• ঢাকা
  • মঙ্গলবার, ২৫ জুন, ২০২৪, ১১ আষাঢ় ১৪৩১,
ফাদার চার্লস জে. ইয়াং ফাউন্ডেশন

করোনায় ক্ষতিগ্রস্তদের মধ্যে ত্রাণ বিতরণ


সংবাদ প্রকাশ ডেস্ক
প্রকাশিত: আগস্ট ২৪, ২০২১, ০৫:৩৪ পিএম
করোনায় ক্ষতিগ্রস্তদের মধ্যে ত্রাণ বিতরণ

‘করোনার কারণে কারখানা থেকে বাদ পড়েছি। তিন মাস ধরে চাকরি নাই। সংসার নিয়ে পড়েছি বিপাকে। সঞ্চয় যা ছিল তা শেষ। ফাদার চার্লস জে. ইয়াং ফাউন্ডেশন থেকে ত্রাণ সহায়তা পেয়ে আমার অনেক উপকার হলো,’ বলছিলেন অমল গোলদার। তিনি সাভারের নতুন ইপিজেটের একটি পোশাক কারখানায় চাকরি করতেন। বেকার হয়ে পরিবার নিয়ে পড়েছেন আর্থিক সংকটে। দুঃসময়ে তাকে সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেয় ফাদার চার্লস জে. ইয়াং ফাউন্ডেশন।


নারায়ণগঞ্জের শাহানারা বেগম বাসা বাড়িতে কাজ করতেন। করোনায় কাজ হারিয়ে চার সন্তান নিয়ে পড়েেছন বিপাকে। স্বামী পরিত্যক্তা শাহানারা বলেন, ‘ফাদার চার্লস জে. ইয়াং ফাউন্ডেশন থেকে আমি যে খাবার পেয়েছি তা দিয়ে দুই সপ্তাহের মতো আমার খাবারের জোগান হলো। যারা এই সহায়তা দিয়েছেন তাঁদের প্রতি কৃতজ্ঞ।’

বৈশ্বিক করোনা অতিমারিতে শাহানারা বেগম, অমল গোলদারের মতো ১৬০০ করোনায় ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারে ফাদার চার্লস জে. ইয়াং ফাউন্ডেশন ত্রাণ বিতরণ করেছে। প্রতিটি পরিবারে দেওয়া হয়েছে ২০ কেজি চাল, ৩ কেজি আলু, ২ কেজি ডাল, ২ কেজি পেঁয়াজ, ২ লিটার তেল, ১ কেজি লবণ এবং ৫ টি করে মাস্ক। খাদ্যসামগ্রী ছাড়াও দেওয়া হয়েছে ৪০০টি পিপিই ও ১০০ লিটার হ্যান্ড স্যানিটাইজার। ঢাকা, মুন্সিগঞ্জ, গাজীপুর, নারায়ণগঞ্জের বিভিন্ন এলাকায় জাতি-ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে যেসকল পরিবার করোনায় ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে বিগত এক সপ্তাহ ধরে তাদের মাঝে এই ত্রাণ বিতরণ করা হয়। 
বিভিন্ন সময়ের ত্রাণ বিতরণ কার্যক্রমে অংশ নিয়েছেন ফাদার চার্লস জে. ইয়াং ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান পংকজ গিলবার্ট কস্তা, দি সেন্ট্রাল এসোসিয়েশন অব খ্রীষ্টান কো-অপারেটিভ লিমিটেড এর চেয়ারম্যান নির্মল রোজারিও, ফাদার চার্লস জে. ইয়াং ফাউন্ডেশনের ভাইস চেয়ারম্যান বাবু মার্কুজ গমেজ, সেক্রেটারি লিটন টমাস রোজারিও, ট্রেজারার আলবার্ট আশিস বিশ্বাস, নির্বাহী পরিচালক ডমিনিক রঞ্জন পিউরীফিকেশন, ফাউন্ডেশনের সদস্য ইগ্নাসিওস হেমন্ত কোড়াইয়া ও রতন পিটার কোড়াইয়াসহ প্রতিটি ত্রাণ কার্যক্রম এলাকার নেতৃবৃন্দ। 


ত্রাণ বিতরণ সম্পর্কে ফাউন্ডেশনের চেয়ারম্যান পংকজ গিলবার্ট কস্তা বলেন, ‘ফাদার ইয়াং আর্থসামাজিক উন্নয়নের জন্য ক্রেডিট ইউনিয়ন প্রতিষ্ঠা করেছিলেন। তিনি চেয়েছিলেন সাধারণ মানুষের যেন দুর্দশা দূর হয়। এই উদ্দেশেই ফাদার ইয়াংকে স্মরণীয় করে রাখতে আমরা তাঁর নামে ফাউন্ডেশন করেছি। এমন কোনো সমবায়ী নেই, যারা ফাদার ইয়াং-এর নাম শোনেনি। ফাদার ইয়াং-এর আদর্শ সকলের কাছে পৌঁছে দিতে আমাদের এই ফাউন্ডেশনের প্রচেষ্টা। এই ফাউন্ডেশন জাতি-ধর্ম-বর্ণনির্বিশেষে সকলের জন্য সামাজহিতৈষী কাজ করবে।’


