• ঢাকা
  • বুধবার, ২৬ জুন, ২০২৪, ১১ আষাঢ় ১৪৩১,

ভালো ঘুম হবে যেসব খাবারে


সংবাদ প্রকাশ ডেস্ক
প্রকাশিত: আগস্ট ১৭, ২০২১, ১২:৫৫ পিএম
ভালো ঘুম হবে যেসব খাবারে

শরীর ভালো রাখতে, শরীরের প্রতিটি অংশের কার্যক্ষমতা স্বাভাবিক রাখতে পর্যাপ্ত ঘুম প্রয়োজন। পর্যাপ্ত ঘুম না হলে  আমাদের শরীরে অনেক সমস্যা হয়। বিশেষ করে মস্তিষ্ক অকেজো হয়ে পড়ে। বিশেষজ্ঞরা এজন্য় প্রতিদিন অন্ততপক্ষে ৭ থেকে ৮ ঘণ্টা ঘুমের পরামর্শ দিয়েছেন।

ভালো ঘুম হওয়ার জন্য কতই না চেষ্টা থাকে। অনেকে অনিদ্রায় ভোগেন। রাতে ঠিকমতো না ঘুম হলে সারা দিন ক্লান্তিভাব থেকে যায়। কাজে ক্ষেত্রেও সমস্যা হয়। তাই পুষ্টিবিদরা ভালো ঘুমের জন্য ভালো খাবার গ্রহণের পরামর্শ দিয়েছেন। দুপুরের পর ক্যাফেইনজাতীয় খাবার থেকে দূরে থাকতে বলেছেন। সেই সঙ্গে রাতে ঘুমানোর ৩ ঘণ্টা আগে খাবার খাওয়ার পরামর্শও দিয়েছেন।

ভালো ঘুমে সহায়তা করবে এমন কয়েকটি খাবারের কথা জানাব এই আয়োজনে।

পাকা কলা

পাকা কলায় রয়েছে প্রচুর পরিমাণে পটাশিয়াম, ম্যাগনেশিয়াম ও ট্রিপটোফিন। এই উপাদান সেরোটোনিনের মতো ঘুমের হরমোন নিঃসরণ করতে সহায়তা করে।

দানাদার শস্য

গম, শিম এবং কলাইয়ের মতো শস্য খেলে ভালো ঘুম হয়। এসব খাবার সেরোটোনিন নামক শিথিলকরণ হরমোনের নিঃসরণ বাড়িয়ে অআপনাকে গভীর ঘুমে আচ্ছন্ন করে দেবে। এছাড়া এসব খাবারে থাকা ম্যাগনেশিয়াম দেহের মাংসপেশি শিথিলকরণে সহায়ক।

ওটস

ওটসে আছে জটিল কার্বোহাইডেট যা খাবার হজমে বেশ সময় লাগায়। এতে রাতভর পেট ভরা থাকার অনুভূতি থাকে। ক্ষুদায় ঘুমের ব্যাঘাত ঘটে না। রাতের খাবার হিসেবে ওটসের তৈরি খাবার খান। কিংবা ওটসের তৈরি বিস্কুট খান। দেখবেন বেশ ভালো ঘুম হবে।

ডার্ক চকলেট

ডার্ক চকলেটে রয়েছে সেরোটোনিন, যা মন এবং দেহকে প্রশান্ত রাখতে সহায়তা করে। দেহ ও মনে প্রশান্তি থাকলে ঘুমটাও ভালো হয়।

মিষ্টি আলু

মিষ্টি আলুতে ঘুম বাড়াতে সহায়ক কার্বোহাইড্রেটস এবং মাংশপেশি শিথিলকরণে পটাশিয়ামও থাকে। ঘুমের গুণগত মান বাড়াতে মিষ্টি আলুর জুড়ি নেই।

দুধ

রাতে শোয়ার আগে এক গ্লাস গরম দুধ খেয়ে নিন। ভালো ঘুম হবে। দুধে প্রচুর পরিমাণে ক্যালশিয়াম থাকে, যা মস্তিষ্ককে গভীর ঘুমের জন্য সহায়ক হরমোন মেলাটোনিন নিঃসরণে উৎসাহিত করে। ফলে ভালো ঘুম হয়।

মধু

মেলাটোনিন নিৎসরণ বাড়িয়ে এবং মস্তিষ্ককে জাগিয়ে রাখার হরমোন ওরোক্সিন নিঃসরণ কমিয়ে ভালো ঘুমে সহায়তা করে। এক চামচ মধু খেলেই ঘুমে সহায়তা করবে।

বাদাম

বাদামে আছে ট্রিপটোফ্যান এবং ম্যাগনেশিয়াম। এই দুটি উপাদানই প্রাকৃতিকভাবে মাংসপেশির কার্যক্রম স্তিমিত করে।

পালং শাক

ফোলেট, ম্যাগনেশিয়াম, বি৬ এবং ভিটামিন সি ছাড়াও গ্লুটামিন নামক এক অ্যামাইনো অ্যাসিড ভালো ঘুমের জন্য বেশ সহায়ক।

 

সূত্র: হেল্প গাইড

Link copied!