• ঢাকা
  • শনিবার, ২২ জুন, ২০২৪, ৭ আষাঢ় ১৪৩১, ১৫ জ্বিলহজ্জ ১৪৪৫

কুবিতে আইসিটি বিভাগের ‍‍`ফেয়ার ওয়েল এন্ড ফ্রেশার্স রিসিপশন ২০২৩‍‍` অনুষ্ঠিত


কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিনিধি
প্রকাশিত: অক্টোবর ৪, ২০২৩, ০৬:৩৫ পিএম
কুবিতে আইসিটি বিভাগের ‍‍`ফেয়ার ওয়েল এন্ড ফ্রেশার্স রিসিপশন ২০২৩‍‍` অনুষ্ঠিত

কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয়ের (কুবি) আইসিটি বিভাগে আয়োজিত হয়েছে ‍‍`ফেয়ার ওয়েল এন্ড ফ্রেশার্স রিসিপশন ২০২৩‍‍`। বুধবার (৪ অক্টোবর) সকাল ১১ টায় বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রকৌশল অনুষদের সেমিনার রুমে  এই অনুষ্ঠান আয়োজিত হয়।

আইসিটি বিভাগের বিভাগীয় প্রধান ড. মো. সাইফুর রহমানের সভাপতিত্বে আয়োজিত এই অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. এ এফ এম আব্দুল মঈন এবং বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন প্রকৌশল অনুষদের ডিন অধ্যাপক ড. মাহমুদুল হাসান।

অনুষ্ঠানের শুরুতে প্রধান অতিথির বক্তব্যে বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ড. এ এফ এম আব্দুল মঈন বলেন, ‘আমাদের ভার্সিটি গুচ্ছ পদ্ধতিতে অনেক এগিয়ে কারণ আমাদের শিক্ষকরা সময়ানুবর্তিতা মেনে চলেন। আমি ভার্সিটির জন্য কিছু করতে এসেছি। তোমরা জীবনের উচ্চ লক্ষ্য স্থির করবে এবং লক্ষ্য পূরণের জন্য নিয়মিত চেষ্টা করবে। সর্বশেষে সবাইকে স্বাগত জানিয়ে বলবো, এগিয়ে যাবে সবসময়।’

অনুষ্ঠানে আইসিটি এসোসিয়েশনের প্রধান উপদেষ্টা রকিব হাসান বলেন, ‘এসোসিয়েশন এবং ডিপার্টমেন্ট থেকে আমরা চেষ্টা করেছি বিভাগের সাফল্য ধরে রাখার জন্য।  প্রোগ্রামিংয়ে আমরা যে ভালো করেছি সেটা কনটেস্টের ফলাফলই প্রমাণ করে। তাছাড়া এসোসিয়েশন থেকে একটা বৃত্তির ব্যবস্থা করতে চাই। উচ্চ শিক্ষায় বাহিরে থাকা টিচারদের নিয়ে বিভিন্ন সেশনের আয়োজন করতে চাই। বিদায়ীদের উদ্দেশ্যে বলবো সর্বোপরি ভালো মানুষ হওয়ার চেষ্টা করবে।’

এছাড়াও, প্রকৌশল অনুষদের ডিন, অধ্যাপক ড. মাহমুদুল হাসান তার বক্তব্যে বলেন, ‘আমাদের বিশ্ববিদ্যালয় খুব দ্রুত সেরা স্থানে নেতৃত্ব দিবে এবং এই  স্থানে আপনারা থাকবেন। আপনারা গ্রেজুয়েটরা এমন জায়গায় প্রতিষ্ঠিত হবেন যেন কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় নিয়ে সারা দেশ গর্ব করে।’

সবশেষে অনুষ্ঠানে সমাপনী বক্তব্যে আইসিটি বিভাগের বিভাগীয় প্রধান অধ্যাপক ড. মো. সাইফুর রহমান বলেন, ‘কুমিল্লা বিশ্ববিদ্যালয় এগিয়ে যাওয়ার জন্য বিভিন্ন কাজ বাস্তবায়ন হচ্ছে। গবেষণায় ভালো করার জন্য টিচারদের ভিসি বৃত্তি প্রদান, অসচ্ছল মেধাবী শিক্ষার্থীদের বৃত্তি প্রদান, উচ্চ গতির ইন্টারনেট প্রদানসহ নানা কাজ ভিসি স্যার করছেন। শিক্ষার্থীদের বলবো আইসিটি বিভাগ এবং প্রকৌশল অনুষদকে যদি সামনের দিকে এগিয়ে নিতে চাও তাহলে কোয়ালিটির সাথে কখনো কম্প্রোমাইজ করো না।’

Link copied!