• ঢাকা
  • শনিবার, ১৮ মে, ২০২৪, ৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১,

ট্রেনে যাত্রীকে মারধর, পুলিশ সদস্য বরখাস্ত


দিনাজপুর প্রতিনিধি
প্রকাশিত: মে ২২, ২০২৩, ০৮:৩৮ পিএম
ট্রেনে যাত্রীকে মারধর, পুলিশ সদস্য বরখাস্ত

দিনাজপুরে ট্রেনে এক যাত্রীকে মারধর ও মাদক মামলায় ফাঁসানোর হুমকি দেওয়ায় পার্বতীপুর জিআরপি থানার সহকারী উপপরিদর্শক (এএসআই) শহিদুল ইসলামকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে।

সোমবার (২২ মে) বিকেল ৫টায় পার্বতীপুর জিআরপি থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা এটিএম (ওসি) নুরুল ইসলাম বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

এর আগে বৃহস্পতিবার (১৯ মে) এএসআই শহিদুল ইসলামের বিরুদ্ধে ট্রেনে অনিয়মের প্রতিবাদ করেন করিম বাদশা নামের এক যাত্রী। এসময় তিনি তাকে মারধর ও মাদক মামলায় ফাঁসিয়ে দেওয়ার হুমকি প্রদান করেন। পরে রোববার (২১ মে) তাকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়।

পার্বতীপুর জিআরপি থানা সূত্রে জানা যায়, বৃহস্পতিবার ঢাকা থেকে ছেড়ে আসা দ্রুতযান এক্সপ্রেস ট্রেনে ঠাকুরগাঁও যাচ্ছিলেন করিম বাদশা। পথে এএসআই শহিদুল ইসলাম বাদশার নির্ধারিত চেয়ারের সামনে এক যাত্রীকে বাড়তি একটি চেয়ার দিয়ে বসতে দেন। এই ঘটনায় দুইটি ছবি রেলওয়ের একটি ফেসবুক ফ্যান গ্রুপে পোস্ট করেন যাত্রী করিম বাদশা। পরে পথেই ওই যাত্রীকে পুলিশের কর্মকর্তা শহিদুল ক্যান্টিনে নিয়ে যান এবং মোবাইল কেড়ে নিয়ে ছবি ও ফেসবুক পোস্টগুলো ডিলিট করে মোবাইল ভেঙে ফেলেন। এসময় ফেসবুক পোস্টকে কেন্দ্র করে যাত্রীকে মারধর করা হয়।  পরে বিষয়টি কাউকে না জানালে মাদক মামলা দেওয়ার হুমকি প্রদান করেন। এসময় বাদশার নাম, ঠিকানা, ও মোবাইল নম্বর নেন পুলিশ কর্মকর্তা শহিদুল। ট্রেনটি দিনাজপুরের পার্বতীপুর রেলওয়ে স্টেশনে আসলে নেমে যান ওই পুলিশ কর্মকর্তা।

এ ঘটনার পর ওই যাত্রী ঠাকুরগাঁও সদর থানায় অভিযোগ দিতে গেলে থানার পুলিশ রেলওয়ের ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কাছে অভিযোগ দেওয়ার পরামর্শ দেন। পরে তিনি ই-মেইলে ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের কাছে অভিযোগ প্রদান করেন।

পার্বতীপুর রেলওয়ে থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) এ টি এম নুরুল ইসলাম বলেন, “করিম বাদশার অভিযোগের কারণে এএসআই শহিদুল ইসলামকে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। বিষয়টি তদন্ত চলছে। তদন্ত শেষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।”

Link copied!