• ঢাকা
  • শনিবার, ১৩ জুলাই, ২০২৪, ২৮ আষাঢ় ১৪৩১, ৬ মুহররম ১৪৪৫

আজ ডাচদের হারালেই সুপার এইটে এক পা রাখবে টাইগাররা


সংবাদ প্রকাশ ডেস্ক
প্রকাশিত: জুন ১৩, ২০২৪, ০৩:২৩ পিএম
আজ ডাচদের হারালেই সুপার এইটে এক পা রাখবে টাইগাররা
সেন্ট ভিনসেন্টে রাতের ম্যাচে মুখোমুখি হচ্ছে বাংলাদেশ ও নেদারল্যান্ডস। ছবি : সংগৃহীত

প্রথম ম্যাচে শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে জয়। দ্বিতীয় ম্যাচে দারুণ লড়াই করেও দক্ষিণ আফ্রিকার কাছে পরাজয়। ১০ জুন নিউইয়র্কে প্রোটিয়াদেরকে মাত্র ১১৩ রানে আটকে রেখেও জিততে পারেনি বাংলাদেশ।

এখন নেদারল্যান্ডস ও নেপালের বিপক্ষে পরের খেলা দুটি অনেক বেশি গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠেছে বাংলাদেশের জন্য। সোজা হিসেব, শেষ এই ২ ম্যাচে জিততেই হবে টাইগারদের। আজ বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ৮টায় সেন্ট ভিনসেন্টে নেদারল্যান্ডসের মুখোমুখি হবে বাংলাদেশ। এই ম্যাচ জিতলেই চলতি টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ ক্রিকেটের সুপার এইটে এক পা রাখবে টাইগাররা।

ওই দুই ম্যাচ জিতলে বিনা বাঁধায় সুপার এইটে যাবে শান্ত বাহিনী। পুরো দেশ তাকিয়ে এখন বাংলাদেশ দলের দিকে। ১৭ জুন নেপালের সঙ্গে লড়াই বাংলাদশের।

তবে শেষ ২ ম্যাচের মধ্যে নেদারল্যান্ডসের বিপক্ষে ম্যাচ নিয়েই সবার আগ্রহ। কারণ ডাচরা বাংলাদেশের অনেক পুরনো প্রতিদ্বন্দ্বী। সেই ১৯৯৭ সালের আইসিসি ট্রফিতে সবচেয়ে কঠিন বাঁধা হয়ে দাড়িয়েছিল ডাচরা। বৃষ্টি ভেজা সেই ম্যাচে আকরাম খানের ক্যারিয়ার সেরা (৯২ বলে ৬৮ নটআউট) ব্যাটিংয়ে শেষ পর্যন্ত বৃষ্টি আইনে ৩ উইকেটের জয় পেয়ে সেমিফাইনালে উঠেছিল বাংলাদেশ।

এর বাইরে ডাচদের বিপক্ষে টাইগারদের সাম্প্রতিক ট্র্যাক রেকর্ড কিন্তু খুব ভাল না। যদিও সেটা ভিন্ন ফরম্যাট, মানে ওয়ানডেতে। তারপরও ইতিহাস জানাচ্ছে, গত বছর অক্টোবরে কলকাতার ইডেন গার্ডেনে ওয়ানডে বিশ্বকাপে নেদারল্যান্ডসের সাথে পারেনি বাংলাদেশ। ৮৭ রানের বড় জয় পেয়েছিল ডাচরা।

অবশ্য টি-টোয়েন্টি পরিসংখ্যান বেশ সমৃদ্ধ টাইগারদের। ৫ বারের মোকাবিলায় লাল-সবুজদের জয় ৪টিতে। কমলারা জিতেছে একবার মাত্র। টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপেও বাংলাদেশের সাফল্যের পাল্লা ভারী। টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে কখনো নেদারল্যান্ডসের কাছে হারেনি বাংলাদেশ।

ডাচরা সেয়ানে, সেয়ানে লড়াই করলেও শেষ পর্যন্ত আর কুলিয়ে উঠতে পারেনি টাইগারদের সাথে। ২০১৬ সালে ভারতের ধর্মশালায় ৮ রানে আর ২০২২ সালে অস্ট্রেলিয়ার হোবার্টে ৯ রানে জিতেছিল বাংলাদেশ। দেখা যাক এবার কি হয়।

Link copied!