• ঢাকা
  • শনিবার, ২২ জুন, ২০২৪, ৭ আষাঢ় ১৪৩১, ১৫ জ্বিলহজ্জ ১৪৪৫

পানি পান করবেন কীভাবে—দাঁড়িয়ে, না বসে?


সংবাদ প্রকাশ ডেস্ক
প্রকাশিত: নভেম্বর ২৬, ২০২১, ০৯:৩২ এএম
পানি পান করবেন কীভাবে—দাঁড়িয়ে, না বসে?

সুস্থ থাকতে পানি পান জরুরি। নিয়মিত অন্তত ৮ গ্লাস পানি পান করলে শরীরের সব অঙ্গ, কোষ, কলা বা টিস্যু, মস্তিষ্কের কার্যক্ষমতা সক্রিয় থাকে। শরীরে সব কার্যক্রম সুষ্ঠুভাবে সম্পাদন হয় পর্যাপ্ত পানি পানে। তবে পানি পান করার নিয়মও রয়েছে। ভুল নিয়মে পানি পান করলে শরীরের ক্ষতি হতে পারে। বিশেষ করে দাঁড়িয়ে পানি পান করা একেবারেই ঠিক নয়। বিশেষজ্ঞদের মতে, দাঁড়িয়ে পানি পানে স্বাস্থ্যঝুঁকি বাড়ায়। এ ক্ষেত্রে বসে পানি পান করাই উত্তম। 

দাঁড়িয়ে পানি পান করার স্বাস্থ্যঝুঁকি সম্পর্কে অনেকেরই অজানা। অথচ ছোট্ট এই অভ্যাসের কারণেই বাড়ে স্বাস্থ্যঝুঁকি। দাঁড়িয়ে পানি পানের ক্ষতিকর দিকগুলো সম্পর্কে জানাব এই আয়োজনে।

  • দাঁড়িয়ে পানি পান করলে সরাসরি পাকস্থলীতে গিয়ে আঘাত করে। স্টোমাক থেকে নিঃসৃত অ্যাসিডের কর্মক্ষমতা কমিয়ে দেয়। বদহজমের আশঙ্কা বাড়ে। তলপেটে যন্ত্রণাসহ একাধিক সমস্যা তৈরি হয়। বসে পানি পান করলে এমনটা হয় না। বসে পানি পান করলে পেটের অন্দরের সব পেশি এবং নার্ভাস সিস্টেম অনেক বেশি রিল্যাক্সিং স্টেটে থাকে। ফলে হজম ক্ষমতা বিগড়ে যাওয়ার আশঙ্কা একেবারে কমে যায়।
  • কিডনি ক্ষতিগ্রস্ত হয় দাঁড়িয়ে পানি পান করলে। এতে কিডনির কর্মক্ষমতা কমে। দাঁড়িয়ে পানি পান করার সময় শরীরের অন্দরে থাকা একাধিক ফিল্টার ঠিকমতো কাজ করতে পারে না। ফলে পানির মধ্যে থাকা একাধিক ক্ষতির উপাদান প্রথমে রক্তে গিয়ে মেশে এবং সেখান থেকে কিডনিতে এসে জমতে থাকে। ফলে ধীরে ধীরে কিডনির কার্যক্ষমতা কমে যায়। একসময় কিডনি ড্যামেজের শঙ্কা দেখা দেয়। 
  • দাঁড়িয়ে পানি পানে তা দ্রুত কোলন বা মলাশয়ে চলে যায়। এতে পানির প্রয়োজনীয় পুষ্টি উপকরণ শরীরে শোষিত হয় না।
  • গ্যাস্ট্রো ইসোফেগাল রিফ্লাক্স ডিজিজ বা G.E.R.D দাঁড়িয়ে পানি পান করলে তা সরাসরি ইসোফেগাসে গিয়ে ধাক্কা দেয়। এতে পাকস্থলীর ভেতরের সরু নালিটি মারাত্মক ক্ষতিগ্রস্ত হয়। গ্যাস্ট্রো ইসোফেগাল রিফ্লাক্স ডিজিজ বা G.E.R.D এর মতো কঠিন রোগ হয়। 
  • পানি পান করার পরেই ছাঁকনিগুলো শরীর পরিশ্রুত করার কাজ শুরু করে। দাঁড়ানো অবস্থায় পানি পানে শরীরের অন্দরে থাকা ছাঁকনিগুলো সংকুচিত হয়ে যায়। পরিশ্রুত করার কাজ বাধা পায়। শরীরে টক্সিনের মাত্রা বাড়তে থাকে।
  • দাঁড়িয়ে পানি পান করলে নার্ভ উত্তেজিত হয়ে যায়, উদ্বেগ বাড়তে থাকে।
  • দাঁড়িয়ে পানি পানে অ্যাংজাইটি লেভেল বেড়ে যায়। একাধিক গবেষণায় দেখা গেছে, দাঁড়িয়ে পানি পান করলে একাধিক নার্ভে প্রদাহ সৃষ্টি হয়। ফলে কোনো কারণ ছাড়াই মানসিক চাপ বা অ্যাংজাইটি বাড়তে শুরু করে।
  • দাঁড়িয়ে পানি পানে তেষ্টা থেকে যায়। স্টোমাকে (পাকস্থলীতে) কমবেশি প্রায় দেড় লিটার পানি জমা হতে পারে। এই পরিমাণ পানি যখন আমরা একেবারেই খেতে পারি না তখন বারেবারে তেষ্টা পায়। একাধিক গবেষণায় দেখা গেছে, দাঁড়িয়ে পানি পান করলে শরীরের একাধিক জায়গায় বাধা পেয়ে স্টোমাকে এসে জমা হয় যতটুকু তাতে চাহিদা মেটে না। ফলে বারবার তেষ্টা পায়।

বিশেষজ্ঞরা পরামর্শ, সঠিক উপায়ে পানি পান করলেই শরীরের উপকার হবে। আদর্শ পদ্ধতি হলো বসে চুমুক দিয়ে পানি পান করা। এতে শরীরে কোনো বাড়তি চাপ পড়বে না। পানির চাপ বেশি হলে স্নায়ুর ওপর চাপ পড়ে, যা শরীরে উপস্থিত তরলের ওপর ক্ষতিকর প্রভাব ফেলে।

সূত্র: রয়টার্স

Link copied!