তিনি আরও বলেন, ‘এই করোনা অতিমারিতে অসংখ্য মানুষ দুর্দশায় পতিত হয়েছেন। আমরা দুর্দশাগ্রস্ত মানুষের পাশে থেকে ত্রাণ সহায়তার মাধ্যমে কাজ করে যাচ্ছি। এই ফাউন্ডেশনের উদ্দেশ্যই হচ্ছে অসহায় দুস্থদের সহযোগিতা করা। এ ছাড়াও এই ফাউন্ডেশনের মাধ্যমে আমরা উচ্চশিক্ষায় বৃত্তি প্রদান ও গবেষণাসহ বিভিন্ন কার্যক্রম অব্যাহত রাখবো।’ 


ফাউন্ডেশনের সেক্রেটারি লিটন টমাস রোজারিও বলেন, ‘বর্তমানে আমরা একটি ক্রান্তিকাল অতিবাহিত করছি। হয়তো এক সময় এই করোনার ক্রান্তিলগ্ন থাকবে না, কিন্তু বর্তমান পরিস্থিতি সামাল দিতে হবে আমাদের একত্রিত প্রচেষ্টায়। আমরা ঢাকা ক্রেডিটের মাধ্যমে সাধারণ সদস্যদের জন্য সরাসরি কাজ করতে পারি, কিন্তু এই ফাউন্ডেশনের মাধ্যমে জাতি-ধর্ম-বর্ণ নির্বিশেষে সকল মানুষের জন্য কাজ করার সুযোগ হয়েছে।’ 


ফাউন্ডেশনের সদস্য ইগ্নাসিওস হেমন্ত কোড়াইয়া বলেন, মূলত যারা এই করোনা অতিমারিতে ক্ষতিগ্রস্ত হয়ে জীবনমান হারাতে বসেছে তাদেরই পাশে থেকে ফাদার চার্লস জে. ইয়াং ফাউন্ডেশন আর্তমানবতার অস্তিত্বের লড়াই চালিয়ে যাচ্ছে। আগামী তিন মাস করোনা থেকে কীভাবে সাধারণ মানুষ বাঁচতে পারে সেই লক্ষে ১৬০০ জনের স্বাস্থ্য সচেতনতা বিষয়ক প্রশিক্ষণ দেওয়া হবে। 


এই ত্রাণ কার্যক্রমের সবচেয়ে বড়ো অংশিদার হয়েছে দেশসেরা সমবায় প্রতিষ্ঠান ঢাকা ক্রেডিট। এ ছাড়া ফাউন্ডেশনটির মাধ্যমে ত্রাণ কার্যক্রমে অর্থ সহায়তা দিয়েছে দি সেন্ট্রাল এসোসিয়েশন অব খ্রীষ্টান কো-অপারেটিভ লিমিটেড, দি মেট্রোপলিটান খ্রীষ্টান কো-অপারেটিভ হাউজিং সোসাইটি লি:, মঠবাড়ী ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী সমবায় সমিতি লি:, তুমিলিয়া খ্রীষ্টান কো-অপারেটিভ ক্রেডিট ইউনিয়ন লি:, রাঙ্গামাটিয়া খ্রীষ্টান কো-অপারেটিভ ক্রেডিট ইউনিয়ন লি:, ঢাকাস্থ রাঙ্গামাটিয়া ধর্মপল্লী খ্রীষ্টান বহুমূখী সমবায় সমিতি লি:, মাউসাইদ খ্রীষ্টান কো-অপারেটিভ ক্রেডিট ইউনিয়ন লি:, মাউসাইদ খ্রীষ্টান মাল্টিপারপাস কো-অপারেটিভ সোসাইটি লি:, ধরেন্ডা খ্রীষ্টান কো-অপারেটিভ ক্রেডিট ইউনিয়ন লি: ও পাগার খ্রীষ্টান কো-অপারেটিভ ক্রেডিট ইউনিয়ন লিমিটেডসহ বিভিন্ন সমবায় সমিতি, প্রতিষ্ঠান ও ব্যক্তি। 


আমেরিকান নাগরিক ফদার চার্লস জে. ইয়াং বাংলাদেশের ক্রেডিট ইউনিয়ন এর পথিকৃৎ। ২০১৯ সনে দি খ্রীষ্টান কো-অপারেটিভ ক্রেডিট ইউনিয়ন লি:, ঢাকা (ঢাকা ক্রেডিট) এর প্রতিষ্ঠাতা ফাদার চার্লস জে. ইয়াং-এর নামানুসারে ফাদার চার্লস জে. ইয়াং ফাউন্ডেশন প্রতিষ্ঠা করা হয়েছে। এই ফাউন্ডেশন নিবন্ধক লাভ করে ২০২০ সনের ৭ ডিসেম্বর। অরাজনৈতিক ও অভালজনক এই সংগঠনের কার্যক্রম হচ্ছে মেধাবী ও গরিব শিক্ষার্থীদের বৃত্তি প্রদান, সমবায়ের ওপর বিশেষ গবেষণা কাজে উদ্যোগীদের উৎসাহিত করা, কারিগরি শিক্ষা তহবিল প্রদান, ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক কাজে সহযোগিতা, সমবায়ে বিশেষ অবদানের জন্য উৎসাহিত করা ও নানা  সামাজহিতৈষী কাজে নানাভাবে অবদান রাখা।

(সংবাদ বিজ্ঞপ্তি)

Link copied!