• ঢাকা
  • রবিবার, ২১ জুলাই, ২০২৪, ৫ শ্রাবণ ১৪৩১, ১৪ মুহররম ১৪৪৫

শাকিবকে কলকাতার নায়িকাদের সঙ্গে বেশি কাজ করা উচিত, কেন বললেন পায়েল


সংবাদ প্রকাশ ডেস্ক
প্রকাশিত: জুন ১৯, ২০২৪, ০৩:০১ পিএম
শাকিবকে কলকাতার নায়িকাদের সঙ্গে বেশি কাজ করা উচিত, কেন বললেন পায়েল
শাকিব ও পায়েল। ছবি : সংগৃহীত

টালিউডে একের পর এক ছবিতে শাকিব খান। কখনো্ তার বিপরীতে ‘তুফান’ ছবিতে মিমি চক্রবর্তী। কখনো ‘দরদ’ ছবিতে তার নায়িকা পায়েল সরকার। দুই বাংলা প্রযোজিত ‘প্রিয়তমা’ ছবিতে শাকিবের নায়িকা ইধিকা পাল। পায়েল অবশ্য শাকিবের সঙ্গে এর আগেও কাজ করেছেন। ২০১৮সালে পায়েল, শ্রাবন্তী চট্টোপাধ্যায় আর শাকিব মিলে ‘ভাইজান এলো রে’ ছবিতে অভিনয় করেছিলেন। 

অনন্য মামুন পরিচালিত ‘দরদ’ ছবিটি পুরোপুরি বাণিজ্যিক ঘরানার হলেও ভিন্ন স্বাদের। পরিচালক এই ছবির প্রযোজকও। সহ-প্রযোজনায় টলিউডের এসকে মুভিজ। সদ্য মুক্তি পেয়েছে ছবির ঝলক। দেখা যাচ্ছে নায়ক মানসিক বিকারগ্রস্ত খুনি। পায়েল উচ্চপদস্থ প্রশাসনিক।

এই প্রথম পুলিশের ভূমিকায় অভিনয় করলেন? প্রশ্ন রাখা হয়েছিল পায়েলের কাছে। তার কথায়, ‘‘বরাবর এই পদটিকে শ্রদ্ধা করি। কতবার কত জায়গায় যেতে যেতে দেখেছি রোদ-ঝড়-জল-বৃষ্টি মাথায় করে প্রশাসনিক মহল আমাদের নিরাপত্তার খাতিরে পথে নামে। এবার আমি তাদের ভূমিকায়। অনেক দিন ধরেই মহিলা পুলিশের ভূমিকায় অভিনয়ের ইচ্ছে ছিল।” 

পর্দায় এক নারী পুলিশের কর্মকাণ্ডের পাশাপাশি তাকে পেশাজীবনে কীভাবে প্রতি মুহূর্তে লিঙ্গবৈষম্যের শিকার হতে হয়, সেটাও দেখানো হবে। চরিত্র জীবন্ত করতে শুটিংয়ের আগে পায়েল একাধিক মহিলা প্রশাসনিকের সংস্পর্শে এসেছিলেন। বাস্তবে কি তারা এই বৈষম্যের শিকার? নায়িকার অভিজ্ঞতা, ‘‘ওরা স্বীকার করেছেন, এই ধরনের সমস্যা তারাও সহ্য করেছেন। কারণ, পুরুষ আর নারী শরীর একেবারে ভিন্ন। প্রতি মাসে রজঃস্বলা অবস্থাতেও দৌড়ঝাঁপ, সন্তানধারণের মতো বিষয়গুলো শুধু নারীর ক্ষেত্রেই প্রযোজ্য। সেই সব সামলে ওরা দায়িত্ব পালন করেন। পুরুষের সমকক্ষ হতে হয় তাঁদের।” পায়েলের মতে, ওরা জানেন, এভাবেই কাজ করতে হবে। তাই প্রত্যেকে বিষয়টিকে চ্যালেঞ্জ হিসেবে নেন।

মহিলা প্রশাসনিকদের খুঁটিয়ে লক্ষ করার পাশাপাশি পায়েল অ্যাকশনেও অংশ নিয়েছেন। দৌড়ঝাঁপের জন্য বাড়তি শরীরচর্চা ছিলই, পাশাপাশি, পিস্তল ধরতে শিখেছেন!

নায়কের সঙ্গে তাকে বেশি সময় দেখা যাবে? কাজের ফাঁকে পুরোনো বন্ধুত্ব নতুন করে ঝালিয়ে নিলেন? প্রশ্ন শুনে এ বার হালকা হাসি নায়িকার। তার কথায়, ‘‘আমরা প্রত্যেকটা শট আলোচনা করে নিয়ে করতাম। এ ছাড়া, পরিচালক মামুনও আমাদের কিছু ক্ষেত্রে পরামর্শ দিয়েছেন। তবে ওর বড় গুণ, খুব প্রয়োজন পড়লে তবেই বলেন। নইলে অভিনেতাদের ওপরে পুরো বিষয়টি ছেড়ে দেন। তাই মজা করতে করতেই কাজ করেছি।’’

২০১৮ সালের পরে ২০২৩। নায়ক অনেক বদলেছেন? ফোনের ওপারে চাপা উচ্ছ্বাস, ‘‘আগের থেকে আরও রোগা হয়ে গিয়েছে! তাতে আরও ঝকঝকে দেখতে লাগছে।’’ শাকিব কি আরও বেশি টালিউড নায়িকাদের সঙ্গে অভিনয় করছেন? সঙ্গে সঙ্গে পায়েলের স্বতঃস্ফূর্ত জবাব, “শাকিবের মধ্যে নায়কোচিত সমস্ত গুণ রয়েছে। দুই বাংলা মিলিয়ে এখন প্রচুর কাজও হচ্ছে। সে ক্ষেত্রে শাকিব এপার বাংলায় বেশি কাজ করলে আখেরে লাভ টলিউডের।”

Link copied!