• ঢাকা
  • রবিবার, ২৫ ফেব্রুয়ারি, ২০২৪, ১২ ফাল্গুন ১৪৩০, ১৫ শা’বান ১৪৪৫

এনআইডি সার্ভার বন্ধের কারণ জানালেন হুমায়ুন কবীর


সংবাদ প্রকাশ প্রতিবেদক
প্রকাশিত: আগস্ট ১৬, ২০২৩, ০৪:৫৩ পিএম
এনআইডি সার্ভার বন্ধের কারণ জানালেন হুমায়ুন কবীর

জাতীয় পরিচয়পত্র (এনআইডি) সার্ভারের পরিষেবা বন্ধের কারণ জানিয়েছেন সংস্থাটির অনুবিভাগের মহাপরিচালক (এনআইডি) এ কে এম হুমায়ুন কবীর। তিনি বলেছেন, “এনআইডি সার্ভারের পরিষেবা আবারও চালু করে দেওয়া হয়েছে। মেইনটেনেন্স ও নিরাপত্তার জন্য সাময়িকভাবে এই সেবা বন্ধ রাখা হয়েছিল।”

বুধবার (১৬ আগস্ট) রাজধানীর আগারগাঁওয়ে নির্বাচন ভবনে সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে তিনি এসব কথা বলেন।

এ কে এম হুমায়ুন কবীর বলেন, “সাময়িকভাবে এনআইডি সেবা বন্ধ ছিল। এজন্য আমরা প্রথমে দুঃখ প্রকাশ করছি। এনআইডি সার্ভার মেইনটেনেন্সসহ কিছু কাজের জন্য বন্ধ রেখেছিলাম। মেইনটেনেন্স ও নিরাপত্তার জন্যই মূলত সেবা বন্ধ রেখেছিলাম। তবে এখন এনআইডি সেবা চালু করে দেওয়া হয়েছে।”

এনআইডির অনুবিভাগের মহাপরিচালক বলেন, “পত্রিকায় দেখেছি সার্ভারে থ্রেট আসতে পারে। আমরা চিন্তা করলাম, জাতীয় ডাটাবেজে সার্ভারটাকে বহন করব, এই ডাটাবেজের যে সার্ভার আমাদের কাছে এটা যদি হ্যাক হয়।”

হুমায়ুন কবীর বলেন, “আমাদের লোকজন জানিয়েছেন, এই মুহূর্তে কোনো থ্রেট নেই। এখান (এনআইডি সার্ভার) থেকে ১১৭টি প্রতিষ্ঠান ও সাধারণ নাগরিকরাও সেবা পেয়ে থাকেন। সব মানুষের নিরাপত্তার জন্য এটা করছি। এখন সার্ভার ওপেন আছে সার্ভার থেকে সেবা নিচ্ছি। যদি কোনো ফলস দেখতে পাই, তখন জাতির স্বার্থে আমরা সিদ্ধান্ত নেব কি করা যেতে পারে। জাতিকে ফলস কিছুর মধ্যে ফেলতে দেবো না।”

এনআইডি সেবা বন্ধ করার আগে পাবলিকলি না জানানো প্রসঙ্গে এনআইডি ডিজি বলেন, “১৭১টি প্রতিষ্ঠানকে জানিয়েছি, যারা এখান থেকে সেবা নিয়ে থাকে। তবে পাবলিকলি জানায়নি কারণ একটা প্যানিক সৃষ্টি হতে পারে।”

এ কে এম হুমায়ুন কবীর আরও বলেন, “আমরা সব সময় চেষ্টা করি এটাকে সচল রাখার জন্য। সবাইকে এনআইডি সেবা দেওয়ার জন্য। যারা ব্যাংকে কাজ করেন, ব্যাংকিং সেবা ও আর্থিক প্রতিষ্ঠানের সেবা দিয়ে থাকি। ১৪ আগস্ট রাত ১২টার দিকে আমরা এটাকে বন্ধ করে দিয়েছিলাম। বুধবার সকালে এটা চালু করা হয়েছে।”

Link copied!