেছেন। ফেদেরার ষষ্ঠ পুরুষ টেনিস খেলোয়াড় হিসেবে চারটি গ্র্যান্ড স্ল্যামই জয়ের কৃতিত্ব দেখান।

২০০৯ সালের উইম্বলডন ছিল তার ক্যারিয়ারের ১৫তম গ্র্যান্ড স্ল্যাম জয়। এর মাধ্যমে ওপেন যুগে পুরুষ এককে সাবেক নাম্বার ওয়ান পিট সাম্প্রাসের ১৪টি গ্র্যান্ডস্ল্যাম জয়ের রেকর্ড তিনি ভেঙ্গে ফেলেন। বছরের পর বছর একের পর এক অবিস্মরণীয় অর্জনের কারণে তাকে ‘ফেড এক্সপ্রেস’ বা ‘সুইস জাদুকর’ হিসেবেও ডাকা হয়।

রাফায়েল নাদাল

১৯৮৬ সালের ৩ জুন স্পেনে জন্ম নেন রাফায়েল নাদাল। “লাল কোর্টের রাজা” বা  “কিং অফ ক্লে” বলে পরিচিত নাদালকে সর্বকালের সেরা ক্লে-কোর্ট খেলোয়াড় বলে অভিহিত করা। অনেকের মতে উনিই সর্বকালের সেরা কারণ নাদাল যৌথভাবে টেনিসের সর্বোচ্চ গ্র্যান্ডস্ল্যাম এর মালিক। নাদাল ২০ টি গ্র্যান্ড স্ল্যাম শিরোপা (১৩ টি ফ্রেঞ্চ ওপেন শিরোপা, ২টি উইম্বলডন চ্যাম্পিয়নশিপ, ৪টি ইউএস ওপেন ও একটি অস্ট্রেলিয়ান ওপেন) জিতেছেন। এছাড়াও তিনি ২০০৮ অলিম্পিকে স্বর্ণ পদক (একক), ২০১৬ অলিম্পিকে স্বর্ণ পদক (দ্বৈত),৩৫ টি টেনিস মাস্টার্স সিরিজ (এটিপি ১০০০) শিরোপা, ২১ টি এটিপি-৫০০ মাস্টার্স জিতেছেন। স্পেনের হয়ে তিনি পাচটি ডেভিস কাপ শিরোপা (২০০৪, ২০০৮, ২০০৯, ২০১১,২০২০) জয়লাভ করেন। নাদাল এবং ম্যাটস উইল্যান্ডার দুজন মাত্র ব্যক্তি যারা তিনটি ভিন্ন ভিন্ন ধরনের কোর্টে (হার্ড, ক্লে এবং ঘাস) অন্তত ২ টি করে গ্র্যান্ড স্লাম শিরোপা জিতেছেন।

নাদাল বিশ্বের একমাত্র পুরুষ টেনিস খেলোয়াড় যিনি কিনা টানা ১০ বছর (২০০৫-২০১৪) কমপক্ষে একটি করে গ্র্যান্ড স্লাম এবং একটি মাস্টার্স ১০০০ সিরিজ জিতেছেন। ২০১২ সালে প্রথম ও একমাত্র খেলোয়াড় হিসেবে টানা ৮ টি মন্তে-কার্লো মাস্টার্স জিতেন। ২০১৭ সালের মন্তে-কার্লো মাস্টার্স জিতে তিনি গুইলারমো ভিলাসের ৪৯ টি ক্লে-কোর্ট শিরোপা জেতার রেকর্ড ভেঙ্গে দেন।

২০১৭ সালে তিনি ১০ম বারের মতো মন্তে-কার্লো মাস্টার্স ও বার্সেলোনা ওপেন জিতেন। ৭টি ফ্রেঞ্চ ওপেন শিরোপা জিতে তিনি ২০১২ সালে বিয়র্ন বোর্গের রেকর্ড ভেঙে দেন। ২০১৭ সালেন ফ্রেঞ্চ-ওপেন জিতে নাদাল একমাত্র পুরুষ খেলোয়াড় হিসেবে কোন গ্র্যান্ড-স্লাম ১০ম বারের মতো জেতার বিরল খ্যাতি অর্জন করেন। ২০১০ সালের ইউ এস ওপেনের শিরোপা জিতে তিনি ইতিহাসের সপ্তম খেলোয়াড় হিসেবে এবং ওপেন যুগের সর্বকনিষ্ঠ খেলোয়াড় (২৪ বছর) হিসেবে ক্যারিয়ার গ্র্যান্ড স্ল্যাম (চারটি গ্র্যান্ড স্ল্যামের শিরোপা) অর্জন করেছেন।

তিনি ইতিহাসের দ্বিতীয় খেলোয়াড় হিসেবে (আন্দ্রে আগাসির পর) “ক্যারিয়ার গোল্ডেন স্ল্যাম” (চারটি গ্র্যান্ড স্ল্যাম এবং অলিম্পিক স্বর্ণ পদক) জিততে সক্ষম হয়েছেন । নাদাল হলেন ওপেন যুগের একমাত্র টেনিস খেলোয়াড় যিনি একই বছরে ফ্রেঞ্চ ওপেন, কুইন্স চ্যাম্পিয়নশিপ ও উইম্বলডন চ্যাম্পিয়নশিপ জিততে সক্ষম হয়েছেন। ১৮ আগস্ট, ২০০৮ সালে নাদাল প্রথমবারের মতো পুরুষ এককের র‌্যাঙ্কিং-এ শীর্ষে উঠেন। তিনি  আগস্ট ১৮, ২০০৮ থেকে ৫ জুলাই, ২০০৯ পর্যন্ত বিশ্ব র‌্যাঙ্কিং-এ ১ নম্বরে ছিলেন।

 

Link copied!