• ঢাকা
  • শুক্রবার, ১৯ জুলাই, ২০২৪, ৪ শ্রাবণ ১৪৩১, ১৩ মুহররম ১৪৪৫

ব্রয়লার মুরগি খেলে শরীরে যা যা ক্ষতি হয়


ঝুমকি বসু
প্রকাশিত: আগস্ট ২০, ২০২২, ০২:২৭ পিএম
ব্রয়লার মুরগি খেলে শরীরে যা যা ক্ষতি হয়

ব্রয়লার মুরগি হলো এমন একধরনের মুরগি, যার মাংস খুব সুস্বাদু ও নরম। এদের ওজন ৩০ থেকে ৩৫ দিনের মধ্যেই প্রায় দেড় কেজি থেকে দু কেজি হয়। মাংস খাওয়ার জন্যই এই ধরনের মুরগি বড় করা হয়। এরা ডিম পাড়ে না। ১০ থেকে ১২ সপ্তাহের মধ্যেই এরা বেড়ে ওঠে এবং বিক্রি করে দেওয়া হয় পোলট্রি-বাজারে। এই জাতের মুরগি খেলে শরীরে নানা ধরনের ক্ষতি হয়। ইবনে সিনা ডায়াগনস্টিক অ্যান্ড কনসালটেশন সেন্টারের পুষ্টিবিদ উম্মে সালমা তামান্নার মুখেই শুনুন তবে এর ক্ষতিকারক দিকগুলো।

১. ব্রয়লার মুরগিকে প্রচুর পরিমাণে অ্যান্টিবায়োটিক খাওয়ানো হয়, যা মানুষের ব্রেনের জন্য খুবই ক্ষতিকারক। এর ফলে নিউরোলজিক্যাল সমস্যাও হতে পারে।

২. ব্রয়লার মুরগিতে অ্যান্টিবায়োটিকের প্রভাব থাকার ফলে মানুষের শরীরে অ্যান্টিবায়োটিক-রেজিসট্যান্ট ব্যাকটেরিয়ার প্রভাব কমে যায়।

৩. ব্রয়লার মুরগিকে অল্প সময়ে মোটাসোটা করার জন্য সিনথেটিক হরমোন দেওয়া হয়, যা মানুষের প্রজনন ক্ষমতার ব্যাঘাত ঘটায়।

৪. ব্রয়লার মুরগি রান্না করার সময়ে তাপমাত্রা খুবই বেশি রাখতে হয়, যা কারসিনোজেনিক নামে এক পদার্থ তৈরি করে। এই পদার্থ মানব শরীরে ক্যানসারের জন্ম দিতে পারে।

৫. ব্রয়লার মুরগিরা যাতে সুস্থ থাকে, তার জন্য তাদের শরীরে আর্সেনিক প্রয়োগ করা হয়। কিন্তু এই রাসায়নিক পদার্থ মানুষের শরীরের জন্য একেবারেই ঠিক নয়। এর ফলে ডায়াবেটিস, নিউরোলজিক্যাল সমস্যা ও ক্যানসার হতে পারে।

৬. ব্রয়লার মুরগির ফাইবার খুবই কম থাকে। তবে ক্যালোরি থাকে প্রচুর পরিমাণে। যে কারণে শরীরের ওজন বেড়ে যাওয়ার সম্ভাবনা থাকে।

৭. গবেষণার দেখা গেছে, ব্রয়লারের মুরগিতে ৬৭% ই–কোলাই ব্যাকটেরিয়া থাকে, যা থেকে ফুড পয়জনিং সমস্যা দেখা দেয়। বাচ্চা এমনকি যেকোনো বয়সের মানুষের এই সমস্যা হয়। সাধারণত বাইরে তেলেভাজা এসব ব্রয়লারের মুরগির বিভিন্ন ধরনের খাবার খাওয়া হয়ে থাকে। আর ফুড পয়জনিং হওয়ার এটাই মূল কারণ।

৮. যাদের কোলেস্টেরলের সমস্যা রয়েছে, তাদের ব্রয়লার মুরগি বেশি দিন খাওয়ার ফলে রক্তে কোলেস্টেরলের মাত্রা অতিরিক্ত বেড়ে গিয়ে ক্যানসারে আক্রান্ত হওয়ার আশঙ্কা দেখা দেয়। শুধু কোলেস্টেরল না, শরীরে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা, সর্দি-কাশি, পেটের বিভিন্ন সমস্যা, যেমন গ্যাস, অম্বল ইত্যাদি ইনফেকশনও সৃষ্টি হয়।

ওপরের প্রতিটি ধাপে দেখা যাচ্ছে, ব্রয়লার মুরগিতে শরীরে উপকারের চেয়ে অপকারিতাই বেশি। তাই এই মুরগি যতটা সম্ভব এড়িয়ে চলাই উত্তম।

Link copied!