• ঢাকা
  • বৃহস্পতিবার, ১৩ জুন, ২০২৪, ৩০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১, ৭ জ্বিলহজ্জ ১৪৪৫

সকল ক্লাব ও বার বন্ধ থাকবে: ডিএমপি কমিশনার


সংবাদ প্রকাশ ডেস্ক
প্রকাশিত: জুলাই ১৫, ২০২১, ০৯:২৪ পিএম
সকল ক্লাব ও বার বন্ধ থাকবে: ডিএমপি কমিশনার

‘কঠোর লকডাউনে’ সব ক্লাব ও বার বন্ধ থাকবে বলে জানিয়েছেন ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের (ডিএমপি) কমিশনার মো. শফিকুল ইসলাম।

বুধবার (৩০ জুন) বেলা ১২টায় ডিএমপির মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এ কথা জানান ডিএমপি কমিশনার।

সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জাবাবে তিনি বলেন, “ঢাকা ক্লাব হোক আর অফিসার্স ক্লাব— কঠোর লকডাউনে সব বন্ধ থাকবে। ঢাকার কোনো ক্লাব খোলা থাকবে না।”

দেশের করোনা সংক্রমণ বৃদ্ধি পাওয়ায় বৃহস্পতিবার (১ জুলাই) থেকে সারাদেশে ‘কঠোর লকডাউন’ জারি করেছে সরকার। বুধবার বেলা ১১টার দিকে এই বিধিনিষেধের নির্দেশ দিয়ে প্রজ্ঞাপন জারি করে মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ।

কঠোর লকডাউনের ডিএমপির কার্যক্রম সম্পর্কে মো. শফিকুল ইসলাম বলেন, “বিধিনিষেধের সময় জরুরি প্রয়োজন ছাড়া কেউ ঘর থেকে বের হলে তাকে গ্রেপ্তার করা হবে এবং দণ্ডবিধি ২৬৯ ধারায় মামলা দিয়ে আদালতে পাঠানো হবে। কোনো কোনো ক্ষেত্রে তাৎক্ষণিকভাবে মোবাইল কোর্টের মাধ্যমে শাস্তির ব্যবস্থা করা হবে। এই ধারায় মামলা হলে দোষী ব্যক্তির সর্বোচ্চ ছয় মাসের জেল অথবা অর্থদণ্ড অথবা উভয় দণ্ডে দণ্ডিত হতে পারে।”

ডিএমপি কমিশনার আরও বলেন, “এবার ঢাকায় কোনো যান্ত্রিক যানবাহন চলাচল করতে দেওয়া হবে না। কেউ জরুরি প্রয়োজনে বের হলে বা বাজারে গেলে রিকশা ব্যবহার করতে হবে। কারণ আইইডিসিআরের বিশেষজ্ঞরা বলেছেন, রিকশা খোলা থাকায় সংক্রমণ কম ছড়ায়।”

কমিশনার আরও বলেন, “লকডাউনে খাবারের হোটেল খোলা থাকবে। তবে কেউ হোটেলের মধ্যে বসে খাওয়া দাওয়া করতে পারবেন না। এবার অলিতে গলিতে কোনো দোকানপাট খোলা রাখতে দেওয়া হবে না। সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার জন্য কাঁচাবাজারগুলো রাস্তার পাশে নিয়ে আসা হবে।”

জরুরি সেবার কাজে নিয়োজিতদের উদ্দেশ্যে তিনি বলেন, “যারা জরুরি কাজে নিয়োজিত বা সাংবাদিক তারা অবশ্যই মাস্ক এবং আইডি কার্ড সঙ্গে রাখবেন।”

বিদেশগামী বা বিদেশ ফেরতদের উদ্দেশে ডিএমপি কমিশনার বলেন, “যারা বিদেশ থেকে ফিরবেন তাদের বহনের জন্য গাড়ি ব্যবহার করা যাবে। তবে আগত যাত্রীদের পরিবারকে আমরা অনুরোধ করবো, আপনারা গাড়ি দিয়ে বিমানবন্দরে না গেলেও চলবে। কারণ বিমানবন্দরে পার্কিংয়ে যাত্রীদের জন্য পর্যাপ্ত সংখ্যক গাড়ি রয়েছে। এছাড়াও আন্তর্জাতিক ফ্লাইটের যাত্রীদের রাস্তায় পুলিশকে প্লেনের টিকিট এবং পাসপোর্ট প্রদর্শন করতে হবে।

কুরিয়ার সার্ভিসের কাভার্ডভ্যানে যেহেতু যাত্রী পরিবহন করা হয় না, তাই সেগুলো চলাচল করতে পারবে বলে জানান মো. শফিকুল ইসলাম।

Link copied!