• ঢাকা
  • শনিবার, ১৩ জুলাই, ২০২৪, ২৮ আষাঢ় ১৪৩১, ৬ মুহররম ১৪৪৫

মরি হায় রে হায়...হাজার টাকার বাগান খাইলো পাঁচ সিকার ছাগলে


সংবাদ প্রকাশ ডেস্ক
প্রকাশিত: জুন ২১, ২০২৪, ০২:৪৩ পিএম
মরি হায় রে হায়...হাজার টাকার বাগান খাইলো পাঁচ সিকার ছাগলে
ছবি : সংগৃহীত

গায়ক আবু বকর সিদ্দিকের সেই গানটা এখন নতুন করে শোনা যায়, ‘মরি হায় রে হায় দুঃখে আগুন জ্বলে, হাজার টাকার বাগান খাইলো পাঁচ সিকার ছাগলে।’ তবে আলোচিত ছাগল-কাণ্ডে ছাগলের দাম ৫ সিকা নয়, ১৫ লাখ টাকা। রাজস্ব কর্মকর্তা মতিউর রহমানের ছেলে ইফাত কোরবানি দিতে একটি ছাগল কেনেন ১৫ লাখ টাকায়। 
ছেলের ছাগল-কাণ্ডে আলোচিত জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা মতিউর রহমানের বিরুদ্ধে বিপুল অবৈধ সম্পদ অর্জনের অভিযোগ জমা পড়েছে দুর্নীতি দমন কমিশনে (দুদক)। চলতি মাসের প্রথম সপ্তাহে জমা পড়া অভিযোগটি যাচাই করে কমিশন অনুসন্ধানের সিদ্ধান্ত নিয়েছে। ইতোমধ্যেই দুদকের কর্মকর্তারা মাঠে নেমেছেন।
দুদক সূত্র জানায়, এর আগে মতিউরের বিরুদ্ধে কমিশনে চারবার দুর্নীতির অভিযোগ জমা পড়েছিল। তবে তার তদবিরের চাপে প্রতিবারই তাকে ‘ক্লিন সার্টিফিকেট’ দেওয়া হয়েছে। অর্থাৎ ওই সব অভিযোগ আর অনুসন্ধান করা হবে না। তবে এবার কমিশন অভিযোগ আমলে নিয়ে অনুসন্ধানের সিদ্ধান্ত নিয়েছে। 
মতিউর রহমান বর্তমানে কাস্টমস, এক্সাইজ ও ভ্যাট আপিলাত ট্রাইব্যুনালের সদস্য হিসেবে দায়িত্ব পালন করছেন। গত কয়েক দিনে তার ছেলে মুশফিকুর রহমান ইফাতের ১৫ লাখ টাকায় কোরবানির ছাগল, ৭০ লাখ টাকায় কয়েকটি গরু কেনার ছবি ও খবর সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভাইরাল হয়েছে। মতিউর বলেছেন, ইফাত তাঁর ছেলে নয়। পরে জানা গেছে, ইফাত তার দ্বিতীয় স্ত্রীর একমাত্র সন্তান। 
ইফাত থাকেন রাজধানী ধানমন্ডির ৮ নম্বর রোডের ইম্পেরিয়াল সুলতানা ভবনের পঞ্চম তলায়। গতকাল সকালে তাঁর বাসায় গিয়ে কাউকে পাওয়া যায়নি। এক নিরাপত্তাকর্মী জানান, ইফাত গত মঙ্গলবার বাসা থেকে বের হয়ে আর ফেরেননি। তবে ভবনের একাধিক বাসিন্দা জানান, এনবিআর কর্মকর্তা মতিউর রহমান দুই বিয়ে করেছেন। প্রথম স্ত্রী লায়লা কানিজ বর্তমানে নরসিংদীর রায়পুরা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান। তাদের এক ছেলে ও এক মেয়ে রয়েছে। প্রথম স্ত্রী ও সন্তানদের নিয়ে মতিউর রহমান থাকেন রাজধানীর বসুন্ধরা আবাসিক এলাকায়। আর দ্বিতীয় স্ত্রী শাম্মী আখতারের সন্তান মুশফিকুর রহমান ইফাত। থাকেন ধানমন্ডির বাসায়। তবে শাম্মী আখতার থাকেন কাকরাইলের একটি ফ্ল্যাটে। ইফাতের বোন ফারজানা রহমান ইস্পিতা থাকেন কানাডায়। সেখানে তাঁর বিলাসী জীবনযাপন সম্পর্কে অনেকে ফেসবুকে তথ্য দিচ্ছেন। ইফাত বিবাহিত।

মতিউরের সম্পদের পাহাড়, অনুসন্ধানে দুদক
এক ছাগলের দাম ১৫ লাখ টাকা, যা পরবর্তী সময়ে বিক্রি হয় ১২ লাখ টাকায়। ছাগলটি কিনেছেন মুশফিকুর রহমান ইফাত নামের এক যুবক। ইফাত জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের (এনবিআর) এক কর্মকর্তার সন্তান। তার ছাগল কেনার ভিডিও ফেসবুকে ভাইরাল হয়েছে। ছাগল কিনে আলোচনায় আসা ইফাত ছাগলের পাশাপাশি আরও চারটি গরু কিনেছেন ৩৭ লাখ টাকায়। সব মিলিয়ে এবার অর্ধকোটি টাকার কোরবানি দিচ্ছেন তিনি।
শুধু এবারই নয়, গত বছরও কোরবানিতে এই কর্মকর্তা ছেলে কিনেছিলেন ৬০ লাখ টাকার পশু, যা নিশ্চিত করেছেন তাদের কাছে বিক্রি করা এক বিক্রেতা।
খোঁজ নিয়ে জানা যায়, ইফাত সাদেক অ্যাগ্রো থেকে ২৩ লাখ টাকায় ছাগল ও একটি গরু কেনেন। বাকি ৩ গরুর বাজার মূল্য ২৬ লাখ টাকা। এত টাকায় কোরবানি পশু কিনলেও এর আগে আলোচনায় আসেননি তিনি। এবার ভাইরাল ছাগল কিনে ভাইরাল হন মুশফিকুর রহমান ইফাত। তবে বিপাকে পড়েছেন তার বাবা জাতীয় রাজস্ব বোর্ডের কর্মকর্তা মতিউর রহমান।

Link copied!