• ঢাকা
  • শুক্রবার, ১৯ জুলাই, ২০২৪, ৩ শ্রাবণ ১৪৩১, ১২ মুহররম ১৪৪৫

অবশেষে খুলেছে ইংল্যান্ড দলে হেলসের দরজা


সংবাদ প্রকাশ ডেস্ক
প্রকাশিত: সেপ্টেম্বর ৭, ২০২২, ১১:৫৯ পিএম
অবশেষে খুলেছে ইংল্যান্ড দলে হেলসের দরজা

ইয়ান মরগ্যানের অধিনায়কত্বে ইংল্যান্ডের হয়ে ইনিংস উদ্বোধনে ভরসা ছিলেন অ্যালেক্স হেলস। ২০১৯ ওয়ানডে বিশ্বকাপের আগে ‘অজানা’ কারণে দল থেকে বাদ পড়া হেলস মরগ্যানের অধিনায়কত্বে তার দলে ফেরেননি। মরগ্যান দায়িত্ব ছাড়ার পর তার জন্য খুলেছে জাতীয় দলের দরজা। জনি বেয়ারস্টোর ইনজুরির কারণে অস্ট্রেলিয়ায় অনুষ্ঠেয় টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের দলে জায়গা পেয়েছেন এই ওপেনার।

হেলসের জাতীয় দলে জায়গা পাওয়ার বিষয়টি নিশ্চিত করেছে ইংল্যান্ড অ্যান্ড ওয়েলস ক্রিকেট বোর্ড (ইসিবি)। বুধবার (৭ সেপ্টেম্বর) দেওয়া এক বিবৃতিতে তাকে দলের ফেরানোর বিষয়টি জানানো হয়।

ইংল্যান্ড দল থেকে ছুটি পেয়ে গলফ কোর্সে নেমেছিলেন জনি বেয়ারস্টো। সেখানে ইনজুরিতে পড়েন এই মারকুটে ক্রিকেটার। ইনজুরির কারণে দক্ষিণ আফ্রিকা ও পাকিস্তান সিরিজ তো বটেই মিস করবেন টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপও।

দল থেকে ছিটকে যাওয়ায় তার বদলি হিসেবে অস্ট্রেলিয়ায় অনুষ্ঠেয় টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের স্কোয়াডে ডাক পেয়েছেন অ্যালেক্স হেলস। সর্বশেষ ২০১৯ সালে ইংলিশদের জার্সিতে খেলেছিলেন এই ওপেনার।

তার পারফর্মেন্স নিয়ে কখনো কোনো সংশয় না থাকলেও ২০১৯ ওয়ানডে বিশ্বকাপের আগে ডোপ টেস্টে উতরাতে না পারেননি। এছাড়াও নানা সময়ে তার বিরুদ্ধে উঠেছিল শৃঙ্খলা ভঙ্গের অভিযোগ। এমনকি সেই সময়ের অধিনায়ক ইয়ান মরগ্যান জানিয়েছিলেন, বিশ্বাসের অভাবও রয়েছে তার মধ্যে। তখন ধারণা করা হয়েছিল, হয়তো চিরতরেই বন্ধ হয়েছে অ্যালেক্স হেলসের জাতীয় দলের দরজা।

জাতীয় দলের বাইরে থাকাকালীন কাউন্টি ও ফ্রাঞ্চাইজি ক্রিকেটে একের পর এক নজর কাড়া পারফর্মেন্সেও খোলেনি জাতীয় দলের দরজা। এমনকি বিশ্বকাপের জন্য ঘোষিত স্কোয়াডে ওপেনার জেসন রয় বাদ পড়লেও তার ডাক পড়েনি। শেষ পর্যন্ত তার শরণাপন্ন হতে বাধ্য হয়েছে ইসিবি। জনি বেয়ারস্টোর ইনজুরিতে খুলেছে হেলসের জাতীয় দলের দরজা। দীর্ঘ বিরতির পর জাতীয় দলে ফিরে এবার আন্তর্জাতিক মঞ্চে নিজেকে প্রমাণের সুযোগ হেলসের সামনে।

ইংল্যান্ডের হয়ে এখন পর্যন্ত ১১ টেস্ট, ৭০ ওয়ানডে ও ৬০ টি-টোয়েন্টি ম্যাচ খেলেছেন অ্যালেক্স হেলস। টি-টোয়েন্টিতে তার পারফর্মেন্স বেশ ঈর্ষণীয়ই। ইংল্যান্ডের হয়ে আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টিতে ১৩৬.৬৫ স্ট্রাইক রেটে তার মোট রান ১৬৪৪। ৮ হাফ সেঞ্চুরির পাশাপাশি করেছেন একটি সেঞ্চুরিও।

Link copied!