• ঢাকা
  • বুধবার, ২৮ ফেব্রুয়ারি, ২০২৪, ১৫ ফাল্গুন ১৪৩০, ১৮ শা’বান ১৪৪৫

পেট ফাঁপা হতে পারে যেসব খাবারে


সংবাদ প্রকাশ ডেস্ক
প্রকাশিত: আগস্ট ১১, ২০২৩, ০৩:৪৪ পিএম
পেট ফাঁপা হতে পারে যেসব খাবারে

খাবারের সঙ্গে অত্যধিক বাতাস গিলে ফেলার কারণে বা হজম প্রক্রিয়ার সময় আমাদের শরীর দ্বারা উৎপন্ন হতে পারে গ্যাসের সমস্যা। কিছু খাবার তুলনামূলক বেশি গ্যাস সৃষ্টি করে যা বিব্রতকর পরিস্থিতির কারণ হতে পারে।চলুন জেনে কোন খাবারগুলো  পেট ফাঁপার কারণ হতে পারে-

পেঁয়াজ

পেঁয়াজে ফ্রুক্টোজ থাকার কারণে হজমের সময় ভেঙে গ্যাস তৈরি করে। আপনার যদি ঘন ঘন পেট ফাঁপার সমস্যা থাকে তবে সব সময় পরিমিত পরিমাণে পেঁয়াজ খাবেন।

পপকর্ন
পপকর্নের আপনার প্রিয় পপকর্নও পেট ফাঁপার কারণ হতে পারে। পপকর্ন একটি সম্পূর্ণ শস্য যা শরীর দ্বারা সম্পূর্ণভাবে ভেঙে ফেলা কঠিন। এটি হজমের জন্য অতিরিক্ত এনার্জি খরচ হয়। পপকর্নে প্রচুর লবণ দেওয়া থাকে যা শরীরে ফোলাভাব সৃষ্টি করে।

চুইংগাম
যদিও আমরা চুইংগাম খাই না, চিবিয়ে ফেলে দেই। কিন্তু এটি চিবানোর প্রক্রিয়া আমাদের পরিপাকতন্ত্রে প্রচুর বাতাস আটকে রাখে। এই বায়ু পরবর্তীতে পরিপাকতন্ত্র থেকে গ্যাস আকারে নির্গত হয়। চুইংগামের চিনির উপাদান এই প্রভাবকে আরও বাড়িয়ে তুলতে পারে। তাই পেট ফাঁপার সমস্যা থাকলে চুইংগাম খাওয়ার পরিমাণ কমিয়ে দিন।

দানা শস্য
পুষ্টিবিদ এবং ডায়েটিশিয়ানরা আমাদের ডায়েটে আস্ত গম, ওটস এবং বার্লির মতো দানাশস্য খেতে বলেন। কিন্তু এগুলোও পেট ফাঁপার ক্ষেত্রে দায়ী হতে পারে। দানা শস্য খাওয়ার পরে যদি অত্যধিক গ্যাসের সমস্যা দেখা দেয় তবে হতে পারে আপনার গ্লুটেন ইনটলারেন্স রয়েছে। সেক্ষেত্রে একজন বিশেষজ্ঞ পুষ্টিবিদ বা চিকিৎসকের সঙ্গে পরামর্শ করে নেওয়া ভালো।

কোমল পানীয়
আপনি যখন কোমল পানীয় খান তখন পরিপাকতন্ত্রের মধ্য দিয়ে যাওয়া বাতাসের পরিমাণ বৃদ্ধি পায়। তাই আপনার পেট ফাঁপার সমস্যা থাকলে কোমল পানীয় যতটা সম্ভব এড়িয়ে চলুন।

সবজি
পেট ফাঁপার সমস্যা থাকলে ফুলকপি, বাঁধাকপি, ব্রকলি এবং ব্রাসেলস স্প্রাউট এড়িয়ে চলুন, কারণ এতে প্রচুর পরিমাণে জটিল শর্করা থাকে যা গ্যাস নির্গত করে।

খাদ্যে কোনো বড় পরিবর্তন করার আগে সবসময় একজন পুষ্টিবিদ বা চিকিৎসকের সঙ্গে পরামর্শ করতে ভুলবেন না।

Link copied!