• ঢাকা
  • রবিবার, ১৬ জুন, ২০২৪, ২ আষাঢ় ১৪৩১, ৯ জ্বিলহজ্জ ১৪৪৫

ঘর সাজিয়ে তুলুন বাহারি ডিজাইনের কুশন দিয়ে


সংবাদ প্রকাশ ডেস্ক
প্রকাশিত: আগস্ট ১৬, ২০২৩, ০২:২৫ পিএম
ঘর সাজিয়ে তুলুন বাহারি ডিজাইনের কুশন দিয়ে

সবারই নিজের মনের মতো করে ঘর সাজানোর ইচ্ছা থাকে। অনেক সময় খরচের কারণে চাইলেও সে ইচ্ছা পূরণ করা যায় না। তবে ঘর সাজানোর জন্য যে সব সময় দামি জিনিস লাগে তা কিন্তু নয়। একটু ভাবনাচিন্তা করে রঙিন কুশন দিয়েও ঘরের চেহারা একদম বদলে ফেলা যায়। সোফা থেকে শুরু করে বিছানা, সব জায়গায় বাহারি কুশন ব্যবহার করা হয়। তবে শোওয়ার ঘরে যে কুশন থাকবে, সেই একই ধরনের কুশন কিন্তু বসার ঘরে রাখলে ভালো দেখাবে না। এ কারণে কুশন বাছাইয়ের ক্ষেত্রেও কিছু বিষয় খেয়াল রাখা জরুরি। চলুন জেনে নিই-

সাইজ
ত্রিকোণ, গোল, চৌকা আকারের কুশন সব সময়ই পাওয়া যায় দোকানে। তবে আজকাল এর সঙ্গে তরমুজ, স্ট্রবেরি বা স্মাইলির মতো দেখতে কিংবা ইনস্টাগ্রাম, ইউটিউবের লোগো বসানো নানা ধরনের কুশনও পাওয়া যায়। ঘরের সাজে এমন মজার কিছু কুশন কিনতে পারেন। তবে কুশন কেনার আগে দেখে নিন, ঘরের সাজ, রঙের সঙ্গে মানাচ্ছে কি না।

রং
ভেবেচিন্তে কুশনের রং বাছাই করতে হবে। দেখে ভালো লাগলেও সেটা আপনার ঘরেও দারুণ লাগবে, এমনটা না-ও হতে পারে। যে ঘরের জন্য কুশন কিনবেন, সেই ঘরের দেওয়ালের রং, পর্দা, সোফার রঙের সঙ্গে মানায়, এমন ধরণের দেখে কিনুন। একটু ভিন্নতা আনতে সব একই রঙের কুশন না নিয়ে রং-বেরঙের কুশন অথবা একেকটি একেক ডিজাইনের কিনতে পারেন।

ফোম কুশন
এই ধরনের কুশনের ভেতরে বেশি ঘনত্বের ফোম ব্যবহার করা হয়। এমনকি সেই ফোমের বাইরে দিয়েও আর একটা নরম ফোমের আবরণ থাকে। ফলে এই ধরনের কুশনে বসলেও ভাঁজ পড়ে না।

স্প্রিং ডাউন কুশন
এই কুশনের একদম ভিতরের স্তরে স্প্রিংয়ের কয়েল থাকে। তাকে ঘিরে থাকে ফোমের বাক্স। আর সবচেয়ে বাইরে পলিয়েস্টার ফাইবারের স্তর। ফলে এসবকুশন দীর্ঘদিন ব্যবহারের ফলে বসে যেতে পারে। তাই এর বিভিন্ন দিক ঘুরিয়ে ফিরিয়ে ব্যবহার করাই ভালো।

ডাউন পুশ 
সবচেয়ে আরামদায়ক কুশন এটি। তবে তা ব্যয়সাপেক্ষও। মোটা পলিয়েস্টার ফাইবার দিয়ে হালকা ফোম র‌্যাপ করে এই কুশন তৈরি।

কভারের নকশা
দুইরকমের হতে পারে কুশন কভারের নকশা। প্রিন্টেড বা এমব্রয়ডারি করা। আজকাল ডিজিটাল প্রিন্টের কুশন কভারও বাজারে এভিইলেভল। কাশ্মীরি, গুজরাতি ইত্যাদি স্টিচের ওপরে ফুলের নকশার কুশন কভার বেশ ভালো লাগে।

কাপড়ের ফ্যাব্রিক
নরম তুলতুলে ফারের কুশন আপনার ঘরের সাজসজ্জায় চমক আনতে পারে। তবে এই ধরনের কুশন তাড়াতাড়ি নষ্ট হয়ে যায়। এ ছাড়া খাদি, খেস, মটকা, তসর, রেশম ইত্যাদি বিভিন্ন ফ্যাব্রিকের কুশন কভারও পাওয়া যায়। কুশনে পমপম বা টাস্‌ল থাকলেও দেখতে বেশ লাগে।

ফেব্রিকের কুশন
খাদি, মটকা, তসর, রেশম নানা ধরনের ফেব্রিকের কুশন কভার পাওয়া যায়। এ ছাড়া প্রিন্টেড কিংবা এমব্রয়ডারি করা কভারও পাওয়া যায় বাজারে। নানা কাজের ফুলেল নকশাও দেখতে বেশ ভালো লাগে। সারা বছর ঘরের সাজে উৎসবের ছোঁয়া বজায় রাখতে এমন রঙিন কুশন কিনতে পারেন। আবার চাইলে উৎসবের সময়ও এগুলো ব্যবহার করতে পারেন।

Link copied!