• ঢাকা
  • শুক্রবার, ০১ মার্চ, ২০২৪, ১৬ ফাল্গুন ১৪৩০, ১৯ শা’বান ১৪৪৫

সাম্রাজ্যবাদ ধ্বংসের অঙ্গীকার পুতিন-কিমের


সংবাদ প্রকাশ ডেস্ক
প্রকাশিত: আগস্ট ১৬, ২০২৩, ১২:০০ পিএম
সাম্রাজ্যবাদ ধ্বংসের অঙ্গীকার পুতিন-কিমের

সাম্রাজ্যবাদ ধ্বংসের অঙ্গীকারে উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং উন ও রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিনের মধ্যে চিঠি আদান-প্রদান হয়েছে। চিঠিতে তারা সাম্রাজ্যবাদী শক্তির বিরুদ্ধে একসঙ্গে লড়াই চালানো এবং সাম্রাজ্যবাদ ধ্বংসের প্রত্যয় ব্যক্ত করেন। 

আল-জাজিরার জানায়, চিঠিতে দুই নেতা তাদের মধ্যকার ‘দীর্ঘদিনের কৌশলগত সম্পর্ক’ জোরদার করা হবে বলেও অঙ্গীকার করেন।  

কোরিয়া ১৯১০-৪৫ পর্যন্ত জাপানের উপনিবেশ ছিল। জাপানের কাছ থেকে কোরিয়ার স্বাধীনতার ৭৮তম বর্ষপূর্তিতে পুতিন ও কিম একে অপরকে চিঠি লেখেন। স্বাধীনতা অর্জনের দিনটিতে দক্ষিণ কোরিয়ায় সাধারণ ছুটি থাকে।

মঙ্গলবার (১৫ আগস্ট) উত্তর কোরিয়ার রাষ্ট্রীয় সংবাদমাধ্যম কেসিএনএ জানায়, পুতিনকে লেখা চিঠিতে কিম জং–উন বলেন, দ্বিতীয় বিশ্বযুদ্ধের সময় জাপানি শক্তির বিরুদ্ধে লড়তে গিয়ে দুই দেশের মধ্যে ঐতিহাসিক বন্ধুত্ব গড়ে উঠেছিল। এখন দুই দেশ সাম্রাজ্যবাদী শক্তির আধিপত্যকে ধ্বংস করতে একসঙ্গে লড়ছে।

কিম জং–উন আরও বলেন, তিনি দৃঢ়ভাবে বিশ্বাস করেন কৌশলগত সম্পর্ক হিসেবে দুই দেশের সম্পর্ক আরও বিকশিত হবে।

কিম জং উন আশা প্রকাশ করে বলেন, “দুই দেশ সব সময় বিজয়ী হবে। সেই সঙ্গে নিজেদের অভিন্ন লক্ষ্য এবং উদ্দেশ্য অর্জনের পথে একে অপরকে শক্তিশালীভাবে সমর্থন ও সহযোগিতা করবে।”

পুতিন তার লেখা চিঠিতে দু দেশের মধ্যে শক্তিশালী বন্ধনের অঙ্গীকার করেন। ক্রেমলিন থেকে প্রকাশিত পুতিনের এক বার্তায় বলা হয়, “আমি নিশ্চিত আমাদের (উত্তর কোরিয়া ও রাশিয়া) সম্পর্ক শক্তিশালী হবে এবং সকল ক্ষেত্রে পারস্পরিক সহযোগিতা বৃদ্ধি পাবে।”

রাশিয়া ও উত্তর কোরিয়া ক্রমেই পশ্চিমা দেশগুলো থেকে বিচ্ছিন্ন হয়ে পড়ছে। যুদ্ধে সহায়তার জন্য পিয়ংইয়ং মস্কোকে অস্ত্র সরবরাহ করেছে বলে চলতি বছরের শুরুর দিকে অভিযোগ করে যুক্তরাষ্ট্র। তবে এই অভিযোগ অস্বীকার করে উত্তর কোরিয়া। 

Link copied!