• ঢাকা
  • রবিবার, ১৪ এপ্রিল, ২০২৪, ১ বৈশাখ ১৪৩১,

ভাষাসৈনিক কয়েস উদ্দিন মারা গেছেন


জামালপুর প্রতিনিধি
প্রকাশিত: আগস্ট ২৬, ২০২৩, ১১:৩৯ এএম
ভাষাসৈনিক কয়েস উদ্দিন মারা গেছেন

ভাষাসৈনিক ও শতবর্ষী গণসংগীত শিল্পী কয়েস উদ্দিন সরকার মারা গেছেন। শুক্রবার (২৫ আগস্ট) রাত ১১টার দিকে বার্ধক্যের কারণে জামালপুর শহরের বেলটিয়া পৌর এলাকার নিজ বাড়িতে তিনি শেষনিশ্বাস ত্যাগ করেন।

মৃত্যুর খবরটি নিশ্চিত করে পৌর মেয়র মোহাম্মদ ছানোয়ার হোসেন জানান, শনিবার সকালে ফুলতলায় নিজ বাড়িতে জানাজা শেষে বেলা ১১টায় কয়েস উদ্দিনের মরদেহ সর্বসাধারণের শ্রদ্ধার জন্য জামালপুর কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে নেওয়া হবে।

কয়েস উদ্দিন ভাষা আন্দোলনসহ প্রগতিশীল সব আন্দোলনে যুক্ত ছিলেন। স্থানীয়দের কাছে তিনি ‘কয়েস ভাই’ নামে পরিচিতি ছিলেন। ব্রিটিশবিরোধী চেতনায় বিশ্বাসী কয়েস উদ্দিন ব্রিটিশ খেদাও আন্দোলনও করেছেন। তিনি শোষণ, বঞ্চনা, অন্যায়-অবিচার ও দুর্নীতির বিরুদ্ধে গান রচনা করেন। ভাষা আন্দোলনের ওপরে গান লিখে নিজেই গেয়ে বাঙালিদের উদ্বুদ্ধ করতেন। ২১ ফেব্রুয়ারিতে পাকিস্তানিদের গুলিতে রফিক, বরকত, ছালাম শহীদ হলে সারা দেশে আন্দোলন বেগবান হয়। তখন তিনি জামালপুরের আন্দোলনে ছিলেন।

আইয়ুববিরোধী গান রচনার জন্য কয়েস উদ্দিন আইয়ুব খানের মার্শাল ল’-এর সময় এক বছর জেল খাটেন।

তার মৃত্যুতে শোক প্রকাশ করেছেন আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মির্জা আজম, সংসদ সদস্য ইঞ্জিনিয়ার মো. মোজাফফর হোসেন, পৌর মেয়র ছানোয়ার হোসেন।

১৯২৪ সালে জামালপুর শহরতলির বেলটিয়া গ্রামের কৃষক মরহুম ছইম উদ্দিন সরকারের ঘরে জন্মগ্রহণ করেন গর্বিত এ ভাষাসৈনিক। সংসারে অভাব অনটনের কারণে লেখাপড়ায় বেশি এগোতে না পারলেও ছোটবেলা থেকেই কাজের ফাঁকে গান লেখা, সুর করা ও গান গাওয়া পছন্দ করতেন তিনি। সুযোগ পেলেই মানুষের সেবার এগিয়ে যেতেন। ঢাকা থেকে সারা দেশের মতো ভাষা আন্দোলনের ঢেউ আছড়ে পড়ে জামালপুরেও। ছাত্র-জনতা রাষ্ট্রভাষা বাংলার দাবিতে রাজপথে নেমে আসে।

Link copied!