• ঢাকা
  • শুক্রবার, ২৪ মে, ২০২৪, ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ১৬ জ্বিলকদ ১৪৪৫

আমদানি না হলে আরও বাড়বে পেঁয়াজের দাম


সংবাদ প্রকাশ প্রতিবেদক
প্রকাশিত: জুন ৪, ২০২৩, ০৬:৪২ পিএম
আমদানি না হলে আরও বাড়বে পেঁয়াজের দাম

মাত্র একদিনের ব্যবধানে পেঁয়াজের দাম কেজিতে বেড়েছে ১০ টাকা। বর্তমান মূল্য প্রায় ১০০ টাকা। আমদানি না থাকায় পেঁয়াজের দাম বাড়ছে বলে জানিয়েছেন ব্যবসায়ীরা।

রোববার ( ৪ জুন) রাজধানীর বিভিন্ন বাজার ঘুরে পেঁয়াজের দামের এমন চিত্র দেখা যায়।

রাজধানীর বিভিন্ন বাজারে ঘুরে দেখা যায়, একদিন আগেও তেজগাঁওয়ের নাখালপাড়ায় গলকালও যে পেয়াঁজের দাম ছিল ৮০ টাকা কেজি, আজকে তা ৯০ টাকা। এছাড়া মগবাজারে ৮৫ টাকা কেজি, হাতিরপুল কাঁচাবাজারে ৯৫ থেকে ১০০ টাকা কেজিতে বিক্রি হতে দেখা যায়। এদিকে পেঁয়াজের দামে সেঞ্চুরি অতিক্রম করেছে মিরপুরের মুসলিম বাজার। এই বাজারে মান ভেদে কেজি প্রতি ১০০ থেকে ১১০ টাকা কেজিতে বিক্রি হচ্ছে। তবে পাইকারি পর্যায়ে কারওয়ান বাজারে ৯০-৯২ টাকা কেজিতে বিক্রি হচ্ছে পেঁয়াজ।

হাতিরপুল কাঁচাবাজার ব্যবসায়ী বিল্লাল বলেন, “কারওয়ান বাজার থেকে ৯০ টাকা কেজি কিনতে হয়েছে। এর সঙ্গে পরিবহন খরচ আছে। ৯৫ টাকা কেজি না বিক্রি করলে লাভ থাকে না।”

পেঁয়াজের দাম বাড়ছে কেন জানতে চাইলে কারওয়ান বাজার ব্যবসায়ী সজীব সংবাদ প্রকাশকে বলেন, “দেশে ফলন কম ছিল, তাই ঘাটতি থাকায় দাম বেড়ে গেছে। কবে নাগাদ কমবে, জানি না।”

ভারত থেকে পেঁয়াজ আমদানি করা হলে পেঁয়াজের দাম কমে যাবে, এমনটাই বলছেন কারওয়ান বাজারের আরেক ব্যবসায়ী মিন্টু। তিনি বলেন, “বাজারে এখন যা আছে সবই দেশি পেঁয়াজ। আমদানি হলেই দাম কমবে। না হলে আরও বাড়বে।”

নিত্য প্রয়োজনীয় এই পণ্যের দাম দফায় দফায় বেড়ে যাওয়ায় বিপাকে সাধারণ মানুষ। রাজধানী খিলগাওয়ের বাসিন্দা কামরুল। শহরে মোটরসাইকেল চালিয়ে সংসার চালান। তিনি বলেন, “গত মাসে যেই পেঁয়াজ ৪০ টাকা কেজি নিছি, গতকাল খিলগাও বাজার থেকে নিলাম ৭৫ টাকা কেজিতে। আজকে শুনি আরও ১০ টাকা বাড়ছে। কিন্তু দেখেন ইনকাম কমেছে। আগে হাজার-বারোশো টাকা নিয়ে বাসায় নেওয়া যেত। এখন সেটা অর্ধেকে আসছে। মানুষ এখন খুব জরুরি না হলে বাইকে যেতে চায় না। জিনিসপত্রের দাম যেভাবে বাড়ছে, এই টাকায় সংসার চালানো যায় না, ঝামেলাই আছি।”

Link copied!