• ঢাকা
  • শুক্রবার, ২৪ মে, ২০২৪, ৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ১৫ জ্বিলকদ ১৪৪৫

বাচ্চাদের পেটের অসুখে যেসব খাবার দিতে পারেন


সংবাদ প্রকাশ ডেস্ক
প্রকাশিত: এপ্রিল ১৮, ২০২৪, ০৬:৩৩ পিএম
বাচ্চাদের পেটের অসুখে যেসব খাবার দিতে পারেন
ছবি: সংগৃহীত

আবহাওয়া বদলের সঙ্গে সঙ্গে ছোট বড় সবাই অসুস্থ হয়ে পড়ে। শীতে যেমন অসুস্থতা বেড়ে যায়, তেমনি প্রচণ্ড গরমেও বাড়ে। বিশেষ করে শিশুরা কোনো না কোনো রোগ আক্রান্ত হয়। সর্দি কাশি জ্বর তো হতেই পারে। সেই সঙ্গে দেখা দেয় পেটের অসুখের। একটু অনিয়ম হলেই শিশুদের পেটের অসুখ হতে পারে। প্রচণ্ড গরমে খাওয়া দাওয়ায় অনিয়ম হলেই পেটের সমস্যা হয়। তাই বিশেষজ্ঞরা এই গরমে স্বাস্থ্যকর খাবার খাওয়ার পরামর্শ দেন।

প্রচণ্ড গরমে বাড়িতেই রান্না করা খাবার খেতে হবে বলে জানান বিশেষজ্ঞরা। বাচ্চারা এই সময় বাইরের খাবার খেলেই পেটের অসুখে ভুগতে পারে। অনেক সময় খাবারে অনিয়মের কারণেও বাচ্চাদের পেটের সমস্যা হয়। ডায়েরিয়া, আমাশয়ের মতো রোগ দেখা দেয়। এই সমস্যা সমাধানে ওষুধ আর স্যালাইন খেতে হয়। এর পাশাপাশি কিছু পরিচিত খাবারও খাওয়ার পরামর্শ দিচ্ছেন বিশেষজ্ঞরা। তাদের মতে, বাচ্চাদের পেটের সমস্যা সমাধানে কয়েকটি অতি পরিচিত খাবার তালিকায় রাখুন। যা তাদের দ্রুত সুস্থ করতে সাহায্য করবে।

​ভাত

ভাত বাঙালির প্রধান খাদ্য। অনেক বাচ্চাই অসুস্থ হলে ভাত খেতে চায় না। কিন্তু ভাত হলো সরল কার্বের ভাণ্ডার। যা সহজেই হজম হয়। এছাড়াও এতে স্টার্চ রয়েছে যা শরীরে শক্তিও জোগায়। তাই বাচ্চারা ডায়ারিয়া বা অন্য কোনো পেটের অসুখে আক্রান্ত হলেই নিয়ম করে ভাত খাওয়াবেন। প্রয়োজনে ভাতকে একটু নরম করেও খাওয়াতে পারেন। তবে এই সময় তেল-মশলাদার কোনও তরকারি ভাতের সঙ্গে খাওয়াবেন না। এতে পেটের সমস্যা আরও বাড়তে পারে।

কলা

বাচ্চাদের পেটের অসুখ সারাতে যেকোনো ধরণের কলা খেতে পারে। কলায় পর্যাপ্ত পরিমাণে পটাশিয়াম, আয়রন এবং ফাইবার থাকে। যা ডায়ারিয়ার মহাঔষধ হিসাবে কাজ করে। এছাড়াও কলা অত্যন্ত সহজপাচ্য। এতে কার্ব মজুত থাকে। যা দ্রুত এনার্জি দেয়। বাচ্চার ডায়ারিয়া বা আমাশয়ের মতো যেকোনো পেটের অসুখ হলেই সারাদিনে একটা ছোট কলা দিতে পারেন। আবার কাঁচা কলার তরকারি বা ভর্তা বানিয়েও খাওয়াতে পারেন। এটি দ্রুত কাজ করবে।

ডাবের পানি

বাচ্চাদের ডায়ারিয়া বা আমাশয় হলেই শরীর থেকে পানির পরিমাণ কমে যায়। যার ঘাটতি পূরণে অবশ্যই ডাবের পানি উপকারী। এটি শরীরে পানির ঘাটতি পূরণ করবে। সেই সঙ্গে শরীরে  ফিরবে ইলেকট্রোলাইটসের ভারসাম্য। বাচ্চার পেটের অসুখ হলেই প্রথমে ডাবের পানি খাওয়ান। এতে শরীরে পানির ভাগ ঠিক থাকবে। শরীরও দুর্বল হবে না।

দই​

দই বাচ্চাদের জন্য খুবই উপকারী একটি খাবার। পেটের অসুখ হলে অন্ত্রে মজুত থাকা ভালো ব্যাকটেরিয়া প্রাণ হারাতে থাকে। এই সময় বাচ্চার কোলনে ভালো ব্যাকটেরিয়ার সংখ্যা বাড়ানো প্রয়োজন হয়। দই খেলে কোলনে ভালো ব্যাকটেরিয়ার জন্ম নেয়। যা পেটের অসুখ দ্রুত সারিয়ে তুলে। আবার শরীরের শক্তিও বজায় রাখে। বাচ্চাকে বেশি করে টক দই খাওয়াতে হবে। মিষ্টি দই  খাওয়ালে তেমন উপকার পাওয়া যাবে না।

আপেল​

বাচ্চাদের পেটের ছোট-বড় সমস্যা প্রতিরোধ করতে পারে আপেল। এই ফল খেলে ডায়েরিয়াও নিয়ন্ত্রণে চলে আসে। এতে পর্যাপ্ত পরিমাণে সলিউবল ফাইবার থাকে। যা বাচ্চার মলকে শক্ত করে। বাচ্চার পেটের অসুখ হলেই দিন একটি করে আপেল খাওয়াতে পারেন। তবে সকালের দিকে খাওয়াবেন। রাতে এই ফল না খাওয়ানোই ভালো।

Link copied!