• ঢাকা
  • বুধবার, ১৯ জুন, ২০২৪, ৫ আষাঢ় ১৪৩১, ১২ জ্বিলহজ্জ ১৪৪৫

পানপাতার যত গুণ


সংবাদ প্রকাশ ডেস্ক
প্রকাশিত: নভেম্বর ২৮, ২০২১, ১২:৫৮ পিএম
পানপাতার যত গুণ

অভ্যাসের বশে বা নিয়মমাফিক বেশ আয়েস করে অনেকেই পান খান। এই পানের সঙ্গে সুপারি যেমন থাকে, তেমনি থাকে অন্যান্য সামগ্রী। তবে পান নেশার বস্তু হিসেবে খেলেও এতে আছে ঔষধি গুণাগুণ।  

দেহের ক্লান্তি ও স্নায়ুবিক দুর্বলতা কাটানোর জন্য কয়েকটা পানপাতার রস এক চামচ মধু দিয়ে খেলে নাকি তা টনিকের মতো কাজ করে। পান খাবার হজম হতে সাহায্য করে।আয়ুর্বেদিক শাস্ত্রে পানপাতার কদর বহুদিনের। প্রাচীন ব্যবস্থাপত্র থেকে শুরু করে হালের ফেইসপ্যাকে পর্যন্ত দেখা যায় পানের ব্যবহার।

চলুন তবে জেনে নেয়া যাক পানপাতার কিছু উপকারিতা।

ব্রণ সমস্যা কমে

পানের অ্যান্টি-ব্যাকটেরিয়াল উপাদান ত্বকের অনেক উপকারেই আসে। এর মধ্যে অন্যতম হলো ব্রণ দূর করা। ব্রণের ওপর পানপাতা বাটা লাগিয়ে রেখে দিন কিছুক্ষণ।

চুলপড়া বন্ধ করে

আয়ুর্বেদের তত্ত্বমতে, পানপাতা বাটার সঙ্গে খানিকটা নারিকেল তেল মিশিয়ে চুলে লাগালে চুলপড়া কমবে। মিশ্রণটি লাগিয়ে অপেক্ষা করুন আধা ঘণ্টা। এরপর শ্যাম্পু দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

লালচে ছোপ দূর করে

ত্বকে লালচে ছোপ দাগ দূর করতে পানপাতা সেদ্ধ পানি দিয়ে মুখ ধুতে পারেন। তবে মুখে দেওয়ার আগে পানিটা ঠান্ডা করে নেবেন। এটি ব্যবহারে মুখ পরিষ্কারও হবে।

মাউথ ফ্রেশনার

পানপাতা খাওয়ার ফলে যে রস উৎপাদন হয়, তা আমাদের দাঁত আর মাড়ি সুস্থ রাখে | এছাড়া পানপাতার রস আমাদের মুখের ভেতরটা পরিষ্কার রাখে| এমনকি মুখের মধ্যে রক্তপাতও বন্ধ করে। পান বেটে তার রস এক কাপ হালকা গরম পানিতে মিশিয়ে রোজ সকালে তা দিয়ে গর্গর করুন। কয়েক দিনর মধ্যেই তফাত দেখতে পাবেন |

নাক থেকে রক্ত পড়া থামায়

অনেক সময় সান স্ট্রোক হওয়ার ফলে নাক দিয়ে রক্ত পড়ে। এটা বন্ধ করতে একটা পান পাতা পাকিয়ে তা নাকের মধ্যে গুঁজে দিন। মাথা পেছনের দিকে হেলিয়ে রাখেতে হবে।কিছুক্ষণের মধ্যেই রক্ত পড়া বন্ধ হয়ে যাবে। আসলে পান পাতা খুব তাড়াতাড়ি রক্ত জমাট বাঁধিয়ে দিতে পারে |

কানের ব্যথা কমাতে সাহায্য করে

পানপাতার আরও একটা বড় সুবিধা হলো এটা কানের ব্যথা কমাতে সাহায্য করে। কয়েক ফোঁটা পানের রস আর কয়েক ফোঁটা নারকেল তেল একসঙ্গে মিশিয়ে কানের মধ্যে দিলে ব্যথা কমে যাবে। তবে এই ক্ষেত্রে ডাক্তারের পরামর্শ নেওয়াই ভালো |

ক্যানসারের ঝুঁকি কমায়

পানপাতায় আছে চমৎকার অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট, যা ক্যানসারের ঝুঁকি কমায় ও দেহে ক্যান্সার সৃষ্টি প্রতিরোধ করে। এজন্য রোজ ১০-১২টি পানপাতা পানিতে ৫ মিনিট জ্বাল দিতে হবে। এরপর তা নামিয়ে ছেঁকে নিতে হবে। একটু ঠাণ্ডা হলে তাতে কয়েক ফোটা মধু মিশিয়ে কুসুম গরম থাকতেই পান করুন। রোজ এটি খেতে পারলে ক্যান্সারের ঝুঁকি অনেকটাই কমে যাবে।

