• ঢাকা
  • মঙ্গলবার, ২৮ মে, ২০২৪, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ১৯ জ্বিলকদ ১৪৪৫

লাশের অঙ্গপ্রত্যঙ্গ চুরির পর বিক্রি, নিয়ে যেতেন বাড়িতেও


সংবাদ প্রকাশ ডেস্ক
প্রকাশিত: জুন ১৫, ২০২৩, ০৫:১৮ পিএম
লাশের অঙ্গপ্রত্যঙ্গ চুরির পর বিক্রি, নিয়ে যেতেন বাড়িতেও

হার্ভার্ড মেডিকেল স্কুলের মর্গের মরদেহ ও অঙ্গ চুরি এবং বিক্রির ঘটনায় ৫ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ গঠন করা হয়েছে। এসব মরদেহ ও অঙ্গ দাতারা মেডিকেল স্কুলে দান করেছিলেন। বুধবার যুক্তরাষ্ট্রের পেনসিলভানিয়ার মিডল ডিস্ট্রিকের গ্র্যান্ড জুরির দপ্তর এক বিবৃতিতে এসব তথ্য জানিয়েছে।

বৃহস্পতিবার (১৫ জুন) কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল-জাজিরা এক প্রতিবেদনে এ খবর জানিয়েছে। এতে বলা হয়, ২০১৮ সাল থেকে ২০২২ সালের মধ্যে অঙ্গ বিক্রি করার দায়ে মর্গের ম্যানেজার কেডরিক লজকে (৫৫) গত ৬ মে চাকরীচ্যুত করা হয়। অন্য আসামীদেরকে বরখাস্ত করা হয়। তারা কালো বাজারে মরদেহ ও অঙ্গ বিক্রি করেছে।

অ্যাটনি জিরার্ড কারাম বলেন, বিজ্ঞান ও বৈজ্ঞানিক গবেষণাকে এগিয়ে নেওয়া আর মেডিকেল শিক্ষার্থীদের বাস্তব জ্ঞান লাভের সুযোগ করে দিতে অনেকেই মৃত্যুর পর স্বেচ্ছায় অঙ্গপ্রত্যঙ্গ দান করে যান। অভিযুক্ত ব্যক্তি এই অপরাধ জেনেশুনেই করেছেন।

কৌসুলিরা বলেন, ম্যাসাচুসেটসের বোস্টনের হার্ভার্ড মেডিকেল স্কুলের মর্গের মরদেহ পরীক্ষা করা ও কোন কোন অঙ্গ কেনা হবে তা দেখার জন্য লজকে ১৯৯৫ সালে নিয়োগ দেওয়া হয়। লজ অনেক সময় মাথা, মস্তিষ্ক, ত্বক ও অস্থিসহ অঙ্গ কিনতেন। তিনি তা বাড়িতেও নিয়ে যেতেন। এসব অঙ্গের কিছু  কিছু তিনি ক্রেতাদের কাছে বিক্রি করে দিতেন। আর এই কাজে তাকে সহায়তা করতেন তার স্ত্রী ডেনিসে লজ।

অভিযুক্ত লজ ছাড়া অন্য তিন জন হলেন, ম্যাসাচুসেটসের সালেমের ক্যাটরিনা ম্যাক্লিন(৪৪), পেনসিলভানিয়ার ওয়েস্ট লনের জাসুয়া টেইলর (৪৬) এবং মিনেসোটার ইস্ট বেথেলের ম্যাথিউ ল্যাম্পি (৫২) এসব চুরি চক্রান্ত ও বিভিন্ন রাজ্যে বহনের কাজে জড়িত ছিলেন।

আইনজীবীরা বলেছেন, কেডরিকের কাছ থেকে কিনে নেওয়ার পর পরে তারা লাশের বিভিন্ন অংশ পুনরায় বিক্রি করে দিতেন।

Link copied!