• ঢাকা
  • রবিবার, ১৯ মে, ২০২৪, ৫ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১,

ঔষধি গুণাগুণ বিবেচনায় গাঁজা চাষকে বৈধতা দিতে কমিটি গঠন


সংবাদ প্রকাশ ডেস্ক
প্রকাশিত: এপ্রিল ৭, ২০২৩, ০৪:১১ পিএম
ঔষধি গুণাগুণ বিবেচনায় গাঁজা চাষকে বৈধতা দিতে কমিটি গঠন

উত্তরাখণ্ডের পর ভারতের আরেক প্রদেশ হিমাচলের বিধানসভা রাজ্যে গাঁজা চাষকে বৈধতা দেওয়ার জন্য একটি কমিটি গঠন করেছে। আগামী এক মাসের মধ্যে এ বিষয়ে কমিটিকে প্রতিবেদন জমা দিতে বলা হয়েছে।

শুক্রবার (৭ এপ্রিল) ভারতীয় সংবাদমাধ্যম হিন্দুস্তান টাইমস এক প্রতিবেদনে এ খবর জানিয়েছে। গাঁজার ঔষধি গুণাবললির পরিপ্রেক্ষিতে জনস্বার্থে অন্যান্য রাজ্যের মতো হিমাচলেও গাঁজা চাষকে বৈধ করার জন্য এমএলএ পূর্ণ চাঁদ ঠাকুর একটি প্রস্তাব উত্থাপন করেন।

বিধানসভার স্পিকার কুলদীপ সিং পাঠানিয়া রাজ্যে ভারতীয় বিধি ১০১-এর অধীনে তার এ প্রস্তাবের ওপর আলোচনার পরে একটি কমিটি গঠন করে দেন। স্পিকার এই কমিটি এক মাসের মধ্যে প্রতিবেদন জমা দিতে বলেন।

এর আগে, উত্থাপিত প্রস্তাবের ওপর আলোচনার জবাবে, হিমাচলের মুখ্যমন্ত্রী সুখবিন্দর সিং সুখু জানিয়েছেন, রাজ্য সরকার গাঁজার পাতা এবং বীজ ব্যবহারের সম্পূর্ণ তথ্য পাওয়ার পরে একটি আইন প্রণয়ন করার কথা বিবেচনা করবে। তিনি এর জন্য বিধানসভার একটি কমিটি গঠনের পরামর্শ দেন, যা স্পিকার গ্রহণ করেন।

মুখ্যমন্ত্রী বলেন, “এই কমিটি এক মাসের মধ্যে গাঁজার ঔষধি গুণাগুণ এবং এর ব্যবহার ও অপব্যবহার নিয়ে প্রতিবেদন জমা দেবে। প্রতিবেদন দেওয়ার আগে কমিটি এমন এলাকা পরিদর্শন করবে, যেখানে ব্যাপক হারে গাঁজার অবৈধ চাষ হয়।”

তিনি আরও বলেন, “কেন্দ্রীয় সরকার রাজস্থান, মধ্যপ্রদেশ এবং উত্তর প্রদেশের কিছু জেলায় গাঁজা চাষকে আইনি মর্যাদা দিয়েছে। এছাড়াও শিল্প ব্যবহারের জন্য উত্তরাখণ্ডে গাঁজার চাষও হচ্ছে। গাঁজার যদি সত্যিই ভালো ঔষধি গুণ থাকে, তাহলে কমিটির মাধ্যমে সরকার তা ভালোভাবে বুঝতে পারবে এবং পরবর্তী সিদ্ধান্ত নিতে পারবে।”

হিমাচলে দীর্ঘ দিন ধরেই গাঁজা চাষকে আইনি বৈধতা দেওয়ার দাবি জানানো হচ্ছিল বিভিন্ন মহল থেকে। রাজনৈতিক নেতাদের বড় অংশের মতে, আইনি বৈধতা না থাকায় বাড়ছে ড্রাগ মাফিয়াদের দাপট। আইনসম্মত ভাবে চাষ করা হলে ড্রাগ মাফিয়াদের দৌরাত্ম্য নিয়ন্ত্রণে আনা যাবে।

২০১৫ সালের নভেম্বরে উত্তরাখণ্ডে গাঁজার চাষে শর্তসাপেক্ষ সম্মতি দিয়েছিল সে রাজ্যের সরকার। এলাকার ঐতিহ্যের কথা মাথায় রেখেই এই আইন করা হয়েছিল। যুক্তরাষ্ট্রের বিভিন্ন প্রদেশ ও ইউরোপের বিভিন্ন দেশেও শর্তসাপেক্ষে গাঁজা চাষের বৈধতা রয়েছে।

Link copied!