শিশুদের পেট ব্যথা কমায়

পেটে ব্যথা হলে ছোট্ট শিশুরা কাঁদতে থাকে। বড় শিশুরা পেট চেপে ধরে কাতরাতে থাকে। এ অবস্থায় পানপাতার চকচকে পিঠে নারিকেল তেল মাখিয়ে তা গরম করে সেই পাতা পেটের ওপর চেপে ধরে সেঁক দিতে হবে। ৩-৪ মিনিট পর পর এভাবে কয়েকবার সেঁক দিলে পেটে ব্যথা কমে যাবে। খেয়াল রাখতে হবে সেঁকের সময় তাপটা যেন বেশি না হয়।

পোড়া সারায়

পুড়ে গেলে সেখানে প্রচণ্ড জ্বালাপোড়া হয়। পোড়া জায়গায় পানপাতা বেটে তার সঙ্গে ১ টেবিল চামচ মধু মিশিয়ে প্রলেপ দিলে যন্ত্রণার উপশম হবে ও পোড়া জায়গা শুকিয়ে যাবে।

প্রস্রাব করতে সাহায্য করে

বিশেষত কিডনির রোগ আছে যাদের তাদের প্রস্রাব করতে কষ্ট হয় | এই কষ্ট কমাতে সাহায্য করে পানপাতা | শরীর থেকে দ্রুত পানি বের করে দেওয়ার ক্ষমতা আছে পান পাতার | দুধের সঙ্গে পান বেটে খেলে এই ব্যাপারে সাহায্য পাবেন |

ভ্যাজাইনাল হাইজিন ঠিক রাখে

ভ্যাজাইনাল বার্থের পর তাজা পান পাতা ভ্যাজাইনাকে সংকুচিত করতে সাহায্য করে | এছাড়া ভ্যাজাইনাল ডিসচার্জ বা ভ্যাজাইনাল ইচিং ও সারিয়ে দেয়

ত্বকের জন্য ভালো  

খুব কম লোকেই জানে পানে যে অ্যান্টি মাইক্রোবিয়াল প্রপার্টি আছে তা পিম্পল‚ অ্যাকনে সহজেই সারিয়ে তোলে।এছাড়া বিভিন্ন স্কিন অ্যালার্জি‚ ফুসকুড়ি‚ কালো ছোপ‚ সান বার্ন সারিয়ে দেয় | এর জন্য কয়েকটা তাজা পানপাতা আর কাঁচা হলুদ একসঙ্গে বেটে লাগাতে হবে |

মাথা ব্যথা কমায়

গরমের কারণে মাথা ব্যথা করলে কপালে কয়েকটা পান পাতা রাখুন | এছাড়া পানপাতার রস লাগালে তাড়াতাড়ি মাথা ব্যথা কমে যায় |

অ্যান্টি ফাঙ্গাল

শরীরের যেসব অংশে ফাংগাল ইনফেকশন হওয়ার সম্ভাবনা আছে‚ যেমন পায়ের আঙুল‚ প্রভৃতি সেই সব জায়গায় পানপাতার রস লাগান | কয়েকদিনের মধ্যে ইনফেকশন সেরে যাবে |

সর্দি কমায়

বুকে সর্দি জমে গেলে সরিষার তেল আর পান পাতা ভালো করে গরম করে বুকে লাগাতে হবে | এছাড়াও ঠান্ডা লেগে সর্দি হলে পান পাতা‚ এলাচ‚ লবঙ্গ একসঙ্গে ফুটিয়ে গাঢ় করে খেতে হবে |

হজমশক্তি বাড়ায়  

সাধারণত খাওয়ার পর পান খাওয়া হয়। এটা করা হয় কারণ পান হজম করতে সাহায্য করে। গ্যাস‚ অম্বলও কমায় | এছাড়া যাদের কনস্টিপেশনের সমস্যা আছে তাদের জন্যও উপকারী। পেট খারাপ হলে পেটে যে ব্যথা করে অনেক সময় তা-ও কমাতে সাহায্য করে।

মেটাবলিজম বাড়ায়

নিয়মিত পান খেলে শরীরের মেটাবলিজম বাড়ে | এর ফলে ব্লাড সার্কুলেশন বেড়ে যায় | যা বিভিন্ন প্রটিন‚ ভিটামিন‚ মিনারেল অ্যাবজর্ব করতে সাহায্য করতে |

ক্ষত নিরাময়ে

পান পাতায় আছে অ্যান্টিব্যাক্টেরিয়াল রাসায়নিক। তাই পান পাতা বেটে ক্ষতস্থানে দিলে দ্রুত ক্ষত নিরাময় হয়। পানপাতা ব্যবহার করলে সংক্রমণের ভয়ো থাকে না। পানের বেদনানাশক গুণ থাকায় ব্যথা হতে মুক্তি মেলে।

Link copied!