• ঢাকা
  • শুক্রবার, ২১ জুন, ২০২৪, ৭ আষাঢ় ১৪৩১, ১৪ জ্বিলহজ্জ ১৪৪৫

যারা বিএনপি করেন, তারা একদিন লজ্জা পাবেন: তথ্যমন্ত্রী


সংবাদ প্রকাশ প্রতিবেদক
প্রকাশিত: আগস্ট ১৭, ২০২১, ০৩:৫৪ পিএম
যারা বিএনপি করেন, তারা একদিন লজ্জা পাবেন: তথ্যমন্ত্রী

যারা আজকে জিয়াউর রহমানের দল বিএনপি করছেন, তারা একদিন লজ্জা পাবেন বলে মন্তব্য করেছেন তথ্যমন্ত্রী হাছান মাহমুদ।

মঙ্গলবার (১৭ আগস্ট) বাংলাদেশ চলচ্চিত্র উন্নয়ন করপোরেশনে (বিএফডিসি) আয়োজিত এক আলোচনা সভায় তিনি এ মন্তব্য করেন। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিবসহ ১৫ই আগস্টে নিহতদের স্মরণে এই আলোচনা সভার আয়োজন করে বিএফডিসি ও চলচ্চিত্র সংশ্লিষ্ট সমিতিসমূহ।

তথ্যমন্ত্রী বলেন, “জিয়াউর রহমান বঙ্গবন্ধুর খুনের সঙ্গে ওতোপ্রতোভাবে জড়িত ছিলেন। তিনিসহ বঙ্গবন্ধুর খুনের পেছনে যারা কুশীলব ছিলেন তাদের মুখোশ ধীরে ধীরে উন্মোচিত হবে। যখন ইতিহাস পরিপূর্ণভাবে উন্মোচিত হবে, জিয়াউর রহমান কীভাবে পাকিস্তানের পক্ষ হয়ে বর্ণচোরা ভূমিকা পালন করেছিলেন, কীভাবে বঙ্গবন্ধুর হত্যাকাণ্ডের সঙ্গে ওতোপ্রতোভাবে জড়িত ছিলেন, বঙ্গবন্ধুর হত্যাকারীদের উৎসাহ দিয়েছিলেন এবং পরে পুনর্বাসিত করেছিলেন, তখন আজকে যারা বিএনপি করছেন, তারা জিয়াউর রহমানের দল করার জন্য লজ্জা পাবেন।”

হাছান মাহমুদ আরো বলেন, “মুক্তিযুদ্ধের সময় কেউ যদি কোনো মুক্তিযোদ্ধাকে তার বাড়িতে একবেলা ভাত খাওয়াত, আর সেটি যদি রাজাকাররা জানতে পারতো, তাহলে সেই বাড়ি জ্বালিয়ে দিয়েছে। সেই বাড়ির লোকজনকে ধরে নিয়ে মেরে ফেলেছে। অথচ জিয়াউর রহমান রণাঙ্গণে যুদ্ধ করছে, আর তার স্ত্রী এবং পুত্রদের পাকিস্তানি আর্মি আদর-যত্ন করে ক্যান্টনমেন্টে রাখছে। এতেই প্রমাণিত হয় মুক্তিযুদ্ধে জিয়াউর রহমানের ভূমিকাটা কী ছিল?”

তথ্যমন্ত্রী আরো বলেন, “বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান আমাদের কৃষ্টি, সংস্কৃতি, ইতিহাস, ঐতিহ্যকে ধরে রাখা এবং লালন করার জন্য ১৯৫৭ সালে এফডিসি প্রতিষ্ঠা করেছিলেন। এর ফলে বাংলাদেশে বহু কালজয়ী চলচ্চিত্রের নির্মাণ হয়েছে, বহু কালজয়ী শিল্পী ও পরিচালকের আবির্ভাব ঘটেছে।”

চলচ্চিত্র আমাদের শিল্প, ঐতিহ্য, সংস্কৃতিকে লালন করা ও আমাদের স্বাধীকার আন্দোলনে ভূমিকা রাখার ক্ষেত্রে অনন্য অবদান রেখেছে জানিয়ে তিনি আরো বলেন, “স্বাধীনতার জন্য মানুষের মনন তৈরি করার ক্ষেত্রে অনেক চলচ্চিত্র অসামান্য অবদান রেখেছে। স্বাধীনতা পরবর্তী সময়ে অনেক চলচ্চিত্র নির্মাণ হয়েছে, যেগুলো বিধ্বস্ত দেশকে পুনর্গঠন করার ক্ষেত্রে ভূমিকা রেখেছে।”

হাছান মাহমুদ বলেন, “বিধ্বস্ত দেশকে পুনর্গঠন করে বঙ্গবন্ধু যখন বাংলাদেশকে সমৃদ্ধির দিকে এগিয়ে নিয়ে যাচ্ছিলেন, তখনই দেশি-বিদেশিদের ষড়যন্ত্রের মাধ্যমে তাকে হত্যা করা হয়। এই দেশে যারা পাকিস্তানিদের দোসর ছিল, বর্ণচোরা দোসর ছিল, তারা এবং আন্তর্জাতিক যে শক্তি বাংলাদেশের স্বাধীনতা চায়নি, সেই শক্তি মিলে সম্মিলিতভাবে বঙ্গবন্ধুকে হত্যা করেছিল।”

এ সময় তিনি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ও বঙ্গমাতা শেখ ফজিলাতুন্নেছা মুজিবসহ ১৫ই আগস্টে নিহতদের প্রতি গভীর শোক প্রকাশ করেন।

এফডিসির ব্যবস্থাপনা পরিচালক নুজহাত ইয়াসমিনের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় আরো বক্তব্য রাখেন তথ্য ও সম্প্রচার প্রতিমন্ত্রী মো. মুরাদ হাসান, একই মন্ত্রণালয়ের সচিব মো. মকবুল হোসেন, চলচ্চিত্র পরিচালক সমিতির সভাপতি সোহানুর রহমান সোহান, মহাসচিব শাহিন সুমন, চলচ্চিত্র শিল্পী সমিতির সভাপতি মিশা সওদাগর ও সাধারণ সম্পাদক জায়েদ খান প্রমুখ।

Link copied!