• ঢাকা
  • শুক্রবার, ১৯ জুলাই, ২০২৪, ৪ শ্রাবণ ১৪৩১, ১৩ মুহররম ১৪৪৫

যুদ্ধ ও করোনার কারণে বৈশ্বিক উৎপাদন কমেছে


সংবাদ প্রকাশ ডেস্ক
প্রকাশিত: সেপ্টেম্বর ১, ২০২২, ০৯:৫৫ পিএম
যুদ্ধ ও করোনার কারণে বৈশ্বিক উৎপাদন কমেছে

ভোগ্যপণ্যের চাহিদা কম থাকার কারণে আগস্ট মাসে বৈশ্বিক উৎপাদন কমেছে। বিভিন্ন জরিপের তথ্য থেকে রয়টার্স জানায়, এই পরিস্থিতির জন্য রাশিয়া-ইউক্রেন যুদ্ধ এবং চীনের করোনা নিয়ন্ত্রণজনিত স্থবির অবস্থাই দায়ী।

গত মাসে যুক্তরাজ্য, যুক্তরাষ্ট্র, চীন, জাপান ও জার্মানিসহ বড় অর্থনীতির দেশগুলোতে পণ্য উৎপাদন কম হয়েছে। তবে ভারত, ফিলিপাইন, ইন্দোনেশিয়া ও থাইল্যান্ডসহ এশিয়ার বেশকিছু দেশে উৎপাদন বেড়েছে।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, ভূরাজনৈতিক অস্থিরতার কারণে সরবরাহ ব্যবস্থায় ব্যাঘাত ঘটেছে। ফলে পণ্যের ক্রয়াদেশ কমে গেছে। তাছাড়া মজুত থাকা পণ্যও উৎপাদকরা বাজারে ছাড়তে পারছেন না। পাশাপাশি ক্রয় ক্ষমতা কমে যাওয়ার কারণে মানুষের চাহিদাও কমেছে। এসব কারণেই কমেছে উৎপাদন কার্যক্রম।

জাপানের একটি গবেষণা সংস্থার প্রধান অর্থনীতিবিদ তরু নিশিহামা রয়টার্সকে বলেন, “একদিকে চীনে আছে করোনার প্রতিবন্ধকতা, অন্যদিকে যুক্তরাষ্ট্রের সাথে অনেক দেশের সম্পর্ক ভালো যাচ্ছে না। এর ফলে প্রতিনিয়ত বিভিন্ন বাধা আসছে সরবরাহ ব্যবস্থায়।”

বৈশ্বিক অর্থনীতিতে যুক্তরাষ্ট্র ও চীনের গুরুত্ব তুলে ধরে তিনি আরও বলেন, “চীন আর যুক্তরাষ্ট্র হচ্ছে বৈশ্বিক অর্থনীতির ইঞ্জিন। এদের অবস্থা টালমাটাল হলে ব্যবসা বাণিজ্যে সমস্যা তো বাড়বেই।”

এমন পরিস্থিতি থেকে বের হতে কেন্দ্রীয় ব্যাংকগুলো ঋণের সুদহার বাড়িয়েই চলছে। এর ফলে মুদ্রাস্ফীতিতে টান পড়লেও উৎপাদন ক্ষতিগ্রস্ত হবে বলে আশঙ্কা করছেন বিশ্লেষকেরা।

Link copied!