• ঢাকা
  • বৃহস্পতিবার, ১৮ আগস্ট, ২০২২, ৩ ভাদ্র ১৪২৯

প্রেমিকার খোঁজে পথে প্রান্তরে ঘুরছেন প্রেমকান্ত


বরগুনা প্রতিনিধি
প্রকাশিত: আগস্ট ৫, ২০২২, ০৯:১৪ পিএম
প্রেমিকার খোঁজে পথে প্রান্তরে ঘুরছেন প্রেমকান্ত

প্রেমের টানে চার হাজার কিলিমিটার পথ পাড়ি দিয়ে বরিশাল এসে মারধরে শিকার হওয়া তামিলনাড়ুর নৃত্যশিল্পী প্রেমকান্ত এবার প্রেমিকার সঙ্গে দেখা করতে বরগুনায় অবস্থান নিয়েছেন।

শুক্রবার (৫ আগস্ট) বিভিন্ন জায়গায় ঘুরে বরগুনার তালতলীতে এসে জেলা পরিষদের ডাক বাংলোতে অবস্থান নেন। এর আগে ২৪ জুলাই দুপুরে তিনি বরিশালে আসেন।

জানা যায়, বৃহস্পতিবার (৪ আগস্ট) রাতে বরিশাল থেকে বরগুনায় এসে তিনি বিভিন্ন জায়গায় তার প্রেমিকাকে খুঁজতে থাকেন। শুক্রবার দুপুরে প্রেমিকার পরিবারের সঙ্গে কথা বলতে তালতলীতে পৌঁছান। প্রেমকান্তের তালতলী অবস্থানের সংবাদ পেয়ে তার প্রেমিকের পরিবারের সদস্যরা বাড়িতে তালা দিয়ে অন্যত্র চলে গেছে।

প্রেমকান্ত জানান, সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে তার সঙ্গে তালতলী উপজেলার টিএন্ডটি রোডের বাসিন্দা ও বরিশাল সরকারি মহিলা কলেজে একাদশ শ্রেণির প্রথমবর্ষে পড়ুয়া এক ছাত্রীর প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে। এভাবে ফেসবুকে তিন বছর ধরে তাদের প্রেমের সম্পর্ক চলে। এক পর্যায়ে সুসম্পর্ক গড়ে উঠে দুই পরিবারের মধ্যে। ওই ছাত্রীর পরামর্শেই বাংলাদেশে আসেন তিনি।

প্রেমিক প্রেমকান্ত আরও জানান, বরিশালে আসার পর ওই শহরে বসে দেখাও মেলে তার প্রেমিকার সঙ্গে। দেখা হওয়ার একদিন পর তিনি জানতে পারেন তার অজান্তেই তালতলী উপজেলা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক চয়ন হালদার নামে এক যুবকের সঙ্গে প্রেমের সম্পর্ক আছে ওই কলেজছাত্রীর। এরপর হঠাৎ প্রেমিকা ও তার পরিবার প্রেমকান্তের সঙ্গে যোগাযোগ বন্ধ করে দেয়।

প্রেমকান্তের দাবি, ওই কলেজছাত্রীর প্রেমিক চয়ন হালদার তাকে মারধর করে এবং পরে বরিশাল মেট্রোপলিটনের এয়ারপোর্ট থানা পুলিশের হেফাজতেও থাকতে হয়েছে তাকে। তবে প্রেমকান্তের বিশ্বাস, দেখা হলে আবারও তার জীবনে ফিরে আসবেন তার ওই প্রেমিকা।

তালতলী থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কাজী সাখাওত হোসেন বলেন, “তামিলনাড়ুর যুবকের সঙ্গে আমাদের কথা হয়েছে। সে তালতলী থেকে চলে যাবে তার দেশে।”