• ঢাকা
  • সোমবার, ২৪ জুন, ২০২৪, ১০ আষাঢ় ১৪৩১,

প্লাস্টিকের বোতলে পানি পান ক্ষতিকর!


সংবাদ প্রকাশ ডেস্ক
প্রকাশিত: আগস্ট ৯, ২০২১, ০১:০৫ পিএম
প্লাস্টিকের বোতলে পানি পান ক্ষতিকর!

শরীর সুস্থতায় কিছুক্ষণ পর পর পানি পান করতে হয়। এর জন্য় সঙ্গে বোতল রাখা হয়। অধিকাংশ মানুষই প্লাস্টিকের বোতলে পানি পান করেন। এটি বহণ করা সহজ। ওজনেও হালকা। কিন্তু প্লাস্টিকের বোতলে পানি পান স্বাস্থ্যসম্মত হয় বলে জানিয়েছেন বিশেষজ্ঞরা। তাদের মতে, প্লাস্টিক বোতল বা কোন পাত্রে খাওয়া মানেই ক্ষতিকর প্লাস্টিক খেয়ে নেওয়া। ইচ্ছা করে না হলেও এমনটাই হচ্ছে প্রতিনিয়ত।

সম্প্রতি অস্ট্রেলিয়ার নিউকাসেল বিশ্ববিদ্যালয়ে এ সংক্রান্ত একটি সমীক্ষা প্রকাশ করে। সমীক্ষায় দেখা যায়, প্রতি সপ্তাহেই অধিকাংশ মানুষ  কিছুটা প্লাস্টিক খেয়ে ফেলছেন। এরমধ্যে সবচেয়ে বেশি হয় প্লাস্টিক বোতলে পানি পানে।

সমীক্ষায় বলা হচ্ছে, প্রতি সপ্তাহে যে পরিমাণ প্লাস্টিক শরীরে যায় তা স্বাস্থ্যে বেশ ক্ষতি করছে। তবে প্লাস্টিক নানাভাবে শরীরে প্রবেশ করছে আবার তা শরীর থেকে বের করে দেওয়ারও প্রক্রিয়া রয়েছে। তাই সামান্য পরিমাণ প্লাস্টিক গেলে তাতে ঝুঁকি কম। কিন্তু যারা নিয়মিত বোতলবন্দি পানি কিনে পান করছেন তাদের শরীরে বিভিন্নভাবে প্লাস্টিক থেকে যাচ্ছে। যা ক্ষতিকর।

বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থার তথ্য অনুসারে, প্লাস্টিকের পানির বোতলে সবচেয়ে বেশি প্লাস্টিক থাকতে পারে। ২০১৯ সালে বিজনেস ইনসাইডার রিপোর্টে  বলেছে, একটি বোতলজাত পানীয়ের প্রতিটি বোতলের মধ্যে গড়ে ১০.৪টি প্লাস্টিকের কণা ব্যবহার করা হয়।

সাধারনত বোতলজাত পানির কোম্পানিগুলো ক্রমবর্ধমান BPA- মুক্ত প্লাস্টিক ব্যবহার করে। কিন্তু অন্যান্য সম্ভাব্য ক্ষতিকারক রাসায়নিকগুলো এখনও প্লাস্টিকের বোতলগুলোতে বিদ্যমান রয়েছে। যদি এগুলো দীর্ঘ সময় ধরে বোতলে থেকে যায় তবে তা পানিতে আস্তর তৈরি করে। যা শরীরে হরমোনের মাত্রায় বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করতে পারে।

সমীক্ষার গবেষকরা বলছেন, নিয়মিত প্লাস্টিক শরীরে প্রবেশ করলে এর প্রভাব নানাভাবে পড়ে। শ্বাসকষ্ট হয়, এমনকি ক্যানসারসহ নানা ধরনের রোগের শঙ্কাও বাড়ে। শুধু তাই নয়, এটি পুরুষদের বন্ধ্যাত্বের কারণও হতে পারে। তাই প্লাস্টিকের জিনিস ব্যবহার করে খাবার খাওয়ার বিষয়ে সতর্ক করেছেন বিশেষজ্ঞরা।
 

সূত্র: ইট দিস নট দ্যাট

Link copied!