• ঢাকা
  • শুক্রবার, ১৯ জুলাই, ২০২৪, ৩ শ্রাবণ ১৪৩১, ১২ মুহররম ১৪৪৫

পাঁচ দিন খাতির-যত্নের পর ধরা পড়লেন ভুয়া নিরীক্ষা কর্মকর্তা


নাটোর প্রতিনিধি
প্রকাশিত: সেপ্টেম্বর ৯, ২০২২, ০৯:২৪ এএম
পাঁচ দিন খাতির-যত্নের পর ধরা পড়লেন ভুয়া নিরীক্ষা কর্মকর্তা

এসেছিলেন তারা নিরীক্ষা করতে। নিরীক্ষার কাজ চলছিলও বেশ। ৩ থেকে ৮ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত নিরীক্ষার কাজ চালিয়ে যান। পৌরসভার পক্ষ থেকে তাদের বেশ খাতির-যত্নও করা হচ্ছিল। তবে শেষ রক্ষা হয়নি। তাদের আচার-আচরণ পৌর কর্তৃপক্ষের কাছে সন্দেহজনক মনে হওয়ায় কর্তৃপক্ষের সঙ্গে যোগাযোগ করে জানতে পারেন সেখানে কোনো নিরীক্ষক দল পাঠানো হয়নি। এ ঘটনায় ওই ভুয়া নিরীক্ষক দলের সদস্যদের আটক করেছে থানা-পুলিশ।

অভিনব প্রতারণার এ ঘটনাটি ঘটেছে নাটোরের গুরুদাসপুর উপজেলার গুরুদাসপুর পৌর কার্যালয়ে।

বৃহস্পতিবার (৮ সেপ্টেম্বর) বিকেল ৩টায় গুরুদাসপুর পৌরসভা কার্যালয় থেকে ওই ভুয়া নিরীক্ষক দলকে আটক করা হয়।

আটকরা হলেন নাটোরের লালপুর উপজেলার চক-নাজিরপুর গ্রামের মৃত রহিম উদ্দিনের ছেলে এস এম ইউনুস আলী (৫৩), তার সহকারী একই গ্রামের মোকাদ্দেস আলীর ছেলে মো. সুমন আলী (৩২) ও রাজশাহী নওহাটার বাঘসারা গ্রামের মো. জাফর আলীর ছেলে (চালক) শামীম পারভেজ রবি (৩২)। এ সময় তাদের ব্যবহৃত ১টি প্রাইভেট কার জব্দ করা হয়েছে।

এ বিষয়ে পৌর নির্বাহী কর্মকর্তা মো. রবিউল হক বলেন, “অডিটে আসার পর থেকেই তাদের আচার-আচরণ ও ব্যবহার ছিল সন্দেহজনক। পরে অডিট কর্তৃপক্ষের সঙ্গে যোগাযোগ করে জানতে পারি গুরুদাসপুর পৌরসভায় কোনো অডিট টিম পাঠানো হয়নি।”

গুরুদাসপুর পৌরসভার মেয়র শাহনেওয়াজ আলী বলেন, “নিরীক্ষা কর্মকর্তাদের আচার-আচরণ সন্দেহজনক মনে হলে জিজ্ঞাসাবাদের একপর্যায়ে তারা ভুয়া  নিরীক্ষক কর্মকর্তা বলে স্বীকার করেন।”

গুরুদাসপুর থানার ভারপ্রাপ্ত (ওসি) মো. আব্দুল মতিন গ্রেপ্তারের সত্যতা নিশ্চিত করে বলেন, “ভুয়া অডিট অফিসারসহ ৩ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে এবং তাদের ব্যবহৃত প্রাইভেট কারটি জব্দ করা হয়েছে। এ বিষয়ে তাদের বিরুদ্ধে একটি মামলা হয়েছে।”

স্বদেশ বিভাগের আরো খবর

Link copied!