• ঢাকা
  • রবিবার, ১৯ মে, ২০২৪, ৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১,

ইউক্রেনে রাশিয়ার ক্ষেপণাস্ত্র হামলায় শিশুসহ ১৩ জন নিহত


সংবাদ প্রকাশ ডেস্ক
প্রকাশিত: এপ্রিল ২৮, ২০২৩, ০৩:২৮ পিএম
ইউক্রেনে রাশিয়ার ক্ষেপণাস্ত্র হামলায় শিশুসহ ১৩ জন নিহত

ইউক্রেনের রাজধানী কিয়েভসহ একাধিক শহর ও অঞ্চলে ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালিয়েছে রাশিয়া। এতে একজন শিশুসহ অন্তত ১৩ জন নিহত এবং পাঁচজন আহত হয়েছেন। শুক্রবার সকালে উমানে কয়েকটি অঞ্চল ও শহরে বিমান হামলার সতর্কসংকেত বেজে ওঠে। কিয়েভ কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, হামলা প্রতিহতে আকাশ প্রতিরক্ষাব্যবস্থা কাজ করছে।

শুক্রবার (২৮ এপ্রিল) ব্রিটিশ সংবাদমাধ্যম বিবিসি এ খবর জানিয়েছে। প্রতিবেদনে বলা হয়, শুক্রবার সকালে মধ্য ইউক্রেনের ডিনিপ্রো, ক্রেমেনচুক এবং পোলতাভার পাশাপাশি দক্ষিণে মাইকোলাইভেও বিস্ফোরণের শব্দ শোনা গেছে।

ইউক্রেনের কর্মকর্তারা জানিয়েছেন, উমানের কেন্দ্রীয় শহরের একটি আবাসিক ভবনের একটি ব্লকে হামলায় একজন শিশুসহ ১০ জন নিহত হয়েছে।

এ ছাড়া স্থানীয় মেয়রের মতে, ডিনিপ্রো শহরে একজন নারী এবং তার তিন বছরের শিশু নিহত হয়েছে।

ইউক্রেনের প্রেসিডেন্ট ভলোদিমির জেলেনস্কি বলেছেন, উমানের অ্যাপার্টমেন্ট ব্লকে ১০টি আবাসিক ভবন ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। হামলাগুলো দেখে বোঝা যায় রাশিয়ার বিরুদ্ধে আরও আন্তর্জাতিক পদক্ষেপ নেওয়া দরকার।

তিনি একটি টুইট বার্তায় বলেন, “শত্রুদের অস্ত্র দিয়ে থামানো যায়, আমাদের সৈন্যরা তাই করছেন। এ ছাড়া এটি নিষেধাজ্ঞার মাধ্যমেও বন্ধ করা যেতে পারে। বৈশ্বিক নিষেধাজ্ঞাগুলো অবশ্যই বাড়াতে হবে।”

ক্ষতিগ্রস্ত একটি ব্লকের বাসিন্দা ওলগা বার্তা সংস্থা রয়টার্সকে বলেছেন, তার অ্যাপার্টমেন্টের জানালা উড়ে গেছে। জরুরি পরিষেবাগুলো একটি স্ট্রেচারে একটি মৃতদেহ নিয়ে যেতে দেখে একজন ব্যক্তি কাঁদছিলেন৷

মধ্য ইউক্রেনের চেরকসি ওব্লাস্টের ৮০ হাজার লোকের বসবাস। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে শেয়ার করা ভিডিওতে দেখা গেছে, চেরকসি শহরজুড়ে আগুনের শিখা এবং ধোঁয়া উড়ছে। বেশ কয়েকটি ভবন ধসে পড়েছে। মাটিতে পড়ে রয়েছে ধ্বংসস্তূপ।

চেরকসির গভর্নর ইহর তাবুরেটস বলেছেন, জরুরি পরিষেবাগুলো ঘটনাস্থলে উদ্ধার কার্যক্রম পরিচালনা করছেে এবং পাঁচজনকে হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়েছে।

গভর্নর ইহর তাবুরেটস টেলিগ্রামে লিখেছেন, “দুটি ক্রুজ ক্ষেপণাস্ত্র একটি আবাসিক ভবন এবং একটি গুদাম ভবনে আঘাত করেছে। আমরা ক্ষয়ক্ষতির বিষয়টি পরিমাপ করার চেষ্টা করছি। পাশাপাশি বিমানবাহিনীকে সতর্ক থাকতে বলেছি।”

রুশ বাহিনীর বিরুদ্ধে ইউক্রেনীয় সেনারা পাল্টা আক্রমণের প্রস্তুতির মধ্যেই এমন হামলার ঘটনা ঘটল। এ ঘটনায় মস্কোর পক্ষ থেকে তাৎক্ষণিক কোনো প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায়নি।

রাশিয়ার বিরুদ্ধে বহুল প্রতীক্ষিত পাল্টা আক্রমণ শুরুর আগে ন্যাটো মিত্র ও অংশীদারদের কাছ থেকে বিপুল পরিমাণে অস্ত্র পেয়েছে ইউক্রেন। বৃহস্পতিবার ন্যাটোর মহাসচিব জেন্স স্টোলটেনবার্গ বলেছেন, ইতোমধ্যে ইউক্রেনকে ১ হাজার ৫৫০টি আর্মড ভ্যাহিকেল এবং ২৩০টি ট্যাংক পেয়েছে।

Link copied!