• ঢাকা
  • বৃহস্পতিবার, ১৮ এপ্রিল, ২০২৪, ৪ বৈশাখ ১৪৩১, ৮ শাওয়াল ১৪৪৫

ইসরায়েলের সঙ্গে সম্পর্ক স্বাভাবিক হচ্ছে সৌদির


সংবাদ প্রকাশ ডেস্ক
প্রকাশিত: সেপ্টেম্বর ২১, ২০২৩, ০৩:২৫ পিএম
ইসরায়েলের সঙ্গে সম্পর্ক স্বাভাবিক হচ্ছে সৌদির
সৌদি আরবের ক্রাউন প্রিন্স মোহাম্মদ বিন সালমান । সংগৃহীত

সৌদি আরবের ক্রাউন প্রিন্স মোহাম্মদ বিন সালমান বলেছেন যে অন্যান্য উপসাগরীয় দেশগুলোর অনুরূপ তার দেশ ইসরায়েলের সঙ্গে সম্পর্ক স্বাভাবিক করার জন্য ক্রমাগতভাবে এগিয়ে যাচ্ছে। আর এই সৌদি-ইসরায়েল চুক্তির জন্য মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের বড় সমর্থন রয়েছে। খবর আল-জাজিরার।

বুধবার (২০ সেপ্টেম্বর) যুক্তরাষ্ট্রের গণমাধ্যম ফক্স নিউজে প্রচারিত এক সাক্ষাৎকারে ক্রাউন প্রিন্স বলেন, “প্রতিদিন, আমরা আরও কাছাকাছি যাচ্ছি।”

এমবিএস নামে ব্যাপকভাবে পরিচিত ক্রাউন প্রিন্সের সাক্ষাত্কারটি এমন সময়ে প্রকাশ হলো, যখন মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেনের প্রশাসন ওয়াশিংটনের শীর্ষ দুই মধ্যপ্রাচ্যের মিত্রের মধ্যে ঐতিহাসিক সম্পর্ক স্থাপনের প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে।

এই সম্পর্ক স্বাভাবিকীকরণ আলোচনা একটি অত্যন্ত জটিল আলোচনা। যাতে ফিলিস্তিনিদের জন্য সম্ভাব্য ইসরায়েলি ছাড়, সেইসঙ্গে মার্কিন নিরাপত্তা গ্যারান্টি ও রিয়াদ যে বেসামরিক পারমাণবিক সহায়তা চেয়েছিল সে বিষয়ে আলোচনা অন্তর্ভুক্ত রয়েছে।

এমবিএস ফক্সের বিশেষ প্রতিবেদনে বলেন, ফিলিস্তিন ইস্যুটি রিয়াদের কাছে ‘খুব গুরুত্বপূর্ণ’। “আমাদের সেই অংশটি সমাধান করতে হবে,” বলেন এমবিএস। যখন তাকে জিজ্ঞেস করা হয় একটি সম্পর্ক স্বাভাবিককরণ চুক্তি পেতে কী লাগবে।

তিনি ইংরেজিতে আরও বলেন, “আমাদের দেখতে হবে, আমরা কোথায় যাই। আমরা আশা করছি যে এটি এমন একটি জায়গায় পৌঁছে যাবে, যে এটি ফিলিস্তিনিদের জীবনকে সহজ করবে, ইসরায়েলকে মধ্যপ্রাচ্যের একজন খেলোয়াড় হিসেবে পাবো।”

যুক্তরাষ্ট্রের কর্মকর্তারা আঞ্চলিক এই বড় চুক্তির সম্ভাব্য সুবিধার দিকে লক্ষ রাখছে। যা হতে পারে আগাম প্রেসিডেন্ট নির্বাচনে অংশ নিতে চাওয়া জো বাইডেন ও তার প্রশাসনের বিদেশী বিদেশী নীতির জয়।

এমবিএস আরও বলেন যে ইরান যদি পারমাণবিক অস্ত্র পায়, তাহলে সৌদি আরবকেও ‘একটি পেতে হবে’।

Link copied!