• ঢাকা
  • রবিবার, ১৯ মে, ২০২৪, ৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১,

পঙ্কজ ভট্টাচার্যের শেষকৃত্য মঙ্গলবার


সংবাদ প্রকাশ প্রতিবেদক
প্রকাশিত: এপ্রিল ২৪, ২০২৩, ০২:০৪ পিএম
পঙ্কজ ভট্টাচার্যের শেষকৃত্য মঙ্গলবার

প্রবীণ রাজনীতিক ও মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক ঐক্য ন্যাপের সভাপতি পঙ্কজ ভট্টাচার্যের শেষকৃত্য মঙ্গলবার (২৫ এপ্রিল) পোস্তগোলা মহাশ্মশানে অনুষ্ঠিত হবে।

সোমবার (২৪ এপ্রিল) সকালে সম্মিলিত সামাজিক আন্দোলনের সাধারণ সম্পাদক সাঈদ আহমেদ গণমাধ্যমকে এ তথ্য জানিয়েছেন।

সাঈদ আহমেদ বলেন, “প্রয়াত নেতার বন্ধুবান্ধবসহ আমরা যারা তার সহকর্মী ছিলাম, তারা আজকে সকালে হেলথ অ্যান্ড হোপ হসপিটালে বসেছিলাম। সেখানে পঙ্কজদার শেষকৃত্য অনুষ্ঠানের বিষয়ে সিদ্ধান্ত হয়েছে। সিদ্ধান্ত অনুযায়ী মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ১০টা থেকে সাড়ে ১২টা পর্যন্ত কেন্দ্রীয় শহীদ মিনারে সবার শ্রদ্ধা নিবেদনের জন্য কফিন রাখা হবে। সেখান থেকে শেষকৃত্যের জন্য মরদেহ নিয়ে যাওয়া হবে পোস্তগোলায় মহাশ্মশানে।”

শেষকৃত্যের আগ পর্যন্ত পঙ্কজ ভট্টাচার্যের মরদেহ শমরিতা হাসপাতালের হিমঘরে থাকবে বলেও জানান তিনি।

রোববার (২৩ এপ্রিল) রাত ১২টা ২০ মিনিটে রাজধানীর হেলথ অ্যান্ড হোপ হাসপাতালে মারা যান পঙ্কজ ভট্টাচার্য। তার বয়স হয়েছিল ৮৪ বছর।

নিউমোনিয়ায় আক্রান্ত হলে গত ১৭ এপ্রিল তাকে পান্থপথের ওই হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। শনিবার (২২ এপ্রিল) রাতে হৃদরোগে আক্রান্ত হলে তাকে লাইফ সাপোর্টে নেওয়া হয়।

বামপন্থী আদর্শে বিশ্বাসী এ রাজনীতিকের জন্ম ১৯৩৯ সালের আগস্টে চট্টগ্রামের রাউজানের নোয়াপাড়া গ্রামে। ছাত্রজীবন থেকেই তিনি জড়িয়ে পড়েন রাজনীতিতে।

১৯৬২ সালে পূর্ব পাকিস্তান ছাত্র ইউনিয়নের কেন্দ্রীয় কমিটির সহসভাপতি ও পরে কার্যকরী সভাপতি নির্বাচিত হন তিনি।

ষাট দশকের ছাত্র আন্দোলনের সময় থেকে মুক্তিযুদ্ধ পর্যন্ত সব গণ-আন্দোলনে সক্রিয়ভাবে অংশ নেন পঙ্কজ ভট্টাচার্য। মুক্তিযুদ্ধের সময় তিনি ছিলেন বাম দলের (ন্যাপ-ছাত্র ইউনিয়ন-কমিটিউনিস্ট পার্টি) গেরিলা বাহিনীর সংগঠক ছিলেন।

পাকিস্তান সরকার আগরতলা ষড়যন্ত্র মামলার সঙ্গে প্রায় একই সময়ে পঙ্কজ ভট্টাচার্যের বিরুদ্ধেও স্বাধীন বাংলা ষড়যন্ত্র মামলা করে। ওই মামলায় তাকে গ্রেপ্তারের পর কারাগারে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের কাছাকাছি সেলেই তাকে রাখা হয়।

স্বাধীনতার পর দীর্ঘদিন বাংলাদেশ ন্যাশনাল আওয়ামী পার্টির সাধারণ সম্পাদক ছিলেন।

বাংলাদেশের সব আন্দোলন-রাজনৈতিক পালাবদলের প্রত্যক্ষদর্শী এই রাজনীতিবিদ ১৯৯৩ সালে ড. কামাল হোসেনের নেতৃত্বে গণফোরাম প্রতিষ্ঠার সঙ্গে সম্পৃক্ত ছিলেন। তিনি ছিলেন গণফোরামের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য।

পরে সম্মিলিত সামাজিক আন্দোলন নামে দেশের প্রগতিশীল গণতান্ত্রিক মানুষের একটি প্ল্যাটফর্ম গড়ে তোলেন।

২০১০ সালে পঙ্কজ ভট্টচার্য ঐক্য ন্যাপ প্রতিষ্ঠা করেন। সারা জীবন তিনি বাম রাজনীতির আদর্শ নিয়ে জীবন কাটিয়েছেন।

Link copied!