• ঢাকা
  • রবিবার, ২১ এপ্রিল, ২০২৪, ৮ বৈশাখ ১৪৩১, ১১ শাওয়াল ১৪৪৫

অতিরিক্ত গ্যাসের ওষুধ খাওয়া কি ক্ষতিকর?


সংবাদ প্রকাশ ডেস্ক
প্রকাশিত: ফেব্রুয়ারি ২৮, ২০২৪, ০৫:৪৩ পিএম
অতিরিক্ত গ্যাসের ওষুধ খাওয়া কি ক্ষতিকর?

অ্যাসিডিটির সমস্যা নেই এমন মানুষ খুঁজে পাওয়া দায়। এখন তো ছোটদেরও অ্যাসিডিটির সমস্যা হয়। অনেক নবজাতককেও অ্যাসিডিটির ওষুধ খেতে হয়। অ্যাসিডিটির সমস্যা মানেই গ্যাসের ওষুধ খাওয়া। ওষুধের দোকানে নিয়মিত গ্যাসের ওষুধ বিক্রি হচ্ছে। কারণ এই ওষুধ প্রেসক্রিপশন ছাড়াই বিক্রি করা যায়। তাই অনেকেই গ্যাসের সমস্যা হলেই ছুটে যান ফার্মেসিতে। কিনে আনেন গ্যাসের ওষুধ। কেউ কেউ তো প্রতিদিনই নিয়মমাফিক গ্যাসের ওষুধ খেয়ে যাচ্ছেন। তাও আবার চিকিত্সকের পরামর্শ ছাড়াই। চিকিৎসকের পরামর্শ ছাড়া যেসব ওষুধ গ্রহণ করা যায়, সেগুলোকে ওভার দ্য কাউন্টার ড্রাগ বলা হয়। গ্যাসের ওষুধও এখন এমনই ড্রাগ হয়ে গেছে সর্বসাধারণের কাছে। তবে জানেন কি, দীর্ঘদিন গ্যাসের ওষুধ সেবনে স্বাস্থ্যঝুঁকি বেড়ে যায় বহুগুণে।

বিশেষজ্ঞরা জানান, আয়রনের অভাবে এখন অনেকেই রক্তশূন্যতায় ভুগছেন। এর কারণ দীর্ঘদিন গ্যাসের ওষুধ সেবন। তাছাড়া খাবার হজমেও ব্যাঘাত ঘটে এই কারণেই। পাকস্থলীর স্বাভাবিক কার্যক্ষমতা ঠিক রাখতে অ্যাসিডিক প্রয়োজন। যা বেড়ে গেলে গ্যাসের ওষুধ সেবন করতে হয়। কিন্তু দীর্ঘদিন গ্যাসের ওষুধ সেবনে স্বাভাবিক অ্যাসিডিকই হারিয়ে যায়। যা পাকস্থলীর কার্যক্ষমতাকে ব্যাঘাত ঘটায়। পরিপাকতন্ত্রের উপকারী ব্যাকটেরিয়াগুলোর ক্ষতি হয়।  খাবার থেকে আয়রন শোষণের জন্যও অ্যাসিডের প্রয়োজন হয়। দীর্ঘ সময় গ্যাসের ওষুধ খেলে এই ক্ষমতাও নষ্ট হয়। যার ফলে আয়রনসমৃদ্ধ খাবার খেলেও আয়রনের অভাব হয়।

বিশেষজ্ঞরা আরও জানান, গ্যাসের ওষুধ অতিরিক্ত খেলে লিভার, কিডনি ও বোনম্যারোর (অস্থিমজ্জা) ক্ষতি হয়। গ্যাসের সিরাপ খেলে এর মধ্যকার রাসায়নিক উপকরণের জন্য শরীরে কোনো বিষাক্ত প্রতিক্রিয়াও দেখা দেয়। তাই বিশেষজ্ঞদের পরামর্শ, দুই মাসের বেশি সময়  কোনো গ্যাসের ওষুধ খাওয়া ঠিক নয়। তাছাড়া গ্যাসের ওষুধ সেবনের আগে চিকিৎসকের কাছে যেতে হবে।

Link copied!