• ঢাকা
  • শনিবার, ১৫ জুন, ২০২৪, ১ আষাঢ় ১৪৩১, ৮ জ্বিলহজ্জ ১৪৪৫

খুলছে স্কুল, শিশুদের ডেঙ্গু সংক্রমণ থেকে সাবধান!


সংবাদ প্রকাশ ডেস্ক
প্রকাশিত: সেপ্টেম্বর ১১, ২০২১, ০৩:৪০ পিএম
খুলছে স্কুল, শিশুদের ডেঙ্গু সংক্রমণ থেকে সাবধান!

দেশজুড়ে করোনা সংক্রমণ কিছু কমলেও নাগালের বাইরেই রয়েছে ডেঙ্গুর সংক্রমণ। এখনো অধিকাংশ হাসপাতালে ভিড় জমাচ্ছেন ডেঙ্গু রোগীরা। বড়দের তুলনায় এই বছর ডেঙ্গুতে আক্রান্তের বেশির ভাগই শিশু। সব বয়সী শিশুরাই এখন ডেঙ্গু আতঙ্কের মধ্য দিয়ে যাচ্ছে।

সারা দেশে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে যাচ্ছে। প্রিয় সন্তানকে স্কুলে পাঠাবেন। শিশুরা শারীরিক বিষয়ে তেমন সচেতন বা সতর্ক হয় না। তাই শিশুরা ডেঙ্গু আক্রান্ত হলে পরিস্থিতি আরও ভয়াবহ হয়। এ বিষয়ে মা-বাবা বা অভিভাবকদেরই সচেতন হতে হবে। বাচ্চাকে স্কুলে পাঠানোর আগে কিছু সতর্কতা নিতে হবে।

ডেঙ্গু রোগ নিরাময়ে সচেতনতা বৃদ্ধির প্রতি জোড় দিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা। বাচ্চাদের ডেঙ্গু রোগ প্রতিরোধে কিছু করণীয় কথা উল্লেখ করে বিশেষজ্ঞরা পরামর্শ দিয়েছেন, যা জানাব এই আয়োজনে।

  • সবার আগে এডিস মশার উৎস ধ্বংস করতে হবে। জমে থাকা পরিষ্কার স্থির পানিতে এডিশ মশার জন্ম হয়। ফুলের টব, গাড়ির টায়ার বা ডাবের খোলে বৃষ্টির জমা পানি বা এমনি পানি জমে থাকলে তাতে মশা ডিম পাড়ে। তাই সবার আগে এগুলোকে ধ্বংস করতে হবে। বাড়ির বারান্দা পরিষ্কার রাখুন। স্কুলের পরিবেশ পরিষ্কার কি না, তা দেখে নিন। স্কুল কর্তৃপক্ষের সঙ্গে এ বিষয়ে কথা বলতে পারেন। প্রয়োজনে অভিভাবকরাই বাচ্চাদের স্বাস্থ্য সুরক্ষায় স্কুলের আশপাশের পরিবেশ পরিষ্কার নিশ্চিত করুন।
  • স্কুলে আসা অন্য বাচ্চারা সুস্থ আছে কিনা খোঁজ রাখুন। কোনো শিশুর জ্বর হলে স্কুলে পাঠানো বন্ধ করুন। এতে অন্যরা ঝুঁকিতে পরবে।
  • বাড়িতে শিশুরা ঘুমানো সময় দিনে ও রাতে মশারির ভেতরে রাখুন। নবজাতক শিশুকে সারাক্ষণই মশারির ভেতরে রাখতে হবে। হাসপাতালে ভর্তি শিশুকেও মশারির ভেতরে রাখুন। কারণ এটি একজনের শরীর থেকে অন্যজনের শরীরে ছড়িয়ে পড়ে।
  • শিশুরা স্কুলের বাইরে খেলাধুলা করবে। তাই তাদের শরীরে মসকুইটো রেপেলেন্ট অর্থাৎ মশা নিরোধীকরণ স্প্রে, ক্রিম বা জেল ব্যবহার করুন। সারা দিনে কয়েক ঘণ্টা পর পর এটি শিশুর শরীরের খোলা স্থানে মাখিয়ে দিন।
  • শিশুকে ঘরে কিংবা বাইরে সব সময় ফুল হাতা শার্ট বা টি শার্ট এবং ফুল প্যান্ট পরিয়ে রাখুন। প্রচণ্ড গরমের অনুভূতি হলেও শিশুকে খালি গায়ে রাখবেন না।
  • মশা প্রতিরোধ অ্যারোসল, মশার কয়েল ক্ষতিকর। এর পরিবর্তে মসকুইটো কিলার বাল্ব, ইলেকট্রিক কিলার ল্যাম্প, ইলেকট্রিক কয়েল, মসকুইটো কিলার ব্যাট, মসকুইটো রেপেলার মেশিন, মসকুইটো কিলার ট্র্যাপ ব্যবহার করতে পারেন। স্কুল কর্তৃপক্ষের সঙ্গে এই বিষয়টিও নিশ্চিত হয়ে নিন।
  • শিশুর জ্বর দুই দিন স্থায়ী হলেই চিকিৎসকের পরামর্শ নিন।
Link copied!