• ঢাকা
  • বৃহস্পতিবার, ২২ ফেব্রুয়ারি, ২০২৪, ৮ ফাল্গুন ১৪৩০, ১১ শা’বান ১৪৪৫

প্রমিজ ডে: ভেবে কথা দিন, দিয়ে পস্তাবেন না


সংবাদ প্রকাশ ডেস্ক
প্রকাশিত: ফেব্রুয়ারি ১১, ২০২৪, ০২:৫৮ পিএম
প্রমিজ ডে: ভেবে কথা দিন, দিয়ে পস্তাবেন না
ভালোবাসার মানুষের কাছে প্রতিজ্ঞাবদ্ধ হওয়ার দিন । ছবি: সংগৃহীত

কথা দেওয়া মানে প্রতিশ্রুতি দেওয়া। প্রেম হওয়ার পর অনেকেই হয়তো কথা দেন আজীবন কাটাবেন একসঙ্গে। সেই প্রতিশ্রুতি হয়তো রক্ষা হয়, হয়তো হয় না। কিন্তু তাই বলে কথা দেওয়া-নেওয়া কি থেমে থাকে?

প্রতিবছর ১১ ফেব্রুয়ারি পালন করা হয় প্রতিশ্রুতি দিবস বা প্রমিজ ডে হিসেবে। ১৪ ফেব্রুয়ারি ভালোবাসার দিনটির আগে এই দিবসের একটি ভিন্ন গুরুত্ব রয়েছে। ভালোবাসার মানুষের কাছে প্রতিশ্রুতি দেওয়ার দিন এটি। প্রেমের শুরুতেই পাশে থাকার সংকল্প ব্যক্ত করতেই পালিত হয় দিনটি।

ইতিহাস থেকে প্রমিজ ডে পালনের পেছনে জোরালো কোনো কারণ জানা যায়নি। প্রমিজ ডে কবে থেকে শুরু হয়, তা-ও কোনো প্রামাণ্য তথ্য পাওয়া যায়নি। তবুও দিনটি ঘটা করেই বিশ্বজুড়ে পালিত হয়। নতুন অনেক যুগল এই দিনটিকে বেশ উপভোগ করেন। বিভিন্ন সূত্র থেকে জানা যায়, এই দিনটি পালন শুরু হয় হাল আমলেই। ভালোবাসার বন্ধনকে আরও মজবুত করতেই এর উদযাপন হয়।

প্রমিজ ডে তে প্রিয়জনকে কথা দিচ্ছেন? কিন্তু কী কথা দিচ্ছেন ভালোবাসার মানুষকে? প্রতিশ্রুতি মুখে করার চেয়ে কাজে রক্ষা করা জরুরি। দিনটি উদযাপনে একগুচ্ছ প্রতিজ্ঞা করলেন কিন্তু পরক্ষণেই তা ভুলে গেলেন। তবে তো সম্পর্কে কোন্দল বাধবেই। তাই যতটা পূরণ করতে পারবেন ততটাই প্রতিজ্ঞা করুন। মিথ্যা আশ্বাস দিলে প্রিয়জনের মনও ভাঙতে পারে। কাজেই কাকে কী কথা দিচ্ছেন, সেটা আগে ভেবে নেওয়া উচিত। কথায় আছে, ভাবিয়া করিও কাজ, করিয়া ভাবিও না। কাজেই ভেবেচিন্তে প্রতিশ্রুতিতে আবদ্ধ হন। কার কাছে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ হচ্ছেন সেটাও আগে ভেবে নিন। যাতে পরে আফসোস করতে না হয়!

প্রতিশ্রুতি বছরের যেকোনো দিনই দেওয়া যায়। এর জন্য় আলাদা করে এই দিন পালন করার পেছনেও অনেকে আপত্তি থাকে। একটু অন্যভাবে ভেবে দেখুন। জীবনে কাজের ব্যস্ততায় অনেক কিছুই হারিয়ে যেতে পারে। সেই সুবাদে জীবন অন্য খাতে চলে যায়। কিন্তু কোনো কিছু নিয়ে বিশেষভাবে প্রতিজ্ঞাবদ্ধ হলে তা স্মরণ থাকে। আর প্রতিজ্ঞার বিষয়টি আলাদাভাবে মূল্যায়ন পায়। তাই ভালোবাসার সম্পর্ক টিঁকিয়ে রাখতে বা জোরালো করতে প্রয়োজন প্রতিজ্ঞার স্বতঃস্ফূর্ত বন্ধন।

ভালোবাসার প্রথম শর্ত যেকোনো মুহূর্তে পাশে থাকা। একে অন্যকে সাহস জোগানো, সম্মান দেখানো, বন্ধু হয়ে একে অন্যকে বোঝা, এমন অনেক ধরনের প্রতিশ্রুতি হতে পারে।

শুধু প্রিয়জনের কাছেই নয়, এই দিনটিতে নিজের সঙ্গেও কথা দেওয়া-নেওয়া হতে পারে। নিজেকে বদলে ফেলা কিংবা ভালো অভ্যাসগুলো আয়ত্ত করার প্রতিজ্ঞাও নেওয়া যেতে পারে এই দিনটিতে।

Link copied!