• ঢাকা
  • বুধবার, ২৮ ফেব্রুয়ারি, ২০২৪, ১৫ ফাল্গুন ১৪৩০, ১৮ শা’বান ১৪৪৫

আমড়া খাওয়ার উপকারিতা


সংবাদ প্রকাশ ডেস্ক
প্রকাশিত: আগস্ট ২৩, ২০২৩, ০৩:১৮ পিএম
আমড়া খাওয়ার উপকারিতা

দেশি ফল আমড়া। নানা ধরনের পুষ্টিগুণে ভরা ফলটি বিদেশি অনেক ফলের চেয়েও পুষ্টিমানে এগিয়ে। আমড়ায় প্রোটিন, ক্যালসিয়াম ও আয়রনের পরিমাণ বেশি। এটি কাঁচা খাওয়ার পাশাপাশি আচার, চাটনি ও জেলি তৈরি করা যায়। অন্যদিকে তরকারিতেও রান্না করা যায়। আমড়ায় প্রায় ৯০ শতাংশ পানি, ৪-৫ শতাংশ কার্বোহাইড্রেট ও সামান্য প্রোটিন থাকে। ১০০ গ্রাম আমড়ায় ভিটামিন সি পাওয়া যায় ২০ মিলিগ্রাম, ক্যারোটিন ২৭০ মাইক্রোগ্রাম, সামান্য ভিটামিন বি, ক্যালসিয়াম ৩৬ মিলিগ্রাম, আয়রন ৪ মিলিগ্রাম। আমড়ায় যথেষ্ট পরিমাণ পেকটিনজাতীয় ফাইবার এবং অ্যান্টি-অক্সিডেন্টজাতীয় উপাদান থাকে। 

  • আমড়াতে প্রচুর পরিমাণে ভিটামিন সি থাকে। ভিটামিন সি রক্ত জমাট বাঁধতে সাহায্য করে।
  • খাদ্যে থাকা ভিটামিন এ এবং ই এটির সঙ্গে যুক্ত হয়ে অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট হিসেবে কাজ করে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়।
  • আমড়াতে ক্যালসিয়ামও রয়েছে। শিশুদের দৈহিক গঠনে এটি খুব দরকারি। নিয়মিত আমড়া খেলে ক্যালসিয়ামের ঘাটতি অনেকটাই পূরণ হয়। 
  • আমড়াতে প্রচুর আয়রন থাকায় রক্তাল্পতা দূর করতে বেশ কার্যকর। পাশাপাশি হিমোগ্লোবিনের মাত্রা ঠিক রাখে। এ ছাড়া কোলেস্টেরলের মাত্রা কমায় আমড়া।
  • আমড়া খেলে মুখের অরুচিভাব দূর হয়। মুখের রুচি ফিরে আসায় ক্ষুধা বৃদ্ধি পায়। এ ছাড়া বদহজম ও কোষ্ঠকাঠিন্য রোধে আমড়া উপকারী।
  • অ্যান্টি-অক্সিডেন্ট জাতীয় উপাদান থাকায় আমড়া বার্ধক্যকে প্রতিহত করে। ত্বক, নখ ও চুল সুন্দর রাখতে সহায়তা করে। ব্রণ দূর করতে এবং ত্বকের উজ্জ্বলতা বাড়াতে কাজ করে আমড়া। 
  • সর্দি-কাশির ক্ষেত্রে এটি বেশ উপকারী। বিভিন্ন ধরনের ভাইরাসজনিত সংক্রমণ, সর্দি, কাশি ও ইনফ্লুয়েঞ্জা রোধে আমড়া অত্যন্ত উপকারী।
  • দাঁতের মাড়ি ফুলে যাওয়া, দাঁতের গোড়া থেকে পুঁজ ও রক্ত পড়া, প্রচণ্ড ব্যথা, খাবার খেতে অসুবিধা ও অকালে দাঁত পড়ে যাওয়ার প্রতিরোধে বেশ কার্যকরী।
Link copied!