• ঢাকা
  • বৃহস্পতিবার, ১৩ জুন, ২০২৪, ৩০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ৭ জ্বিলহজ্জ ১৪৪৫

আজ বাইশে শ্রাবণ


সংবাদ প্রকাশ ডেস্ক
প্রকাশিত: আগস্ট ৬, ২০২১, ১১:১০ এএম
আজ বাইশে শ্রাবণ

আজ বাইশে শ্রাবণ। বাংলা ১৩৪৮ সনের (ইংরেজি ৭ আগস্ট, ১৯৪১) মহাকালের পথে যাত্রা করেন বাংলা ভাষার অন্যতম শ্রেষ্ঠ কবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর। 

কলকাতার জোড়াসাঁকো ঠাকুর পরিবারে ১২৬৮ সালের ২৫ বৈশাখ জন্মগ্রহণ করেন রবীন্দ্রনাথ। তার বাবা দেবেন্দ্রনাথ ঠাকুর, মা সারদা সুন্দরী দেবী।

কিশোর বয়স থেকেই সাহিত্য রচনায় মনোনিবেশ করেন রবীন্দ্রনাথ। ঠাকুর পরিবারের সাংস্কৃতিক আবহ রবীন্দ্রনাথের সৃজনশীল মনে গভীর প্রভাব বিস্তার করেছিল। দীর্ঘ সাহিত্যিক জীবনে তিনি বাংলা ভাষার প্রায় সব শাখায় বিচরণ করেছেন। তিনি একাধারে কবি, ঔপন্যাসিক, নাট্যকার, সংগীতজ্ঞ, প্রাবন্ধিক, দার্শনিক, ভাষাবিদ, চিত্রশিল্পী ও গল্পকার। বলা চলে রবীন্দ্রনাথের হাত ধরেই বাংলা ছোটগল্পের উদ্ভব। ১৯১৩ সালে গীতাঞ্জলি কাব্যগ্রন্থের জন্য সাহিত্যে নোবেল পুরস্কার পান তিনি। সাহিত্য রচনার পাশাপাশি রবীন্দ্রনাথের অন্যতম কীর্তি বিশ্বভারতী প্রতিষ্ঠান, যা আজ ভারতের অন্যতম সৃজনশীল বিদ্যাপীঠ।

রবীন্দ্রনাথ দুই হাজারের অধিক গান রচনা করেছেন। যার বেশির ভাগেরই সুর করেছেন তিনি। রবীন্দ্রনাথের রচিত ‘আমার সোনার বাংলা’ গানটি বাংলাদেশের জাতীয় সংগীত হিসেবে গৃহীত হয়েছে। এছাড়া ভারতের জাতীয় সংগীতের রচয়িতাও তিনি।

রবীন্দ্রনাথের প্রকাশিত মৌলিক কবিতাগ্রন্থ ৫২টি, উপন্যাস ১৩, ছোটগল্পের বই ৯৫, প্রবন্ধ ও গদ্যগ্রন্থ ৩৬ এবং নাটকের বই ৩৮টি। কবির মৃত্যুর পর ৩৬ খণ্ডে ‘রবীন্দ্র রচনাবলী’ প্রকাশিত হয়। এছাড়া ১৯ খণ্ডের রয়েছে ‘রবীন্দ্র চিঠিপত্র’।

Link copied!