• ঢাকা
  • শুক্রবার, ১৪ জুন, ২০২৪, ৩১ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ৭ জ্বিলহজ্জ ১৪৪৫

মূত্রনালির সংক্রমণে কিডনি জটিলতা


সংবাদ প্রকাশ ডেস্ক
প্রকাশিত: আগস্ট ৩১, ২০২১, ০১:৫৪ পিএম
মূত্রনালির সংক্রমণে কিডনি জটিলতা

প্রতিনিয়ত কিছু রোগ মাথাচাড়া দিয়ে ওঠে। এর মধ্যে অন্যতম হলো মূত্রনালির সংক্রমণ বা ইউটিআই সমস্যা। মূত্রনালিতে একধরনের ব্যাকটেরিয়া সংক্রমণে এই রোগ হয়। এটি মূত্রনালির নিম্নাংশে আক্রান্ত হলে একে মূত্রথলির সংক্রমণ বা সিস্টাইটিস বলে। অন্যদিকে নিম্নাংশের সংক্রমণের ফলে একপর্যায়ে মূত্রনালির ঊর্ধ্বাংশও আক্রান্ত হয়। তখন এটি কিডনিতে সংক্রমণ ছড়িয়ে দেয়। একে পায়েলোনেফ্রাইটিস বলে।

ন্যাশনাল কিডনি ফাউন্ডেশনের তথ্য অনুযায়ী, প্রতিবছর মূত্রনালির সংক্রমণে (ইউটিআই) আক্রান্ত প্রায় ১০ মিলিয়ন রোগী ডাক্তারের শরণাপন্ন হন। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, শারীরবৃত্তীয় কারণে এই রোগ পুরুষদের তুলনায় নারীদের মধ্যে অনেক বেশি প্রচলিত।

প্রায় ৫ জন নারীর মধ্যে একজনের মূত্রনালির সংক্রমণ দেখা দেয়। একবার সুস্থ হওয়ার পরও এই রোগ আবার দেখা দিতে পারে। প্রায় ২০ শতাংশ নারীরাই এই রোগ অনুভব করতে পারেন না।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, মেয়েদের মূত্রনালি জন্মগতভাবে পুরুষদের তুলনায় ছোট এবং মলদ্বারের খুব কাছাকাছি। তাই ব্যাকটেরিয়া খুব সহজেই আক্রমণ করে। জীবাণু মূত্রথলি এবং কিডনির ওপর প্রভাব বিস্তার করে।

অ্যান্টিবায়োটিক সেবন সাধারণত মূত্রনালির সংক্রমণের জন্য প্রথম সারির ফার্মাসিউটিক্যাল চিকিৎসা। নিম্ন মাত্রাগুলোও প্রতিরোধমূলক ব্যবস্থা হিসেবে নির্ধারিত হতে পারে। তবে এই রোগের পুনরাবৃত্তির জন্য় অনেকেই প্রতিরোধের বিষয়ে অ্যান্টিবায়োটিকের বিকল্প প্রতিকার খোঁজেন।

প্রায় ৮০-৯০ শতাংশ ইউটিআই ই.কোলি ব্যাকটেরিয়া দ্বারা সৃষ্ট হয়, যা সাধারণত কোলনে থাকে। ৩ ধরনের ইউটিআই রয়েছে:

  • মূত্রনালি - মূত্রনালির সংক্রমণ, মূত্রাশয় থেকে প্রস্রাব বহনকারী নলের মাধ্যমে সংক্রমণ হয়।
  • সিস্টাইটিস – মূত্রাশয় থেকে মূত্রনালি পর্যন্ত ব্যাকটেরিয়া সংক্রমণ
  • পাইলোনেফ্রাইটিস - মূত্রাশয় থেকে ছড়িয়ে পড়া ব্যাকটেরিয়া দ্বারা সৃষ্ট কিডনি সংক্রমণ

ইউটিআই আক্রান্ত ব্যক্তিরা কিছু উপসর্গ অনুভব করতে পারে_

  • প্রস্রাবের বেগ বেড়ে যায়। বার বার প্রস্রাবের চাপ অনুভব করে।
  • প্রস্রাব করার সময় ব্যথা বা জ্বালাভাব অনুভব করে।
  • অল্প পরিমাণে প্রস্রাব হয়
  • প্রস্রাবের রং পরিবর্তন হয়। লালচে বা ঘোলাটে প্রস্রাব হতে পারে।
  • প্রস্রাবে দুর্গন্ধ হতে পারে
  • জ্বর আসবে। শরীরের তাপমাত্রা বেড়ে যাবে।
  • পিউবিক হাড়ের ওপরে ব্যথা বা চাপ অনুভব।
  • কিডনি সংক্রমণের লক্ষণ হলে পাঁজরের নিচে বা পাশে ব্যথা হবে।
  • কাঁপুনি এবং ঠাণ্ডা অনুভব হবে।
  • বমি বমি ভাব থাকবে বা বমি হবে।

মূত্রনালি সংক্রমণের কারণ_

  • ইস্ট্রোজেন মূত্রনালির সংক্রমণে বাধা দেয়। মেনোপজ-এর পর ইস্ট্রোজেনের ক্ষরণ কমে যায়। ফলে সংক্রমণের সম্ভাবনা আরও বেড়ে যায়।
  • প্রস্রাব অনেকক্ষণ আটকে রাখলে সংক্রমণের সম্ভাবনা বেড়ে যায়।
  • যৌনসঙ্গীর ইউটিআই থাকলে আপনারও হতে পারে। শারীরিক মিলনের সময় অন্য সঙ্গীও সংক্রমিত হতে পারেন।
  • পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা মেনে না চললে ইউটিআই হতে পারে।
  • কিডনি অথবা মুত্রথলিতে পাথর থাকলে তা স্বাভাবিক মূত্রত্যাগে বাধা প্রদান করে। এতে সংক্রমণ  হতে পারে।
  • ডায়াবেটিস, প্রেগন্যান্সি বা অন্য কোনো রোগে রোগপ্রতিরোধ ক্ষমতা কমে গেলে ইউটিআই হতে পারে।
  • অপারেশনের আগে বা পরে রোগীদের ক্যাথেটার পড়ানো হয়। বেশি দিন ক্যাথেটার পরানো থাকলেও ইউটিআই হতে পারে।

 

সূত্র: দ্য ওয়াল

Link copied!